৩১ মার্চ ২০২০, ১৭ চৈত্র ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 

২০ বছর পর আবার শুরু হচ্ছে শেখ রাসেল জাতীয় ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতা

প্রকাশিত : ১২ জানুয়ারী ২০২০, ০৮:৪২ পি. এম.
২০ বছর পর আবার শুরু হচ্ছে শেখ রাসেল জাতীয় ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের তত্ত্বাবধানে এবং শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিষোর পরিষদের ব্যবস্থাপনায় আগামী ১৪ জানুয়ারি দুপুর সাড়ে ১২টায় ঢাকার পল্টনের শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ ইনডোর স্টেডিয়ামে শুরু হতে যাচ্ছে শেখ রাসেল জাতীয় ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতায় অনুর্ধ-১৪ বছরের স্কুলের শিক্ষার্থীরা (সারা দেশের ৬০ স্কুলের প্রায় দুই শতাধিক শাটলার) অংশ নিচ্ছে টুর্নামেন্টে।

দেশের ব্যাডমিন্টনকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে উন্নীত করা এবং পাইপলাইনে দক্ষ শাটলার তৈরির জন্যই এই প্রতিযোগিতা এখন থেকে নিয়মিত আয়োজন করতে চান আয়োজকরা। প্রায় দুই দশক পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জাতীয় স্কুল পর্যায়ের এই ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতা। তবে মৃতপ্রায় এ আসরটি শুরুর জন্য ফেডারেশন নয়, উদ্যেগে নিয়েছে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ।

প্রতিযোগিতায় মোট ৪টি ইভেন্টে অনুষ্ঠিত হবে। এগুলো হলো : বালক একক, বালিকা একক, বালক দ্বৈত ও বালিকা দ্বৈত। এন্ট্রি ফি হচ্ছে বালক ও বালিকা এককে ২০০ টাকা, বালক ও বালিকা দ্বৈতে ৩০০ টাকা করে।

প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করবেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। বিশেষ অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক হারুনুর রশিদ, বাংলাদেশ ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের সভাপতি আব্দুল মালেক। অতিথি হিসেবে থাকবেন ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন বাহার। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করবেন শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদের মহাসচিব মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরী, এমপি।

আসন্ন এ টুর্নামেন্টকে সামনে রেখে রবিবার ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য তুলে ধরেন টুর্নামেন্ট কমিটির সচিব ওয়াহিদুজ্জামান রাজু। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশনের সিইও মশিউর রহমান, মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান শাপলা আক্তার, সাবেক জাতীয় ব্যাডমিন্টন চ্যাম্পিয়ন গুনগুন রহমান দোলা, স্পন্সর প্রতিষ্ঠান লিডসাসের সিইও সাদিক।

টুর্নামেন্ট কমিটির সচিব রাজু জানান, তিন দিনব্যাপী আমাদের এ আসর চলবে। ঢাকার বাইরের অনেকগুলো স্কুল এন্ট্রি করেছে। আশার চেয়ে বেশি সাড়া পেয়েছি। ফেডারেশন থেকে আমাদের টেকনিক্যাল সাপোর্ট দিচ্ছে। এছাড়াও কয়েকটি স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলোচনা চলছে। আশা করি পেয়ে যাবো। স্পন্সর না পেলেও আমরা আমাদের এ টুর্নামেন্ট শেষ করবো। কারণ আমাদের লক্ষ্য এ আসর থেকে প্রতিভাবান শাটলার খুঁজে বের করা। আমাদের নিজস্ব কোচদের মাধ্যমে এখান থেকে ২০ ক্ষুদে শাটলারকে বাছাই করবো। বাছাইকৃতদের নিয়ে স্কুল বন্ধকালীন সময়ে বছরে তিনমাস ক্যাম্প করবো। এখান থেকে যদি একজন শাটলারও বের করে আনতে পারি, তাহলে আমাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য পূরণ হবে।

ফেডারেশনের সিইও মশিউর রহমান বলেন, আমরা শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদকে টেকনিক্যাল সাপোর্ট দিচ্ছি। আর আর্থিকভাবে কোন সহযোগিতা করা যায় কি না, সেটা নিয়ে আলোচনা করবো।

প্রকাশিত : ১২ জানুয়ারী ২০২০, ০৮:৪২ পি. এম.

১২/০১/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলা



শীর্ষ সংবাদ: