ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

রিবাকিনার আরেকটি স্বপ্নপূরণ

জিএম মোস্তফা

প্রকাশিত: ০০:১১, ২৪ এপ্রিল ২০২৪

রিবাকিনার আরেকটি স্বপ্নপূরণ

এলিনা রিবাকিনা

স্টুটগার্ট ওপেনেও বাজিমাত করলেন এলিনা রিবাকিনা। মাত্র ৬৯ মিনিটেই প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দিলেন কাজাখস্তানের এই তারকা। ফাইনালে মার্তা কোস্তিউককে হারিয়ে স্টুটগার্ট ওপেনের নতুন রানী হলেন রিবাকিনা। শিরোপার লড়াইয়ে ২৪ বছর বয়সী এই তারকা ৬-২ এবং ৬-২ গেমে রীতিমতো উড়িয়েই দেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের ২৭ নম্বরে থাকা মার্তা কোস্তিউককে। সেইসঙ্গে চলতি মৌসুমে তৃতীয় শিরোপা জয়ের নজির গড়লেন তিনি। 
সেইসঙ্গে তার দীর্ঘদিনের স্বপ্নও বাস্তবে রূপান্তরিত করলেন এলিনা রিবাকিনা। কেননা, স্টুটগার্ট ওপেনে চ্যাম্পিয়ন হলে ট্রফির পাশাপাশি একটি গাড়িও উপহার দেওয়া হয়, যা সত্যিই অনন্য এবং চমকপ্রদ। আর স্বপ্নের এই গাড়ি জয়ের নেশাটা সেই তরুণ বয়স থেকেই মনে জেগেছিল তার। দীর্ঘ অপেক্ষার পর এবার সেই স্বপ্নপূরণ হলো রিবাকিনার।

যে কারণে রাশিয়ান বংশোদ্ভূত এই তারকার উচ্ছ্বাসটাও অনেক বেশি। এ প্রসঙ্গে স্টুটগার্টের শিরোপা উঁচিয়ে ধরার পর তিনি বলেন, ‘আমি এটা খুব তরুণ বয়স থেকেই জিততে চেয়েছিলাম। বিশেষ করে আমার বয়স যখন ১৭।’ এমন পছন্দের গাড়ি পাওয়ার ইচ্ছেটা কেন জেগেছিল তার সেই কারণটাও জানালেন রিবাকিনা, ‘আমরা আসলে অনেক জায়গায় ভ্রমণে যাই। বিশেষ করে আমেরিকার কথা আলাদাভাবেই বলা যায়। যেখানে আপনি অবশ্যই একটা গাড়ি সঙ্গে করে নিয়ে যেতে চাইবেন।

এক্ষেত্রে ইন্ডিয়ান ওয়েলসে সত্যিই একটা গাড়ির প্রয়োজন পড়ে। যেখানে আপনি কারও উপরই নির্ভর করতে চাইবেন না। কোথাও একাকী যাওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই একটা গাড়ির প্রয়োজন। তাই আমি মনে করি এই গাড়ি এখন থেকে আমাকে সহায়তা করবে।’
গত কয়েক মৌসুম ধরেই বিশ্ব টেনিসের আলোচিত নাম এলিনা রিবাকিনা। চলতি বছরটাও দুর্দান্ত শুরু করেন তিনি। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহেই ব্রিসবেন ইন্টারন্যাশনাল টেনিস টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন হন। এরপর ফেব্রুয়ারিতে আবুধাবী ওপেনেও ট্রফি উঁচিয়ে ধরেন তিনি। এবার নিজের জাত চেনালেন স্টুটগার্টে। যেখানে বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ সারির প্রায় সব খেলোয়াড়ই প্রতিনিধিত্ব করেন।

তবে বাঘা বাঘা খেলোয়াড়দের হতাশায় ডুবিয়ে শেষের হাসিটা হাসেন রিবাকিনা। রাশিয়ান বংশোদ্ভূত কাজাখস্তানের এই তারকা স্টুটগার্টে শুরু থেকেই দাপট দেখান। প্রথম ম্যাচে ভেরোনিকা কুদেরমেতোভাকে হারিয়ে মিশন শুরু করেন। এরপর ইতালির জেসমিন পাওলিনিকে বিদায় করে জায়গা করে নেন সেমিফাইনালে। শেষ চারেই অগ্নি-পরীক্ষার সম্মুখীন হন ২৪ বছর বয়সী এই তারকা।

যেখানে তার সামনে বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন টানা দুইবারের চ্যাম্পিয়ন ইগা সুইয়াটেক। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পোলিশ তরুণীকে হারিয়েই ফাইনালে জায়গা করে নেন রিবাকিনা।
সেই সঙ্গে বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থাকা খেলোয়াড়ের বিপক্ষে পঞ্চম জয় তুলে নিলেন কাজাখস্তানের এই তারকা। যার সবগুলোই এসেছে ২০২৩ সাল থেকে। এর চার জয়ই আবার সুইয়াটেকের বিপক্ষে। বাকী ম্যাচে সাবেক নাম্বার ওয়ান তারকা এরিনা সাবালেঙ্কাকে হারান রিবাকিনা। চলতি বছরে একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে নাম্বার ওয়ান এবং দুইয়ে থাকা খেলোয়াড়কে হারানোর রেকর্ডও এখন তার দখলে। সুইয়াটেককে হারিয়েই স্টুটগার্টের সেমির বাধা অতিক্রম করেন কাজাখ তারকা।

ফাইনালে পাত্তা দিলেন না ইউক্রেনের মাতা কোস্তিউককেও। একপেশে খেলেই গুরুত্বপূর্ণ এই আসরের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার নজির গড়লেন তিনি। চলতি মৌসুমে পঞ্চম ফাইনাল খেলে তৃতীয়বার ট্রফি উঁচিয়ে ধরলেন কাজাখস্তানের এই তারকা। চলতি মৌসুমে ট্যুর পর্যায়ে এটা রিবাকিনার ২৬তম জয়। এ বছরে যা কোনো খেলোয়াড়ের সর্বোচ্চ জয়ের রেকর্ড। ইউক্রেনের কোস্তিউককে হারিয়ে চলতি বছরের তৃতীয় আর ক্যারিয়ারের অষ্টম শিরোপা উঁচিয়ে ধরলেন রিবাকিনা।

ক্লে কোর্টেও এটা তার তৃতীয় ট্রফি। ২০১৯ সালে বুখারেস্টে প্রথম ক্লে কোর্টের শিরোপা জয়ের পর গত বছর রোম ওপেনেও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার নজির গড়েছিলেন তিনি। দীর্ঘ প্রায় এক বছর পর আবারও কোন ক্লে কোর্টের চ্যাম্পিয়ন হলেন উইম্বলডনের সাবেক চ্যাম্পিয়ন।
চলতি বছরে তিনটি শিরোপা, পাঁচটি টুর্নামেন্টের ফাইনাল এবং রেকর্ড ২৬ জয়ের পরিসংখ্যানে দারুণ গর্বিত রিবাকিনা। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এসব পরিসংখ্যান দেখে আমি সত্যিই খুব আনন্দিত। তবে সবচেয়ে যে ব্যাপারটাতে আমার আনন্দের মাত্রাটা অনেক বেশি সেটা হলো আমি সব ধরনের কোর্টেই খেলতে পারি। আমার কাছে এটাই আসলে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

আর এটাই আপানাকে শীর্ষ সারির খেলোয়াড় হওয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। আমি খুব সুস্পষ্টভাবেই বলতে চাই যে, ক্লে কোর্টে খেলাটা আমার অধিক পছন্দের নয়। কেননা, এই কোর্ট খুব সেøা। কিন্তু দিন শেষে এখানেও আমি খুব ভালো খেলি, ভালো পারফর্ম করি।’ 
স্টুটগার্টের শিরোপা জয়ের পর রিবাকিনার নতুন মিশন মাদ্রিদ ওপেন। আগামী শুক্রবারই স্পেনের রাজধানীর এই টুর্নামেন্টের লড়াইয়ে নামবেন তিনি। এদিকে, মার্তা কোস্তিউকের পরের মিশনও মাদ্রিদে। স্টুটগার্টের ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নিয়েই মাদ্রিদের কোর্টে নামবেন তিনি। তবে শিরোপা জিততে না পারলেও স্টুটগার্টের ফাইনালে উঠেই ইতিহাস গড়েছিলেন মার্তা কোস্তিউক। ইউক্রেনের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে এই টুর্নামেন্টের ফাইনালে ওঠার রেকর্ড গড়েন তিনি। যেখানে তার আগে সেরা ফলাফল ছিল এলিনা সিতলিনার সেমিফাইনাল।

×