ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯

র‌্যাবের জালে অজ্ঞান পার্টির ৭ সদস্য আটকা

প্রকাশিত: ১০:২৫, ২৫ মার্চ ২০১৯

 র‌্যাবের জালে অজ্ঞান  পার্টির ৭ সদস্য  আটকা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীতে অজ্ঞান পার্টির দৌরাত্ম্য বেড়ে যাওয়ায় মাঠে নেমেছে র‌্যাব। অভিযানের প্রথম দিনেই র‌্যাবের জালে ধরা পড়েছে অজ্ঞান পার্টির ৭ সদস্য। সংঘবদ্ধ চক্রটি বাস যাত্রীদের নাকে রুমাল লাগিয়ে কিভাবে ভয়ানক পদ্ধতিতে অজ্ঞান করে সর্বস্ব লুটে নিত সে কাহিনী সম্পর্কেও অবিশ্বাস্য তথ্য মিলেছে। র‌্যাব জানিয়েছে চক্রটি খুব সাদামাটা কৌশলেই শুধু চেতনানাশক রুমাল মানুষের নাকে লাগিয়েই অজ্ঞান করে সর্বস্ব লুটে নিত। এমন তথ্যের ভিত্তিতেই শনিবার রাতে টঙ্গী এলাকা থেকে সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্রের সাতজনকে আটক করা হয়। গ্রেফতারের পর তারা জানায়- রাজধানীর ঢাকা-ময়মনসিংহ, আব্দুল্লাহপুর-আশুলিয়া, টঙ্গী-কালীগঞ্জ রুটে ও গাজীপুরের বিভিন্ন স্থানে বাসে যাত্রীদের কাছে এই চেতনানাশক স্প্রে ব্যবহার করেই তারা তাদের টার্গেট পূরণ করত। এ বিষয়ে র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেম জানান, উত্তরা আব্দুল্লাহপুর ও টঙ্গী এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাকিব ওরফে সুমন (২২), নাঈম ইসলাম (২২), আজাদ (২৮), সাইফুল ইসলাম (২৮), ইমরুল হোসেন (১৮), সাগর শেখ (২০), আরাফাতকে (১৯) আটক করা হয়। তারা দুর্ধর্ষ। তাদের কাছ থেকে এ সময় ধারালো ক্ষুর, ছোরা, দশটি বেন্টড ও চেতনানাশক মলম উদ্ধার করা হয়। তারা জানিয়েছে- চক্রের এক সদস্য প্রথমে টার্গেট করা ব্যক্তির পাশের সিটে বসে। আরেকজন বিক্রেতা সেজে একই বাসে রুমাল নিয়ে টার্গেট করা যাত্রীর কাছে যায়। কৌশলে চেতনানাশক স্প্রে মেশানো রুমাল বের করে বসে থাকা যাত্রীর নাকের কাছে ধরে। যাত্রীর পাশে বসা ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য রুমালের দর-দাম করতে ওই যাত্রীর নাকের চেপে ধরে রাখে। ২ থেকে ১০ মিনিটের মধ্যে টার্গেট করা যাত্রী অজ্ঞান হয়ে পড়েন। সিটে বসে থাকা চক্রের সদস্য এমনভাবে তাকে বসিয়ে রাখে যাতে সবাই মনে করে অজ্ঞান নয় ঘুমিয়ে পড়েছেন ওই যাত্রী। এরপর নিরাপদ দূরত্বে রুমাল বিক্রেতা বাস থেকে নেমে যায়। তখন চক্রের অন্য সদস্যরা যাত্রীর সর্বস্ব লুটে নেয়।