সোমবার ৪ মাঘ ১৪২৮, ১৭ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

সরকারী ক্রয়ে স্বচ্ছতা আনতে ই-জিপি সচেতনতা কার্যক্রম শুরু

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ সরকারী ক্রয়ে স্বচ্ছতা ও জাবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে ইলেকট্রনিক গবর্নমেন্ট প্রকিউরমেন্ট (ই-জিপি) সচেতনতা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে ৬৪টি জেলায় এ কার্যক্রম করা হবে। এর মধ্য দিয়ে ই-জিপির সুষ্ঠু বাস্তবায়ন ও প্রসারের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের সচেতনতা বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে। এ লক্ষ্যে জেলা পর্যায়ে একদিনের কর্মশালা মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে। প্রথম এ কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয় টাঙ্গাইল এলজিইডি সম্মেলন কক্ষে।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের আইএমই বিভাগের অধীন সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট টেকনিক্যাল ইউনিট (সিপিটিইউ) বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় পাবলিক প্রকিউরমেন্ট রিফর্ম প্রজেক্ট-২ (পিপিআরপি-২)-এর আওতায় দেশে ই-জিপি বাস্তবায়ন করছে। এর অংশ হিসেবে বাংলাদেশ সেন্টার ফর কমিউনিকেশন প্রোগ্রামসের সহায়তায় দেশের ৬৪টি জেলায় পর্যায়ক্রমে ই-জিপি সচেতনতামূলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতিটি কর্মশালায় জেলা পর্যায়ে সরকারী ক্রয়কারী সংস্থার প্রতিনিধি, টেন্ডারার ও মিডিয়ার প্রতিনিধিবৃন্দ এসব কর্মশালায় অংশগ্রহণ করবেন। সিপিটিইউ’র মনোনীত একজন রিসোর্স পার্সন এসব কর্মশালায় ই-জিপি বিষয়ক নানাবিধ প্রশ্নের উত্তর ও ব্যাখ্যা দেবেন।

সূত্র জানায়, সরকারী ক্রয় কার্যক্রমে দক্ষতা, স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা, সমআচরণ ও সুষ্ঠু প্রতিযোগিতা নিশ্চিতকল্পে এবং জনগণের অর্থের সর্বোত্তম ব্যবহার করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১১ সালের ২ জুন ন্যাশনাল ইলেকট্রনিক গর্বামেন্ট প্রকিউরমেন্ট (ই-জিপি) ওয়েব পোর্টাল উদ্বোধন করেন। এর মাধ্যমে সরকারী ক্রয়ে ই-টেন্ডারিং ব্যবস্থা চালু হয়। ওই বছরের ২৫ জানুয়ারি জাতীয় ই-জিপি গাইডলাইন জারি করা হয়। পিপিআরপি-২ প্রকল্পের আওতায় প্রাথমিক পর্যায়ে সিপিটিইউ চারটি টার্গেট এজেন্সিতে (স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর, সড়ক ও জনপথ অধিদফতর, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড এবং বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড ) পাইলট ভিত্তিতে ই-জিপি ব্যবস্থা প্রবর্তন করা হয়।

পরবর্তীতে অন্যান্য সংস্থায় ই-জিপি পোর্টালের মাধ্যমে ই-জিপি কার্যক্রম চালু করা হয়। সরকারী ক্রয় কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য গত ২৬ জুলাই পর্যন্ত চারটি টার্গেট এজেন্সিসহ ২৪টি মন্ত্রণালয়ের ৯৮টি সংস্থার মোট ১ হাজার ৯৪৯টি ক্রয়কারী ই-জিপি সিস্টেমে অন্তর্ভুক্ত হয়ে ক্রয়কার্য পরিচালনা করছে। ইতোমধ্যে এই সিস্টেমের মাধ্যমে মোট ২৬ হাজার ৭৮৭টি ই-টেন্ডার/প্রস্তাব আহ্বান করা হয়েছে। ই-টেন্ডারিংয়ের জন্য মোট ১৫ হাজার ৬৪৯ জন টেন্ডারার ই-জিপি সিস্টেমে নিবন্ধিত হয়েছে। ই-জিপি সিস্টেমে দরপত্র জামানত, কার্য সম্পাদন, জামানতসহ রেজিস্ট্রেশন ফি, নবায়ন ফি ও টেন্ডার ডকুমেন্ট ফি গ্রহণের জন্য ৩৯টি ব্যাংকের সঙ্গে এমওইউ স্বাক্ষর করা হয়েছে এবং মোট ১ হাজার ৭১৫টি শাখার মাধ্যমে এ সেবা প্রদান করা হচ্ছে।

শীর্ষ সংবাদ:
সংক্রমণের হার ২০ শতাংশ ছাড়িয়েছে : স্বাস্থ্য মহাপরিচালক         স্বাস্থ্যবিধি মানাতে ‘অ্যাকশনে’ যাবে সরকার         না’গঞ্জে নেতিবাচক রাজনীতির ভরাডুবি হয়েছে ॥ কাদের         সিইসি ও ইসি নিয়োগ আইন মন্ত্রিসভায় অনুমোদন         ৫০ বছর হলেই বুস্টার ডোজ ॥ স্বাস্থ্যমন্ত্রী         ‘নাসিক নির্বাচন ইভিএমে শান্তিপূর্ণভাবে হয়েছে’         হল ছাড়বেন না শাবি শিক্ষার্থীরা, ভিসির পদত্যাগ দাবিতে উত্তাল ক্যাম্পাস         রাষ্ট্রপতিকে ধন্যবাদ দিতে সংসদে প্রস্তাব         দেশে ৫৫ জনের দেহে ওমিক্রন শনাক্ত         প্রথম ডোজ নিয়েছে ৭৭ লাখ শিক্ষার্থী ॥ নওফেল         মহামারীর মধ্যে বিশ্বের শীর্ষ ১০ ধনীর সম্পদ বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে ॥ অক্সফাম         আবারও করোনায় আক্রান্ত আসাদুজ্জামান নূর         আজ সুপ্রিম কোর্টের বিচারিক কার্যক্রম বন্ধ         শৈত্য প্রবাহ থাকবে আরও দুই-একদিন         কিংবদন্তি কত্থক শিল্পী বিরজু মহারাজ আর নেই         উখিয়া-টেকনাফে হাইওয়ে পুলিশের ঘুষ বাণিজ্য, রোহিঙ্গাসহ চালকদের হাতে হাতে টোকেন         মালির ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম বাউবাকার আর নেই         ফের ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে উত্তর কোরিয়া, জানাল দক্ষিণ কোরিয়া         পদত্যাগ করলেন শাবির সেই প্রভোস্ট