ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ০৩ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

রিয়ালের চার গোল জিরোনার জালে

​​​​​​​স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ২২:৫২, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

রিয়ালের চার গোল জিরোনার জালে

রিয়াল মাদ্রিদের বেলিংহামকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন সতীর্থরা

এবারের স্প্যানিশ লা লিগায় শুরু থেকেই চমক দেখিয়ে চলেছে জিরোনা। রিয়াল মাদ্রিদ বার্সিলোনাকে টপকে শিরোপার স্বপ্নও দেখা শুরু করে তারা! লিগের মাঝপথ পেরুনোর পরও শিরোপা লড়াইয়ে থেকে তারা স্বপ্ন আরও বেগবান করে। কিন্তু ২৪তম রাউন্ডের ম্যাচে এসে বাস্তবতা বুঝতে পেরেছে জিরোনা। এবার পরাশক্তি রিয়াল মাদ্রিদের কাছে রীতিমতো নাস্তানাবুদ হয়েছে তারা। অর্থাৎ গ্যালাক্টিকোদের কাছে জিরোনা হেরে গেছে - গোলে।

শনিবার রাতে সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে রিয়ালের জয়ের নায়ক ইংল্যান্ডের তারকা অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার জুড বেলিংহাম। তিনি করেন জোড়া গোল। ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ভিনিসিয়াস জুনিয়র এক গোলের সঙ্গে আরও দুই গোলে সহযোগিতা করেন। রিয়ালের আরেক গোল করেন অপর ব্রাজিলিয়ান রডরিগো। ৯০+ মিনিটে জোসেলু পেনাল্টি মিস না করলে জিরোনার হারের লজ্জা আরও বড় হতো। এই জয়ে ২৪ ম্যাচে ৬১ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান আরও মজবুত করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। সমান ম্যাচে ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে আগের দুই নম্বরেই আছে জিরোনা। রবিবার রাতের ম্যাচের আগে ২৩ খেলায় ৫০ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বার্সিলোনা।

নেই কোনো স্বীকৃত সেন্টার ব্যাক। এরপরও কোনো সমস্যাই হয়নি রিয়ালের! আক্রমণভাগের দাপুটে পারফরম্যান্সে তারা উড়িয়ে দিয়েছে জিরোনাকে। এমন হারের পর দলটির কোচ মিচেল সানচেজ মুনিয়জ রিয়ালের শ্রেষ্ঠত্ব মেনে নিয়েছেন। ম্যাচ শেষে মিচেল বলেন, আমরা চেষ্টা করেছি রিয়ালের সামনে দাঁড়াতে। তবে মাদ্রিদ যখন নিজেদের সেরা ছন্দে থাকে তখন তাদের সামনে দাঁড়ানো যায় না। আমার ছেলেরা নিজেদের সবটুকু উজাড় করে দিয়েছে। কিন্তু মুখোমুখি দ্বৈরথগুলোয় তারা ছিল সেরা। ওদের সবাই দারুণ খেলেছে। কামাভিঙ্গা, ভিনিসিয়াস, বেলিংহাম  সবাই। আমরা ওই পর্যায়ের নই। স্পেনের প্রতিষ্ঠিত ফুটবল শক্তিগুলোর তুলনায় যে জিরোনা অনেকটা পিছিয়ে সেটিও অকপটে স্বীকার করেছেন মিচেল। বলেন, রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে লড়াই করতে পারে কেবল বিশ্বের চার পাঁচটি ক্লাব। আমরা এমন ক্লাব যারা কেবল গড়ে ওঠার চেষ্টা করছি। গোটা বিশ্বের কেবল চারটি বা পাঁচটি ক্লাব হয়তো আছে  যারা রিয়ালের সঙ্গে লড়াই করতে পারে। তারা যখন এরকম ছন্দে থাকে; এভাবে খেলে তখন তাদেরকে আটকানো কঠিন।

জিরোনা কোচ বলেন, ভ্যালেন্সিয়া, রিয়াল বেটিস এরা আমাদের পর্যায়ের দল। আমরা রিয়াল মাদ্রিদের পর্যায়ের নই। বার্সিলোনার কাছ থেকে পয়েন্ট আদায় করেছি আমরা। কিন্তু আমরা তাদের পর্যায়ের দল নই। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের পর্যায়ের দলও নই। আমরা সেটা মাথায় রেখেই পরিশ্রম করে চলেছি। শেষ পর্যন্ত রিয়াল মাদ্রিদই এবারের লা লিগা জিতে নেবে বলে ধারণা মিচেলের। জিরোনা কোচ আগেও বলেছিলেন, লিগ শিরোপার স্বপ্ন তারা দেখছেন না। তাদের আশা বরং প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলা। এই হারের পরও সেই কথাই বলেছেন তিনি। প্রসঙ্গে মিচেলের ভাষ্য, ফুটবল খেলায় যে কোনো কিছুই হতে পারে। তবে আমার মনে হয়েছে রিয়াল খুবই শক্তিশালী। তারা যদি এই মান ধরে রাখতে পারে, তাহলে পয়েন্ট হারাবে না। ম্যাচে কোনো সময়ই মনে হয়নি যে  আমরা জিততে পারি। আমরা রিয়াল মাদ্রিদের পর্যায়ের নই। আমরা স্বপ্নের ভেতর ছিলাম; এখনও স্বপ্নেই আছি। আমার মনে হয় ইউরোপে খেলার মতো জায়গায় আছি আমরা।

ম্যাচ শেষে রিয়াল মাদ্রিদ কোচ কার্লো আনচেলোত্তিকে জবাব দিতে হয়েছে কিলিয়ান এমবাপেকে নিয়ে। তবে তিনি তা এড়িয়ে গিয়ে বলেন, সে (এমবাপে) তো অন্য দলে খেলে। আমাদের দলেই বিশ্বের সেরা ফুটবলার আছে। ভিনিসিয়াস সেরা মানের ফুটবলার। সে যখন এরকম খেলে, মানসিকতা নিয়ে মাঠে নামে। সে তখন বিশ্বের সেরা ফুটবলার। আমার ব্যক্তিগত অভিমত এটা। ভিনি সেরা হলে দ্বিতীয় সেরা কে? শুধু একজন নন, আনচেলোত্তি বলেছেন পাঁচজনের নাম। তারা হলেন বেলিংহাম, রডরিগো, টনি ক্রুস, ভালভার্ডে কামাভিঙ্গা।

 

×