ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

দাবি খালেদ মাহমুদ সুজনের

‘মুস্তাফিজের থেকে ভারতের তরুণরা শিখবে’

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০১:০০, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

‘মুস্তাফিজের থেকে ভারতের তরুণরা শিখবে’

খালেদ মাহমুদ সুজন

অন্য দেশের ক্রিকেটাররা জাতীয় দলের খেলা ছেড়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) খেলছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে পাশ কাটিয়ে এই আসর খেলার ঘটনা এখন সব দেশের ক্রিকেটারদের মধ্যেই দেখা যাচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমানকে জিম্বাবুয়ের মতো দুর্বলতর দলের বিপক্ষে সিরিজ খেলার জন্য আগেভাগেই দেশে ফিরিয়ে আনছে।

বিষয়টি নিয়ে অনেকেই সমালোচনা করছেন। অধিকাংশই মনে করছেন মুস্তাফিজ টি২০ বিশ^কাপের আগে পুরো সময় আইপিএল খেললেই ভালো হতো। কিন্তু বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বুধবার দাবি করেন, আইপিএল থেকে মুস্তাফিজের কিছুই শেখার নেই। কিন্তু তার এই বক্তব্যে দ্বিমত করেছেন আরেক পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন। তার দাবি সবখানেই শেখার আছে এবং মুস্তাফিজের কাছ থেকেও ভারতের তরুণরা কাটার শিখবে। তবে সুজন মনে করেন সবার আগে দেশ এবং বাংলাদেশ দলে মুস্তাফিজের মতো দশজন নেই সেভাবেই চিন্তা করতে হবে।
মুস্তাফিজ দুর্দান্ত ফর্মে আছেন এবার আইপিএলে। তবে সর্বশেষ ২/৩ বছরে টি২০ ফরম্যাটে আহামরি কিছুই করতে পারেননি এই বাঁহাতি পেসার। এরপরও অপরিহার্য সদস্য তিনি বাংলাদেশ দলের। আর এখন আইপিএল পারফর্ম্যান্সে দুর্দান্ত মুস্তাফিজকে নিয়ে জালাল দাবি করেছেন তার শেখার কিছুই নেই। এ বিষয়ে বিসিবি ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের ভাইস চেয়ারম্যান সুজন বৃহস্পতিবার বলেছেন, ‘দেশ তো সবার আগে। এটা আমি সবসময়ই বলি।

দেশকে প্রতিনিধিত্ব করার চেয়ে আনন্দ কোনো কিছুতেই নেই। তবে পরিস্থিতি যেভাবে চায়, উনারা যেভাবে চিন্তা করেছেন... আমি আসলে জাতীয় দলের সঙ্গে ওভাবে নেই আসলে। অপারেশন্সের ভাইস চেয়ারম্যান হলেও আমি আবাহনীর খেলার কারণে সেভাবে যাচ্ছি না মিটিংগুলোতে। আমি জানিই না আসলে। অবশ্যই জালাল ভাই চিন্তা করেই বক্তব্যটা দিয়েছেন। উনি ক্রিকেট পরিচালনার অভিভাবক। উনি যেটা বলেছেন আমাকে ওটাই বলে নিতে হবে যে ওনার কথাই ঠিক।’ কিন্তু সুজন মনে করেন যে কোনো ক্রিকেটারেরই যেকোনো পর্যায়ে শেখার অনেক কিছু থাকে।

আবার মুস্তাফিজের কাছ থেকেও ভারতীয় বোলারদের শেখার আছে। এ বিষয়ে সুজন বলেছেন, ‘শেখার সবখানেই আছে। প্রিমিয়ার লিগেও শেখার আছে। আজকে একটা দৃশ্যপট থেকেও শেখার থাকতে পারে। সেটা কোনো সমস্যা নেই। হয়তোবা উনি এটাকে ওইভাবে বিবেচনা করেননি। উনি বলেছেন মুস্তাফিজ এত বছর ধরে ওখানে খেলছে। মুস্তাফিজ এখন বিশ্ব ক্রিকেটে অনেক বড় নাম। জালাল ভাই এই দিক থেকেই কথাটা বলেছেন যে মুস্তাফিজ অভিজ্ঞ অনেক। ভারতের অনেক তরুণ বোলাররা ওর থেকে কাটার বা কিছু শিখতে পারে। এভাবেই কথাটা বলেছে।’

নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকার অনেক ক্রিকেটারই জাতীয় দলের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট না খেলে আইপিএল খেলছেন। এমন ঘটনা অহরহই দেখা যাচ্ছে। কিন্তু মুস্তাফিজকে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি২০ সিরিজের জন্য দেশে ফিরিয়ে আনছে বাংলাদেশ। এ বিষয়ে সুজন বলেছেন, ‘আমি মনে করি, দেশ সবার আগে। এটা মাথায় নিতে হবে। মুস্তাফিজ যদি (পুরো আসর) আইপিএল খেলতে পারত আমিও খুশি হতাম। দেশের খেলা না থাকলে আর সমস্যা হতো না। অনেকেই বলবে নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররাও আইপিএল খেলছে।

আমাদের দেশে তো দশটা মুস্তাফিজ নেই আসলে। সবচেয়ে বড় কথা এটাই। এটাও চিন্তা করতে হবে।’ ২০২১ সালের আইপিএল আসরে পুরো সময় খেলেছিলেন মুস্তাফিজ। তারপর টি২০ বিশ^কাপ শুরুর মাত্র দু’দিন আগে দলের সঙ্গে যোগ দেন। পরে এ বাঁহাতি পেসারকে আর খুঁজেই পাওয়া যায়নি। কারণ প্রতি ম্যাচে ৪ ওভার করে বোলিং হলেও টানা খেলার ধকল প্রভাব ফেরে শরীরের ওপর। তাই মুস্তাফিজের কাছ থেকে শতভাগ পেতেই সতর্কতা হিসেবে তাকে আগেভাগেই ওয়ার্কলোড থেকে মুক্তি দিতে চেয়েছে বিসিবি। তার ফিটনেস ভালো পর্যায়ে রাখার জন্যই সুযোগ থাকলেও মুস্তাফিজকে আইপিএল পুরো সময় খেলতে দেওয়া হচ্ছেনা।

×