ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

এম. মনসুর আলী

বাধ্যতামূলক জন্মনিয়ন্ত্রণ

প্রকাশিত: ০৬:৩৮, ১৫ জুন ২০১৭

বাধ্যতামূলক জন্মনিয়ন্ত্রণ

এশিয়া মহাদেশের মধ্যে বাংলাদেশ পঞ্চম জনবহুল দেশ হিসেবে পরিচিত। আয়তনের দিক থেকে বাংলাদেশ বিশ্বের ৩০০০ ভাগের এক ভাগ মাত্র; আর জনসংখ্যার দিক থেকে বাংলাদেশ পৃথিবীর অষ্টম বৃহত্তম দেশ। বর্তমানে বাংলাদেশের জনসংখ্যা প্রায় সাড়ে ষোল কোটি। আর প্রতিবছর ৩০ লাখ লোক যোগ হচ্ছে এই মোট জনসংখ্যার সঙ্গে। এই হারে জনসংখ্যা বাড়তে ২০৫০ সালে বাংলাদেশের জনসংখ্যা প্রায় ২৫ কোটিতে দাঁড়াবে। আমাদের দেশের আয়তন মাত্র ৫৫ হাজার বর্গমাইল। যদি প্রতিবছর ৩০ লাখ লোক বাড়ে, তাহলে ৩০ বছর পর চাষের কোন জমি থাকবে না। দেখা দেবে জনসংখ্যা বিস্ফোরণ। তাই অতি দ্রুত দুই সন্তাননীতি বাধ্যতামূলক করা আবশ্যক। বিশেষ করে সরকারী, বেসরকারী চাকরিজীবীদের ক্ষেত্রে। দুটির বেশি সন্তান থাকলে সরকারের কোন দফতরে চাকরি পাওয়া যাবে না। সরকারী সুবিধা পেতে হলেও সন্তান সংখ্যা দুইয়ের মধ্যেই রাখতে হবে। দুটির বেশি সন্তান হলে জনপ্রতিনিধি হওয়া যাবে না। জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে ভারতের আসাম রাজ্য সরকার এমনই একটি আইন পাস করতে যাচ্ছে। আমাদের দেশেও জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে এমন একটি আইন অতীব জরুরী। চীনে জন্মনিয়ন্ত্রণ রোধে আইন আছে, এক সন্তানের বেশি হলে ঐ পরিবারকে শহরে থাকতে দেয়া হয় না। ফলে চীন জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমে সফল হয়েছে। আমাদের দেশে অন্তত সরকারী বেসরকারী চাকরিজীবীদের ক্ষেত্রে ভারতের আসাম রাজ্য সরকারের মতো আইন করে দুই সন্তান নীতি বাধ্যতামূলক করা প্রয়োজন । এই নীতি জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে বিরাট ভূমিকা রাখবে। সরাইল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২