শুক্রবার ২৬ আষাঢ় ১৪২৭, ১০ জুলাই ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

পেশার সঙ্গে পসরা সাজিয়ে

  • হাসনাত মোবারক

ধ্যানে আর জ্ঞানে, চিরায়ত প্রথার টানে ফিরে যাই আমরা সোাঁদা মাটির কোলে। যে মাটিতে রয়েছে গন্ধ। বছরে অন্তত একটিবার হলেও আমরা সন্ধান করি ইতিহাস আর ঐতিহ্যের। ডামাঢোল পিটিয়ে আসি। বাংলা বর্ষবরণকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন স্থানে বসেছে মেলা। নামে আর ধামে কতই না বাহারি আয়োজনে আয়োজিত এই বর্ষবরণ উৎসব। মেলা মানে অনেক, বহুল আর বিপুল মানুষের সমাগম। হৃদয়ে হৃদয়ে সখ্য বিনিময় শেষে ঘরে ফেরা। সামাজিক সম্পর্ককে আরও গভীর করে তোলে এই উৎসবগুলো। এখন কথা হলো, কী থাকে বৈশাখী উৎসবগুলো? এক কথা বলতে হয় কী থাকে না বৈশাখের গ্রামীণ মেলাগুলোতে। সাংসারিক প্রয়োজনের তাবৎ জিনিস নিয়ে পেশার সঙ্গে পসরা সাজিয়ে বসে থাকেন দোকানিরা। এসব মেলায় প্রদর্শনীর সঙ্গে সঙ্গে ক্রয়-বিক্রয়ের মাধ্যমও ব্যাপক। ঘর-গৃহস্থের প্রয়োজনীয় জিনিস সংগ্রহ করার মাধ্যমও এই মেলাগুলো। রাজধানী শহরের প্রাণকেন্দ্র বাংলাভাষা সংস্কৃতির লালনচত্বর নামে খ্যাত বাংলা একাডেমি এবং বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটিরশিল্প কর্পোরেশনের (বিসিক) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত হয়ে আসছে বৈশাখীমেলা। এ বছর মানে ১৪২৩ বঙ্গাব্দকে বরণ করে নেয়ার জন্য এই বৈশাখীমেলা বসেছে ২ বৈশাখ থেকে। আয়োজন চলবে ১০ বৈশাখ পর্যন্ত। কারুর সঙ্গে চারুর। রঙের সঙ্গে মন মিশিয়ে নিজেদের উৎপাদিত পণ্য নিয়ে হাজির হয়েছে ১৫০টি স্টল। ৫ বৈশাখ সন্ধ্যায় আত্মিক নিবৃত্তি মেটানোর প্রয়াসে বন্ধুস্থানীয় ইসমত শিল্পীর সঙ্গে উপস্থিত হই একাডেমি চত্বরে। দুপুরের তপ্ত রোদে কিছুটা হাঁপিয়ে উঠছি। বাংলা একডেমির নজরুল মঞ্চের বনিয়াদি বৃক্ষের সবুজ পাতার ছায়ায় জুড়িয়ে নিলাম কায়া। অনতিদূরে সাজানো হয়েছে লোক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মঞ্চ। নজরুল মঞ্চের উত্তর পাশেই সারি সারি দাাঁড়িয়ে আছে লোকজ শিল্পের পসরা। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আগত এসব স্টল ঘুরে ঘুরে দেখতে পাই হরেক রকমের তৈরিকৃত তৈজসপত্র। বাঁশ-বেতের গন্ধে মাতোয়ারা মনে ঘুরলাম, দেখলাম আয়োজিত এই মেলা। দক্ষ হাতের সেই নিপুণ কারিগরদের তৈরিকৃত জিনিসপাতি নেড়ে দেখলাম। লোকশিল্পের এই দোকানগুলোতে অধিকাংশ দোকানিরাই মহিলা। যে মহিলারা নিজ হাতে তৈরি করেছেন এসব জিনিসপাতি। এসব দোকানিদের সঙ্গে কথা হলো তাদের ভূত-ভবিষ্যত নিয়ে। খুব একটা সন্তোষজনক উত্তর পাওয়া গেল না। পেশা নিয়ে রয়েছে আশঙ্কা। ঝকমারি আয়োজনে কর্পোরেট হাউস তথা পুঁজিপতিদের তাবেদারিতে টিকে থাকবে কী এই গ্রামীণ লোকশিল্প।

সন্ধ্যা নামার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হলো লোকগানের আসর। যে আসরে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে আগত শিল্পীর সুরের মূর্ছনায় মূর্ত দর্শকবৃন্দ। এসব লোকগানের গভীরতম বার্তাটি ছুঁয়ে যায় শ্রোতার হৃদয়। হৃদয়ের গভীর ভাবাবেগ আঁকিবুঁকি করেছে এই লোকগানের আসরে। লোককথা আর লোকগল্পের সঙ্গে সঙ্গে গান গেয়ে চলছেন এই শিল্পীরা। সামাজিক রীতি, আচার বিশ্বাস সবই উপস্থাপন ছিল এই উৎসবে। বিস্ময়াভূত হয়েছি তাদের গান শুনে। শিল্পীদের প্রজ্ঞা আর মেধা দেখে দাগ কেটেছে মনে।

শীর্ষ সংবাদ:
চলে গেলেন দেশের প্রথম নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন         বিনিয়োগে রুট বদল ॥ করোনা মহামারীর ধাক্কা         দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান চলবে ॥ প্রধানমন্ত্রী         রিজেন্টের আইটি প্রধান গ্রেফতার, আটক সাহেদের ভায়রা         স্বাস্থ্য খাতে অনিয়মের বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান চলবে         এই প্রথম সুস্থতার হার শনাক্তের চেয়ে বেশি         পাপুল কুয়েতের নাগরিকত্ব পাননি         তিন মাসের জন্য রোমে নিষিদ্ধ বাংলাদেশী যাত্রী ও ফ্লাইট         দীর্ঘমেয়াদী বন্যার শঙ্কা         বর্ষায়ও ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ নগরবাসী         এখন ফখরুল ও পুরো বিএনপি হোম আইসোলেশনে         শিক্ষার্থীদের হাতে ডিজিটাল ডিভাইস ও ইন্টারনেট দিতে হবে         ডিসেম্বর পর্যন্ত সরকারী প্রতিষ্ঠানে সব ধরনের গাড়ি কেনা বন্ধ         আধিপত্য ও চাঁদাবাজির কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠায় রক্ত ঝরছে পাহাড়ে         কেন্দ্রীয় ব্যাংক গবর্নরের বয়সসীমা বাড়ল দু’বছর         চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণ ছাড়াল ১১ হাজার         ১৪ প্রতিষ্ঠানকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর         করোনা: শনাক্তের তুলনায় সুস্থ হওয়ার সংখ্যা বেড়েছে         ক্ষুধায় প্রতিদিন ১২ হাজার মানুষের মৃত্যু হবে : অক্সফাম         গরুর ধাক্কায় আন্তঃনগর কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস বিকল        
//--BID Records