ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

জিডিপির প্রবৃদ্ধি সাড়ে ৭ শতাংশ হতে পারে ॥ এডিবি

নির্বাচন অর্থনীতিতে তেমন প্রভাব ফেলবে না

প্রকাশিত: ০৬:২৪, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নির্বাচন অর্থনীতিতে তেমন প্রভাব ফেলবে না

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ চলতি অর্থবছরে (২০১৮-১৯) মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি সাড়ে ৭ শতাংশ হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে দাতা সংস্থা এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। বুধবার এডিবি এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট আউটলুক ২০১৮ আপডেট প্রকাশ করেছে। সেখানে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি সম্পর্কে এই কথা বলা হয়েছে। প্রতিবেদনটি প্রকাশ উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে এডিবির ঢাকা কার্যালয়। এতে এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ, সিনিয়র অর্থনীতিবিদ সুন চ্যান হং উপস্থিত ছিলেন। এডিবির আউটলুকে বলা হয়েছে, অর্থনীতিতে চার ধরনের ঝুঁকি আছে। এগুলো হলো আমদানির লাগাম টেনে ধরতে না পারা, বড় প্রকল্পের জন্য যথাযথ অর্থায়নের ব্যর্থতা, বিশ্ব বাজারে তেলের দাম বৃদ্ধি এবং আবহাওয়ার প্রতিকূলতা। নির্বাচনের বছরে অর্থনীতিতে কোন প্রভাব পড়বে কি না, প্রশ্ন করা হলে এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ বলেন, নির্বাচন একটি দেশের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার অংশ। তাই আগামী নির্বাচন সম্ভবত অর্থনীতিতে বড় প্রভাব ফেলবে না। এর কারণ হলো, স্থিতিশীল সামষ্টিক অর্থনীতি, ভাল ব্যবসায় পরিবেশ এবং জনগণ একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের জন্য অপেক্ষায় আছে। তাই নির্বাচন অর্থনীতিতে ন্যূনতম প্রভাব ফেলবে বলে আশা করা যায়। এডিবির আউটলুকে আরও বলা হয়েছে, বিদায়ী অর্থবছরে ৭ দশমিক ৯ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। এটি স্বাগত জানানোর মতো উন্নয়ন। জিডিপির উচ্চ প্রবৃদ্ধির দুই কারণ চিহ্নিত করেছে এডিবি। এগুলো হলো বেসরকারী খাতের ভোগ এবং উচ্চ সরকারী বিনিয়োগ। এসব কারণে চলতি অর্থবছরেও এই ধরনের প্রবৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে বলে মনে করে এই দাতা সংস্থাটি। সিনিয়র অর্থনীতিবিদ সুন চ্যান হং বলেন, বাংলাদেশে ৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি খুবই সম্ভব। এ জন্য বিনিয়োগ দরকার। সরকারী বিনিয়োগ বেসরকারী বিনিয়োগকে উৎসাহিত করে। কিন্তু বাংলাদেশে এখনও বেসরকারী বিনিয়োগ চাহিদা অনুযায়ী ততটা দ্রুত গতিতে হচ্ছে না। জিডিপির অনুপাতে বেসরকারী বিনিয়োগ স্থবির হয়ে আছে। সেই তুলনায় সরকারী বিনিয়োগ বেশ ভাল। বাংলাদেশে মানবসম্পদে আরও বেশি বিনিয়োগ করা দরকার। সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসার রোহিঙ্গাদের জন্য আরও ১০ কোটি ডলার অনুদান দেয়ার চিন্তাভাবনা করছে এডিবি। অবশ্য আগের দেয়া ১০ কোটি ডলার দিয়ে নেয়া প্রকল্পের অগ্রগতি দেখেই এডিবি নতুন করে অনুদানের বিষয়টিতে সিদ্ধান্ত নেবে। এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ আরও বলেন, বিশ্ব বাণিজ্যে দুই জায়ান্টের (বড় শক্তি) মধ্যে অস্থিরতা চলছে। বাংলাদেশের জন্য এটি বড় সুযোগ। তৈরি পোশাকসহ অন্য খাতে বিনিয়োগ আকৃষ্ট করার জন্য সুযোগ নিতে পারে বাংলাদেশ। বাংলাদেশে অনেকগুলো অর্থনৈতিক অঞ্চল হচ্ছে। প্রতিবেদন প্রকাশের সময় উপস্থিত ছিলেন এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ, এডিবির টিম লিডার এ্যান্ড এক্সটারনাল রিলেশনস গোবিন্দ বার, প্রিন্সিপাল কান্ট্রি স্পেশালিস্ট জয়তসানা ভার্মা প্রমুখ।
monarchmart
monarchmart