ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ১৯ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১

‘ধন্যবাদ বাংলাদেশ, বিশ্বচ্যাম্পিয়ন লিগ চিরকৃতজ্ঞ’

জাহিদুল আলম জয়

প্রকাশিত: ০১:০৬, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

‘ধন্যবাদ বাংলাদেশ, বিশ্বচ্যাম্পিয়ন লিগ চিরকৃতজ্ঞ’

আর্জেন্টিনার ফুটবল লিগে সেদেশের পতাকার সঙ্গে বাংলাদেশের লাল-সবুজ পতাকা প্রদর্শন

তিন যুগ পর বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছে আর্জেন্টিনা। লিওনেল মেসি, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়াদের সাফল্যে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাসে ভেসেছে লাল-সবুজের দেশ বাংলাদেশ। শুধু উচ্ছ্বাস বললে কম বলা হবে। বিশ্বের যে কোনো দেশের তুলনায় বাংলাদেশে আর্জেন্টিনাকে নিয়ে উন্মাদনা হয়েছে সবচেয়ে বেশি। যে কারণে বিশ্বকাপের সময় আর্জেন্টিনাসহ গোটা দুনিয়ায় মেসিদের প্রতি বাংলার ফুটবলপ্রেমীদের ভালোবাসার খবর গুরুত্বসহকারে প্রকাশিত হয়েছে।  
বিষয়টি নিয়ে আলবিসেলেস্তা কোচ লিওনেল স্কালোনি বিশ্বকাপ চলাকালেই কৃতজ্ঞতা জানিয়েছিলেন বাংলার সমর্থকদের প্রতি। ভালোবাসার এমন উন্মাদনার কথা জেনেছেন স্বয়ং মেসিও। তাইতো ভালোবাসার জবাবও দিয়েছেন ছয়বারের ফিফা সেরা তারকা। বিশ্বকাপের সময়ই বাংলাদেশের সমর্থকদের অভিবাদন জানান খুদে জাদুকর। বিশ্বকাপ শেষের দেড় মাস পর আবারও মেসি বাংলার সমর্থকদের ভালোবাসায় মুগ্ধতা প্রকাশ করেন।

এবার সেই ধারাবাহিকতায় আর্জেন্টিনা ফুটবল লিগে বাংলাদেশকে সম্মান জানানো হয়েছে। অর্থাৎ দিয়াগো ম্যারাডোনার দেশের ঘরোয়া ফুটবল লিগে আর্জেন্টিনার পতাকার সঙ্গে বাংলাদেশের লাল-সবুজ পতাকাও প্রদর্শন করা হয়েছে। এ সময় বাংলাদেশকে ধন্যবাদ ও সম্মান জানায় লিগ কর্তৃপক্ষ। পরে লিগের ভেরিফায়েড ফেসবুক আইডিতে পোস্ট করা হয়েছে সেসব ছবি। যেখানে লেখা হয়েছে, ‘ধন্যবাদ বাংলাদেশ। বিশ্বচ্যাম্পিয়ন লিগ চিরকৃতজ্ঞ থাকবে।’
আর্জেন্টিনা দল ও মেসির প্রতি ভালোবাসার মানুষের অভাব নেই বাংলাদেশে। কাতার বিশ্বকাপ চলাকালে আরও একবার প্রমাণ মেলেছে। দেশজুড়ে আর্জেন্টিনার পতাকা যেমন শোভা পেয়েছিল, তেমনি অগণিত মানুষের গায়ে জড়ানো ছিল মেসির ‘১০’ নম্বর জার্সি। সেই সঙ্গে দলটির প্রতিটি জয়ে উৎসবের জোয়ার বয়ে যায়। এমন উন্মাদনার কথা গণমাধ্যমের কল্যাণে পৌঁছে যায় পিএসজি ফরোয়ার্ড মেসির কাছে।

তাইতো স্বদেশি ক্রীড়া বিষয়ক গণমাধ্যম দিয়ারিও ওলেকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ৩৫ বছর বয়সী মেসি প্রসঙ্গে কিছুদিন আগে বলেন, হ্যাঁ আমি বাংলাদেশের করা সমর্থনের সবকিছুই দেখেছি। ফাইনালের আগে সবখানে জার্সি দেখা যাচ্ছিল। সারা বিশ্বের মানুষের গায়ে আর্জেন্টিনার মেসির ‘১০’ নম্বর জার্সি দেখতে পাওয়াটা খুবই সুন্দর ব্যাপার।
কাতারের মাটিতে ফাইনালে টাইব্রেকারে ফ্রান্সকে হারিয়ে তৃতীয়বারের মতো বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয় আর্জেন্টিনা। এতে বিশ্বকাপ শিরোপা জেতার জন্য দলটির ৩৬ বছরের অপেক্ষার অবসান হয়। মেসিবাহিনীর অর্জনে বাংলাদেশের মানুষও মাতোয়ারা হয় পরম প্রাপ্তির উল্লাসে। ফুটবলের মহাযজ্ঞের সবশেষ আসরে মেসি ছিলেন আপন মহিমায় উজ্জ্বল। বিশ্বকাপের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত চোখ ধাঁধানো পারফরম্যান্স উপহার দেন তিনি। শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে জোড়া গোলসহ সাত গোল করেন।

পাশাপাশি সতীর্থদের চার গোলে অবদান রাখেন। এমন নৈপুণ্যের কারণে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার গোল্ডেন বল জেতেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। 
অন্যদিকে মেসিদের মতো বাংলাদেশের প্রতি ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন পর্তুগালের তারকা ফুটবলার ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোও। ইউরোপ পর্ব শেষে সি’আর সেভেন এখন খেলছেন এশিয়ার দেশ সৌদি আরবের ক্লাব আল নাসেরের হয়ে। পাঁচবারের ফিফা সেরা তারকা বাংলাদেশকে ইসলামিক কায়দায় অভিবাদন জানিয়েছেন। মঙ্গলবার বাংলাদেশী একজনের একটি ফেসবুকে পেজ থেকে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে।

ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, হাত নাড়িয়ে বাংলাদেশকে সালাম জানাচ্ছেন রোনাল্ডো। তিনি বলছেন, সালামু আলাইকুম বাংলাদেশ। যদিও কিছুটা ভুল উচ্চারণে সালাম দিয়েছেন রোনাল্ডো। তবে তাতে কিছু যায় আসে না ভক্তদের! এতটুকুতেই হৃদয় ছুঁয়ে গেছে সবার। ভিডিওটি সম্পর্কে বিস্তারিত না জানা গেলেও অনুমান করা হচ্ছে, রোনাল্ডোর ক্লাব আল নাসেরে প্রবাসী বাংলাদেশীরা কাজ করেন। সেই সূত্রেই কোনো এক প্রবাসী রোনাল্ডোর ভিডিওটি রেকর্ড করেছেন।

×