রবিবার ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৯ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

জার্মান সাংবাদিকদের ওপর হামলার নেপথ্যে

এইচএম এরশাদ, কক্সবাজার ॥ উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসী রোহিঙ্গাদের হামলায় ৩ জার্মান সাংবাদিক ও পুলিশসহ ৬ জন আহত হওয়ার নেপথ্যে রোহিঙ্গাদের নগদ টাকা (ত্রাণ) না দেয়াটাই কাল হয়েছে বলে জানা গেছে। স্থানীয়রা অতিদরিদ্র দেখে বিদেশী তিন সাংবাদিক তাদের জামাকাপড় কিনে দিতে তাদের গাড়িতে তুলেন। অপর রোহিঙ্গারা ধারণা করেছে, নিশ্চয় ওই রোহিঙ্গা পরিবারকে কোথাও আড়ালে নিয়ে নগদ টাকা ধরিয়ে দিতে পারে বিদেশীরা। তাই কাল বিলম্ব না করে হামলে পড়ে সাংবাদিকদের ওপর। বৃহস্পতিবার দুপুরে কুতুপালং ক্যাম্প-১ ইস্ট এর লম্বাশিয়া বাজারে সৃষ্ট ঘটনায় তিনজন জার্মান সাংবাদিক ও একজন বাংলাদেশী দোভাষী (সাংবাদিক), একজন পুলিশ ও একজন গাড়ির ড্রাইভার আহত হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে সবাই খারাপ নয়। দরিদ্র ও অসহায় এমন এক নিরীহ পরিবারের অবস্থা দেখে তাদের সাহায্যার্থে এগিয়ে আসেন সাংবাদিকরা। এ খবর টের পেয়ে যায় অপর রোহিঙ্গারা। তারপর তৎক্ষণাৎ তারা সিদ্ধান্ত নেয় যে সবাইকে না দিয়ে (টাকা) একটি পরিবারকে সাহায্য করার মজা বুঝিয়ে দেবে। সাংবাদিকদের বহনকারী গাড়ির গতিরোধ করে রোহিঙ্গারা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। সাংবাদিকদের নামিয়ে বেদম মারধর করে সন্ত্রাসী রোহিঙ্গারা। তবে রোহিঙ্গাদের পক্ষে একজন পুরনো রোহিঙ্গা নেতার দাবি হচ্ছে-ওই পরিবারকে তারা (সাংবাদিক) অপহরণ করে নিয়ে যাচ্ছিলেন মনে করে হামলার ঘটনা ঘটেছে। তবে স্থানীয়রা বলেন, প্রতিদিন কত রোহিঙ্গা বিদেশীদের গাড়িতে করে কোথায় যাচ্ছে কোন খবর থাকে না, আর একটি অসহায় পরিবারকে গাড়িতে তোলায় সাংবাদিকরা কথিত অপহরণকারী হয়ে গেল এটি কোনদিন হতে পারে না। রোহিঙ্গারা নাফরমান জাতি বলে উল্লেখ করে স্থানীয়রা বলেন, তাদের (রোহিঙ্গা) যতক্ষণ খাওয়াতে পারে, ততক্ষণ ওই লোক বা সংস্থা ভাল, একটু ব্যতিক্রম হলেই লাটিসোটা ও দা খন্তি নিয়ে ঝাপিয়ে পড়ে রোহিঙ্গারা খাদ্য (ত্রাণ) সরবরাহকারীর ওপর।

স্থানীয়রা বলেন, রোহিঙ্গারা যে অকৃতজ্ঞ জাতি তা কক্সবাজারের মানুষ ভাল করেই জানে। রোহিঙ্গারা যে থালায় খায় স্বার্থ পুরিয়ে গেলে ওই থালাটিও ছিদ্র করে দিয়ে যায়। টেকনাফের উনচিপ্রাং এলাকার আলী আহমদ নামে একজন জেলে বলেন, নাফনদীতে মাছ শিকারে যাওয়ায় পরিচয় সূত্রে ২০১৭ সালের শুরুতে একটি অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গা পরিবারকে তার ভিটায় আশ্রয় দেয়া হয়েছিল।

শীর্ষ সংবাদ:
দাম কমানোর টার্গেট ॥ সংসদে বাজেট পেশ ৯ জুন         ৫৭ বছর পর ঢাকা থেকে ‘মিতালি এক্সপ্রেস’ যাবে ভারতে         রাজনীতির মাঠ গরম করতে চায় বিএনপি         মাঙ্কিপক্সে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে তরুণরা         দুর্নীতির শ্বেতপত্র প্রকাশ করা হবে ॥ রিফাত         পাহাড়ে বিচ্ছিন্নতাবাদী তৎপরতা দিন দিন বাড়ছে         ফিফা বিশ্বকাপ ট্রফি ঢাকায় আসছে ৮ জুন         আজ জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী দিবস ॥ নানা আয়োজন         উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় কমিউনিটি রেডিও শক্তিশালী মাধ্যম         অবৈধ ক্লিনিক বন্ধে দেশজুড়ে অভিযান         ইয়াবা ও মানব পাচারে কমিশন পায় রোহিঙ্গা নারীরা         চলচ্চিত্র ব্যবসায় আশার আলো মিনি সিনেপ্লেক্স         সিলেটে ডায়রিয়াসহ পানিবাহিত রোগ বাড়ছে         বিএনপি খোমেনি স্টাইলে বিপ্লব করার দুঃস্বপ্ন দেখছে ॥ কাদের         শান্তিরক্ষীগণ পেশাদারিত্ব, দক্ষতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন : প্রধানমন্ত্রী         প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে সময়োপযোগী কারিকুলাম প্রণয়নের নির্দেশ রাষ্ট্রপতির         বাংলাদেশ আজ শান্তি ও সম্প্রীতির এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত : রাষ্ট্রপতি         ভারতের গুয়াহাটিতে তৃতীয় নদী সম্মেলন শুরু         রাজধানীকে সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         বাগেরহাটে ঝড়ে গাছ ভেঙ্গে পড়ল ইউএনওর গাড়ির উপর