৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

জাবিতে ভর্তিচ্ছুদের সহায়তায় ছাত্রলীগের অনন্য উদ্যোগ

প্রকাশিত : ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৪:০৪ পি. এম.
জাবিতে ভর্তিচ্ছুদের সহায়তায় ছাত্রলীগের অনন্য উদ্যোগ

জাবি সংবাদদাতা ॥ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষায় ভর্তিচ্ছুদের সহায়তায় কাজ করছে জাবি শাখা ছাত্রলীগের প্রায় ৩৫০ জন নেতাকর্মী।

শাখা ছাত্রলীগের একাধিক নেতা জানান, প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত বিভিন্ন স্থান থেকে আগত শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা কেন্দ্র সম্পর্কে তথ্য দিয়ে সহায়তা করা ও কেন্দ্রে পৌছে দেয়ার দায়িত্ব পালন করছে ছাত্রলীগ। এমনকি কোনো পরীক্ষার্থী যেন হয়রানি ও প্রতারণার শিকার না হয় সেদিকেও আমরা নজর রাখছি।

তারা আরো জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা শিক্ষার্থীদের জন্য হলে আবাসনের ব্যবস্থাও করছে জাবি শাখা ছাত্রলীগ। ভর্তিচ্ছুদের সহায়তায় জাবি শাখা ছাত্রলীগ যেসব উদ্যোগ নিয়েছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- জয় বাংলা ফ্রি বাইক সার্ভিস, তথ্য সহায়তা কেন্দ্র স্থাপন, পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনে সুপেয় পানির ব্যবস্থা, প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা, নিরাপত্তা ও ট্রাফিক শৃঙ্খলা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ, অভিভাবক এবং ভর্তিচ্ছুদের বসার ব্যবস্থা, সার্বক্ষণিক যোগাযোগের জন্য রয়েছে হটলাইন।

তবে ছাত্রলীগের সবচেয়ে প্রশংসনীয় উদ্যোগটি হলো দেরিতে আসা শিক্ষার্থীদের দ্রুত কেন্দ্রে পৌঁছে দেয়ার জন্য জয় বাংলা ফ্রি বাইক সার্ভিস। সার্ভিসটির মাধ্যমে উপকৃত হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন একাধিক পরীক্ষার্থী এবং অভিভাবক।

এ ব্যাপারে শাখা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক শামিন ইয়াসির শাফিন বলেন, ‘ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন ঢাকা আরিচা মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। ফলে অনেক ভর্তিচ্ছুই সময় মতো কেন্দ্রে উপস্থিত হতে পারেন না। তাদের কথা বিবেচনা করেই ছাত্রলীগ এই সার্ভিসটি চালু করেছে। আমি নিজেও বাইক সার্ভিস দিচ্ছি। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের উপকার করতে পেরে ভালো লাগছে।’

এমন উদ্যোগ ছাত্র বান্ধব উদ্যোগ সম্পর্কে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি জুয়েল রানা বলেন,“ছাত্রলীগ অতীতেও সাধারণ শিক্ষার্থীদের সমস্যা নিরসনে কাজ করেছে এবং ভবিষ্যতেও এই কাজের ধারা অব্যাহত থাকবে। যেসব ভর্তিচ্ছু কোনো কারণে সময় মতো পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছাতে পারেনি তাদেরকে বিনামূল্যে বাইকের মাধ্যমে কেন্দ্রে পৌঁছে দিচ্ছে ছাত্রলীগকর্মীরা। এতে অনেক পরীক্ষার্থীই উপকৃত হচ্ছেন। যারা স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে এই কাজটি করছেন আমি তাদের সাধুবাদ জানাই।’

২২ সেপ্টেম্বর শুরু হওয়া এই ভর্তি পরীক্ষা শেষ হবে ১ অক্টোবর। ভর্তি পরীক্ষাতে এখনও পর্যন্ত কোনো অনিয়ম, জালিয়াতি কিংবা বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটেনি।

প্রকাশিত : ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৪:০৪ পি. এম.

৩০/০৯/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: