ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ১৩ আগস্ট ২০২২, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

বিচার বিভাগ নিয়ে মন্তব্য

মির্জা ফখরুলের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে সুপ্রীমকোর্ট

প্রকাশিত: ০৫:৪২, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৬

মির্জা ফখরুলের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে সুপ্রীমকোর্ট

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সিলেটে এক আলোচনাসভায় বিচার বিভাগ নিয়ে মন্তব্য করায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছেন সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগ। আগামী ২২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে লিখিতভাবে এ ব্যাখ্যা আদালতে দাখিল করতে হবে। অন্যদিকে চাঞ্চল্যকর বিশ্বজিত দাস হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি এএইচএম কিবরিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন স্থগিত করেছেন সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগ। রাজধানীর শাহজাহানপুরে পাইপে পড়ে নিহত শিশু জিহাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগ ও হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চ এ আদেশগুলো প্রদান করেছেন। বিচার বিভাগ নিয়ে মন্তব্য করায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছেন সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগ। বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের আপীল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ এ আদেশ দেয়। তিনটি নাশকতার মামলায় ফখরুলের জামিনের বিষয়ে শুনানিকালে আদালত এ বিষয়ে ব্যাখ্যা চায়। প্রসঙ্গত, গত ৭ ফেব্রুয়ারি সরকার বিচার বিভাগকে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তিনি। মির্জা ফখরুল বলেন, ‘গণতন্ত্রের সব প্রতিষ্ঠানকে সুপরিকল্পিতভাবে ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে। দেশে গণতন্ত্র নেই, বিচার বিভাগেরও স্বাধীনতা নেই। জামিন স্থগিত ॥ চাঞ্চল্যকর বিশ্বজিত দাস হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি এএইচএম কিবরিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন স্থগিত করেছেন সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগ। বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের আপীল বেঞ্চ এ আদেশ দেয়। আদালতে আসামি কিবরিয়ার পক্ষে ছিলেন, সিনিয়র আইনজীবী ইউসুফ হোসেন হুমায়ূন, এএম আমিন উদ্দিন। অপরদিকে, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন এ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। ২০১৩ সালের ১৮ ডিসেম্বর বিচারিক আদালত বিশ্বজিত দাস হত্যা মামলার রায়ে আটজনকে ফাঁসি ও ১৩ জনকে যাবজ্জীবন কারাদ- দেয়া হয়। দ-াদেশ পাওয়া ২১ আসামির সবাই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মী। ফাঁসির দ-াদেশ পাওয়া আটজন আসামি হলেন, রফিকুল ইসলাম শাকিল, মাহফুজুর রহমান নাহিদ, এমদাদুল হক এমদাদ, জিএম রাশেদুজ্জামান শাওন, সাইফুল ইসলাম, কাইয়ুম মিঞা, রাজন তালুকদার ও মীর নূরে আলম লিমন। আর যাবজ্জীবন কারাদ- পেয়েছেন, গোলাম মোস্তফা, এএইচএম কিবরিয়া, ইউনুস আলী, তারিক বিন জোহর তমাল, আলাউদ্দিন, ওবায়দুর কাদের তাহসিন, ইমরান হোসেন, আজিজুর রহমান, আল-আমিন, রফিকুল ইসলাম, মনিরুল হকপাভেল, কামরুল হাসান ও মোশাররফ হোসেন। ২০১২ সালের ৯ ডিসেম্বর বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলের অবরোধের মধ্যে পুরান ঢাকার বাহাদুর শাহ পার্কের কাছে একটি মিছিল থেকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে বিশ্বজিতকে হত্যা করা হয়। এ মামলায় হাইকোর্ট কিবরিয়াকে ৩ ফেব্রুয়ারি জামিন দেয়। এ জামিন আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ চেম্বারে আবেদন করলে ১৪ ফেব্রুয়ারি জামিন স্থগিত করে পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠানো হয়। বৃহস্পতিবার আপীল বিভাগ চেম্বার বিচারপতির দেয়া স্থগিতাদেশ বহাল রাখেন। ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ ॥ রাজধানীর শাহজাহানপুরে পাইপে পড়ে নিহত শিশু জিহাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ এ নির্দেশ দেয়। তবে ক্ষতিপূরণের পরিমাণ উল্লেখ করেনি হাইকোর্ট। গত ২৬ ডিসেম্বর বিকেলে শাহজাহানপুরে রেলওয়ে মাঠে পরিত্যক্ত পানির পাম্পের পাইপে পড়ে যায় চার বছরের শিশু জিহাদ। ফায়ার সার্ভিসের ২৩ ঘণ্টার অভিযানে তাকে উদ্ধার করা যায়নি। পরে ২৭ ডিসেম্বর বেলা তিনটার দিকে একদল স্বেচ্ছাসেবী পাইপের ভেতর থেকে তার নিথর দেহ উদ্ধার করে। হাসপাতালে নেয়া হলে জিহাদকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। শিশুটিকে উদ্ধারে অবহেলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ২৮ ডিসেম্বর শিশু অধিকার রক্ষাবিষয়ক সংগঠন চিলড্রেনস চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের (সিসিবি ফাউন্ডেশন) পক্ষে আইনজীবী আবদুল হালিম একটি রিট আবেদন করেন।
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২