ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২৪ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১

সেমিফাইনালে সাবালেঙ্কা ও হাদ্দাদ

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:১১, ৮ জুন ২০২৩

সেমিফাইনালে সাবালেঙ্কা ও হাদ্দাদ

ইউক্রেনের এলিনা সিতলিনার বিরুদ্ধে রিটার্ন শট খেলছেন বেলারুশের এরিনা সাবালেঙ্কা

ফ্রেঞ্চ ওপেনে দাপট অব্যাহত রাখলেন এরিনা সাবালেঙ্কা এবং বিয়াত্রিজ হাদ্দাদ মাইয়া। দুর্দান্ত খেলে রোঁলা গ্যাঁরোর সেমিফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছেন তারা। শেষ আটে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় বাছাই এরিনা সাবালেঙ্কা সরাসরি সেটে পরাজয়ের স্বাদ উপহার দেন এলিনা সিতলিনাকে। বেলারুশ সুন্দরী ৬-৪ এবং ৬-৪ ব্যবধানে হারান ইউক্রেনের এই তারকাকে। কোয়ার্টার ফাইনালের আরেক ম্যাচে বিয়াত্রিজ হাদ্দাদ মাইয়া ৩-৬, ৭-৬ (৭/৫) এবং ৬-১ ব্যবধানে পরাজিত করেন তিউনিসিয়ার উনস জেবিয়ারকে। সেইসঙ্গে টেনিসের উন্মুক্ত যুগে ব্রাজিলের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ফ্রেঞ্চ ওপেনের শেষ চারের টিকিট কাটলেন হাদ্দাদ মাইয়া।
চলতি মৌসুমের শুরু থেকেই উড়ছেন এরিনা সাবালেঙ্কা। অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জিতে ক্যারিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ডস্লামের শিরোপা উঁচিয়ে ধরেন তিনি। যে কারণে ফ্রেঞ্চ ওপেনেও ফেভারিটের ট্যাগ গায়ে মাখানো ছিল তার। সেই পথে দারুণভাবে ছুটে চলেছেন বেলারুশ সুন্দরী। আসরের শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলে ফরাসি ওপেনে মেয়েদের এককের সেমিফাইনালে উঠলেন দ্বিতীয় বাছাই। মঙ্গলবার কোয়ার্টার ফাইনালে তিনি সরাসরি সেটে হারান ইউক্রেনের এলিনা সিতলিনাকে। সেমিফাইনালে সাবালেঙ্কার প্রতিপক্ষ চেক প্রজাতন্ত্রের ক্যারোলিনা মুচোভা। অন্য কোয়ার্টার ফাইনালে তিনিও ৭-৫ এবং ৬-২ ব্যবধানে সরাসরি ব্যবধানে পরাজিত করেন এনাস্তাসিয়া পাভলিউচেঙ্কোভাকে। 
তবে শেষ আটে সাবালেঙ্কার সামনে জেতা কঠিন ছিল বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের ১৯২ নম্বরে থাকা সিতলিনার। কিন্তু ইউক্রেনের প্রতিযোগী হাল ছাড়েননি। কয়েকটি গেমে ভালো লড়াই করেন। হতে পারে বেলারুশের প্রতিপক্ষ থাকায় অন্য আবেগ কাজ করছিল ইউক্রেনের এই তারকার। কিন্তু সাবালেঙ্কার অভিজ্ঞতার কাছে যেন ধীরে ধীরে পিছিয়ে পড়েন সিতলিনা। প্রথম সেট ৬-৪ ব্যবধানে জিতেন সাবালেঙ্কা।
দ্বিতীয় সেটের শুরুটা অবশ্য একটু অন্য রকম হয়েছিল। প্রথম দুটি গেম জিতে যান সিতলিনা। ফলে কিছুটা চাপে পড়ে গিয়েছিলেন বেলারুশ তারকা। কিন্তু সেখান থেকে তাকে আবার খেলায় ফেরান খোদ সিতলিনাই। তার একের পর এক আনফোর্সড এরর কাজে লাগান অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের চ্যাম্পিয়ন। যে কারণে ০-২ থেকে ২-২ করেন। শেষ পর্যন্ত দ্বিতীয় সেটও সেই ৬-৪ জিতে সেমিফাইনালে পৌঁছে যান সাবালেঙ্কা। এই ম্যাচ শেষেও সাবালেঙ্কার সঙ্গে হাত মেলাননি সিতলিনা। অর্থাৎ প্যারিসেও দেখা যায় রাশিয়া-ইউক্রেনে যুদ্ধের ঝাঁজ। একদিকে বেলারুশ অন্যদিকে ইউক্রেন।

দুই দেশের খেলোয়াড় হওয়ায় ম্যাচের আগে থেকেই এ ম্যাচকে ঘিরে ভক্ত-অনুরাগীদের মধ্যে ছিল বাড়তি উত্তেজনা। তাছাড়া কোয়ার্টার ফাইনালে রাশিয়ার দারিয়া কাসাতকিনাকে হারিয়েও হাত মেলাননি সিতলিনা। কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচ শেষে সাবালেঙ্কার সঙ্গেও যে হাত মেলাবেন না তা আগে থেকেই পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছিলেন সিতলিনা। তিনি বলেছিলেন, ‘রাশিয়ার দুই খেলোয়াড়ের বিপক্ষে আমি এ বারের ফরাসি ওপেনে খেলেছি। আমার ব্যবহারের কোন পরিবর্তন হবে না। তাদের সঙ্গে যা করেছি, আগামী ম্যাচেও তাই করব।’ যে কারণে হেরেও সাবালেঙ্কার সঙ্গে হাত মেলাননি সিতলিনা। যদিও সাবালেঙ্কা জানিয়েছেন, তার প্রতিপক্ষ কোর্টে দারুণভাবে লড়াই করেছে। ভবিষ্যতের জন্য সিতলিনাকে শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন সাবালেঙ্কা। 
এদিকে চমক অব্যাহত রেখেছেন বিয়াত্রিজ হাদ্দাদ মাইয়া। শেষ আটে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা উনস জেবিয়ারকেও হারিয়ে নতুন ইতিহাস গড়েছেন তিনি। ২ ঘণ্টা ২৯ মিনিটের কঠিন লড়াইয়ের পর হাদ্দাদ হারান তিউনিসিয়ান তারকাকে। 
সেইসঙ্গে টেনিসের ওপেন যুগে ব্রাজিলের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে রোঁলা গ্যাঁরোর শেষ চারে উঠার গৌরব অর্জন করেন তিনি। তার আগে প্রথম ব্রাজিলিয়ান হিসেবে কোন গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে খেলেছিলেন মারিয়া বুয়েনো। ১৯৬৮ সালে ইউএস ওপেনের শেষ চারে জায়গা করে নিয়েছিলেন তিনি। ২০১৮ সালে ৭৮ বছর বয়সে পরলোকগমন করেন বুয়েনো। ফাইনালে উঠার পথে হাদ্দাদ মাইয়ার সামনে অবশ্য কঠিন পথ। ইগা সুইয়াটেক বনাম কোকো গফরে বিপক্ষে জয়ী খেলোয়াড়ের বিপক্ষে যে খেলতে হবে শেষ চারে।

×