২১ জানুয়ারী ২০২০, ৮ মাঘ ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

গাজীপুরে সড়ক-মহাসড়কে নেই বাস-ট্রাক-লরি

প্রকাশিত : ২০ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:০৬ পি. এম.
গাজীপুরে সড়ক-মহাসড়কে নেই বাস-ট্রাক-লরি

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর ॥ সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে গাজীপুরে আজ বুধবার সড়ক-মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস, ট্রাক, লরি ও কাভার্ডভ্যান চলছে না। তাদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেছে ট্রাক ও লোকাল বাস সার্ভিসও। কিছু পরিবহণ শ্রমিক কয়েকটি বাসের গ্লাস ভাংচুর এবং চালকদের মুখে পোড়া মবিল ও কালি মেখে দেয়ার খবর পাওয়া গেছে। সড়কে যানবাহন না থাকায় যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

মাওনা হ্ওায়ে থানার ওসি মো. আবুল হাসেম জানান, বুধবার ভোর ৬টা থেকেই ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে দূরপাল্লারসহ বাস, ট্রাক ও লরি চলাচল কমতে থাকে। সকাল ৮টার পর থেকে ওই মহাসড়কে সকল পরিবহন বন্ধ হয়ে যায়। তবে গুটি কয়েক লোকাল বাস চলতে দেখা গেছে।

সালনা হাইওয়ে থানার ওসি মো. মজিবুর রহমানও একই কথা বলেন। তিনি বলেন, ঢাকা-ঢাঙ্গাইল মহাসড়কে গাজীপুরের অংশে কোন দূরপাল্লার বাস, ট্রাক, লরি চলছে না। লোকাল বাসও খুব কম। সড়কে বাস না থাকায় নারী-শিশু ও বৃদ্ধসহ যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। গাড়ির জন্য বিভিন্নস্থানে লোকজনকে গাড়ির জন্য দীর্ঘসময় অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। গাড়ি না পেয়ে অনেকেই পায়ে হেটে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে যাচ্ছেন।

টাঙ্গাইলের গোড়াই হাইওয়ে থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান বলেন, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে মাঝে মধ্যে দূরপাল্লার গাড়ি চলতে দেখা গেলেও তার পরিমান কম। ২৩%-৩০% গাড়ি চলতে দেখা গেছে।

গাজীপুর জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি সুলতান আহমেদ সরকার জানান, সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে গাজীপুর হয়ে উত্তরাঞ্চলের দুরপাল্লার কোন যানবাহন চলাচল করছে না। সকাল থেকেই গাজীপুর হয়ে ঢাকার সঙ্গে চলাচলকারী শেরপুর, ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, টাঙ্গাইল, রংপুর, রাজশাহীসহ বিভিন্ন রুটের দুরপাল্লার বাস ও ট্রাক আসা যাওয়া করছে না। তবে সড়কে কিছু সংখ্যক রিক্সা-অটোরিক্সাসহ ছোট যানবাহন চলাচল করছে।

গাজীপুর জেলা ট্রাক-পিক আপ ও ট্যাংক লরি ড্রাইভার্স ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মোতালেব জানান, টঙ্গী ট্রাক স্ট্যান্ড থেকে কোন ট্রাক-লরি-কাভার্ডভ্যান বের হচ্ছে না। আমাদের শ্রমিকরা নতুন আইনের শাস্তি কমানোর দাবিতে কর্মরিতি পালন করছে এবং তারা রাস্তায় রয়েছে। তবে বুধবার আমাদের দাবির বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে এক বৈঠকে যোগ দেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

গাজীপুর সদরের ভাওয়াল মির্জাপুর কলেজের সহকারি অধ্যাপক আবুল হোসেন জানান, রাস্তায় কোন দূরপাল্লার গাড়ি চলছে না। সড়ক-মহাসড়কে লোকাল বাসও ছিল কম। সকালে তিনি জেলা শহর থেকে কলেজে যাওয়ার পথে অনেক কষ্টে কয়েক দফা অটো ও লেগুনা পাল্টিয়ে দ্বিগুন ভাড়ায় কলেজে পৌঁছেছেন।

গাজীপুর থেকে ঢাকার মিরপুর রুটে চলাচলকারী বসুমতি পরিবহনের এক্সিকিউটিভ মো. আব্দুল আউয়াল জানান, ট্রাক-লরি শ্রমিকরা রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির কারণে তাদের বাসও চলছে না। চলতে গেলে চারকদের তারা পোড়া মবিল ও কালি মেখে দিচ্ছে।

গাজীপুর থেকে ঢাকার আজিমপুর রুটে চলাচলকারী পরিচালক মো. রিপন জানান, সকালে আমাদের বাস রাস্তায় চলতে শুরু করলে মহানগরের তারগাছ, বড়বাড়ি, কুনিয়া এবং চেরেগ আলী এলাকায় ট্রাক, লরি ছাড়াও বলাকা, ছালছাবিল ও অনাবিল পরিবহনের বাস শ্রমিকরা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে এবং ভিআইপি পরিবহনের ছয়টি গাড়িতে ভাংচুর করেছে। এর পর থেকে তাদের বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।

গাজীপুর মহানগর ট্রাফিক পুলিশের সহকারি কমিশনার থোয়াই অং প্রু মারমা জানান, পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রাখতে টঙ্গী এলাকার সড়ক থেকে শ্রমিকদের বুঝিয়ে সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে।

প্রকাশিত : ২০ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:০৬ পি. এম.

২০/১১/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: