রবিবার ৪ আশ্বিন ১৪২৭, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

সুচিত্রা সেনের প্রয়াণ দিবসে শ্রদ্ধাঞ্জলি

সুচিত্রা সেনের প্রয়াণ দিবসে শ্রদ্ধাঞ্জলি

গৌতম পা-ে ॥ বাংলাদেশের বাতাস থেকে তিনি প্রথম অক্সিজেন নিয়েছেন, আলোতে চোখ মেলেছেন, মাটিতে হাঁটতে শিখেছেন। শুধু শৈশব নয়, কৈশোরের গোল্লাছুট আর দুরন্তপনাও বাংলাদেশে। জীবনের প্রথম ষোলটি বছর তার কেটেছে এই দেশে। বলা যায়, জীবনের সবচেয়ে মধুর সময়টাই তিনি এদেশে কাটিয়েছেন। বাংলা চলচ্চিত্রের মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের আজ তৃতীয় মৃত্যুবার্কিী। ২০১৪ সালের এই দিনে কলকাতার বেলভিউ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। পাবনার এক সম্ভ্রান্ত হিন্দু পরিবারের অন্দরমহল থেকে ১৯৩১ সালের ৬ এপ্রিল ছড়িয়ে পড়ে এক নবজাতকের চিৎকার। বাড়ির কর্তা করুণাময় দাশগুপ্ত মেয়ের মুখ দেখে খুশি। এলাকায় মিষ্টি বিলিয়ে জানিয়ে দেন, তিনি কন্যা-সন্তানের পিতা হয়েছেন। করুণাময় দাশগুপ্ত নিজের স্ত্রী ইন্দিরা দাশগুপ্তের সঙ্গে আলাপ করে মেয়ের নাম রাখেন রমা দাশগুপ্ত। এ রমাই ওপার বাংলার সুচিত্রা সেন। শুধু বাবার বাড়িই নয়, তার শ্বশুরবাড়িও বাংলাদেশে। ঢাকার গে-ারিয়ায়। তাই দুই কুল থেকে সুচিত্রা আমাদেরও। মহানায়িকা সুচিত্রা সেন বলা হয় মহানায়ক উত্তম সেনের সূত্র ধরেই। ১৯৮০ সালের ২৪ জুলাই পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছিলেন মহানায়ক উত্তম কুমার। রাতভর তার মরদেহর পাশে আত্মীয়-পরিজনদের সঙ্গে ছিলেন দুই দশকের চলচ্চিত্র জীবনের সঙ্গী সুচিত্রা সেনও। সেদিন উত্তমকে শেষবারের মত বিদায় জানিয়েছিল এই পৃথিবী। অনেকটা সেই দিনটিতেই যেন বিদায় নিয়েছিলেন সুচিত্রা সেনও। উত্তমের শেষ শয্যার পাশ থেকে উঠে ফিরে যান কলকাতার বালিগঞ্জ সার্কুলার রোডের ২৪/৪/৪ ঠিকানার বাড়িতে। সেই যে আড়ালে গেলেন, তারপর ফেরেন মাত্র একবারই। ১৯৮২ রবীন্দ্রসদন প্রেক্ষাগৃহে সীমিত পরিসরে আয়োজিত স্বল্পসংখ্যক মানুষের সামনে কলকাতা ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে।

এর আগে শেষবার তাকে ক্যামেরার সামনে দেখা গিয়েছিল ১৯৭৮ সালে। ‘প্রণয় পাশা’ চলচ্চিত্রে তিনি শেষ অভিনয় করেছিলেন। জীবনের শেষদিন পর্যন্ত নিজেকে আড়ালে রেখে তিনি এখনো আমাদের কাছে রয়ে গেছেন সেই চিরচেনা রূপেই। আমাদের কাছে সুচিত্রার বার্ধক্য নেই, চামড়ায় বলিরেখা নেই, চুলে সাদা রঙ নেই। আর তাই চলে গেলেও আমাদের কাছে আজীবন রয়ে যাবেন সেই চির যৌবনা সুচিত্রা হয়ে।

শীর্ষ সংবাদ:
নির্দিষ্ট এলাকার বাইরে কল কারখানা নয়         তিন বন্দর দিয়ে ভারতে আটকে থাকা পেঁয়াজ আসা শুরু         দুর্নীতির বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান অব্যাহত রয়েছে ॥ কাদের         কওমি বড় হুজুর আল্লামা শফীকে চিরবিদায়         ওষুধ খাতের ব্যবসা রমরমা         করোনার নমুনা পরীক্ষা ১৮ লাখ ছাড়িয়েছে         করোনা সংক্রমণ বাড়ছে ॥ ফের লকডাউনে যাচ্ছে ইউরোপ         বিশেষ মহলের ইন্ধন-ভাসানচরে যাবে না রোহিঙ্গারা         তুলা উৎপাদনে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার         দগ্ধ আরও দুজনের মৃত্যু, তিতাসের গ্রেফতার ৮ জন দুদিনের রিমান্ডে         শিক্ষার ক্ষতি পোষাতে বিশেষ প্রকল্প আগামী মাস থেকেই ॥ করোনায় সব লণ্ডভণ্ড         আর কোন জিকে শামীম নয় ॥ গণপূর্তের দৃশ্যপট পাল্টেছে         ব্যক্তিগত ও পারিবারিক দ্বন্দ্বই অধিকাংশ খুনের কারণ         এ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার উন্নতি         বর্তমান সরকারের আমলে রেলপথে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে : রেলপথমন্ত্রী         ইউএনও ওয়াহিদা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে বদলী, স্বামী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে         সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল পরিচালকের রুম ঘেরাও         চিরনিদ্রায় শায়িত হেফাজত আমির আল্লামা আহমদ শফী         সবচেয়ে কঠিন সময় পার করছি ॥ মির্জা ফখরুল         করোনা ভাইরাস ॥ ভারতে একদিনে ১২৪৭ জনের মৃত্যু