ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০

উয়েফা উইমেন্স নেশন্স লিগ

বিশ্বকাপের পর নেশন্স লিগেও চ্যাম্পিয়ন স্পেন

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:৫০, ১ মার্চ ২০২৪

বিশ্বকাপের পর নেশন্স লিগেও চ্যাম্পিয়ন স্পেন

উয়েফা উইমেন্স নেশন্স লিগে ফ্রান্সকে হারিয়ে শিরোপা হাতে স্পেনের নারী ফুটবলারদের উদ্যাপন

বিশ্ব ফুটবলে স্পেনের মেয়েদের রূপকথা চলছেই। বিশ্বকাপের পর এবার উয়েফা উইমেন্স নেশন্স লিগেও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে তারা। বুধবার টুর্নামেন্টের ফাইনালে স্পেনের মেয়েরা ২-০ গোলে পরাজয়ের স্বাদ উপহার দেয় শক্তিশালী ফ্রান্সকে। সেইসঙ্গে প্রথমবারের মতো উয়েফা নেশন্স লিগের শিরোপা উঁচিয়ে ধরার অবিস্মরণীয় কীর্তি গড়ে লা রোজারা। ফুটবল ইতিহাসে স্পেনই প্রথম যারা বিশ্বকাপের পাশাপাশি উয়েফা উইমেন্স নেশন্স লিগের শিরোপা জয়ের নজির গড়েছে।

বুধবার সেভিলে অনুষ্ঠিত ফাইনালে ফ্রান্সের মুখোমুখি হয় স্পেনের মেয়েরা। শুরু থেকেই অবশ্য দাপট দেখায় লা রোজারা। তবে গোলের জন্য তাদের অপেক্ষা করতে হয় ম্যাচের ৩২ মিনিট পর্যন্ত। স্পেনকে প্রথম গোল করে এগিয়ে দেন দেশটির তারকা ফুটবলার আইতানা বোনমাতি। তার গোলেই এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় স্পেন। বিরতির পরও দাপট অব্যাহত রাখে তারা। ম্যাচের বয়স যখন ৫৩ মিনিট তখনই গোল ব্যবধান দ্বিগুণ করে শিরোপা জয়ের পথটাকে সহজ করে নেয় স্পেন।

এবার গোলদাতা মারিওনা কালদেন্তে। ফলে ২-০ গোলে পিছিয়ে পড়ে ফ্রান্স। এরপর ম্যাচে ফেরার জন্য নিজেদের সর্বোচ্চটা দিয়েই চেষ্টা করে ফ্রান্স। কিন্তু শক্তিশালী স্প্যানিশ মেয়েদের কাছে অবশ্য পাত্তাই পায়নি। ফলে সহজ জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে লা রোজারা। সেইসঙ্গে বিশ্বকাপের পর নেশন্স লিগের শিরোপা নিজেদের শোকেসে তুলে ইতিহাসের সোনালি পাতায় জায়গা করে নেয় বোনমাতি-হারমোসোরা।
একটা সময় ছেলেদের ফুটবলে রাজত্ব করেছে স্পেন। বিশেষ করে ২০০৮ থেকে ১২ সাল পর্যন্ত বিশ্ব ফুটবলে আলো ছড়িয়েছে জাভি-ইনিয়েস্তারা। সেই সময়ে স্পেন এতটাই দুর্দান্ত খেলেছিল যে ফুটবল ইতিহাসের একমাত্র দেশ হিসেবে ইউরো-বিশ্বকাপ-ইউরো জয়ের নজির গড়েছিল তারা। এবার তাদের সেই দেখানো পথেই যেন হাটছে স্পেনের নারী খেলোয়াড়রা।

গত বছরের আগস্টে প্রথমবারের মতো মেয়েদের বিশ্বকাপের ট্রফি জয়ের রেকর্ড গড়েছিল স্পেন। ফাইনালে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে হারিয়ে মেয়েদের বিশ্বকাপ জিতেছিল তারা। সিডনির স্টেডিয়াম অস্ট্রেলিয়ায় প্রায় ৭৬ হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে সেই ফাইনাল ম্যাচে লা রোজারা ১-০ গোলে হারিয়েছিল ইংল্যান্ডের মেয়েদের।

সেই বিশ্বকাপের সাত ম্যাচের ছয়টিতেই জিতে অবিশ্বাস্যভাবে মাথায় পরে বিশ্ব জয়ের মুকুট। যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, জাপান এবং নরওয়ের পর পঞ্চম দল হিসেবে মেয়েদের বিশ্বকাপ জিতে স্পেন। এবার উয়েফা নেশন্স লিগের মুকুটও পড়ল তারা। মেয়েদের বিশ্বকাপে স্পেনের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন আইতানা বোনমাতি। তার পুরস্কার হিসেবে গোল্ডেন বল জিতেছিলেন এই স্প্যানিশ মিডফিল্ডার।

শুধু তাই নয়? পরবর্তীতে মেয়েদের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কারও নিজের শোকেসে তুলেছিলেন তিনি। মাত্র ছয় মাসের ব্যবধানে বিশ্বকাপের পর এবার আরও একটি বড় সাফল্যের দেখা পেল স্পেন। দারুণ রোমাঞ্চিত স্প্যানিশ খেলোয়াড়রা। উয়েফা নেশন্স লিগে ফ্রান্সকে হারানোর পর আইতানা বোনমাতি বলেন, ‘ছয় মাস আগে আমরা বিশ্বকাপ জিতেছি এবং এখন নেশন্স লিগ, এর চেয়ে বেশি আর কি চাইতে পারি আমরা।

আমরা যা অর্জন করছি তা সত্যিই দুর্দান্ত।’ আইতানা বোনমাতি অবশ্য পরের লক্ষ্যটাও জানিয়ে দিয়েছেন। আর সেটা হলো চলতি বছরেই প্যারিসে শুরু হতে যাওয়া অলিম্পিকের ট্রফি! হ্যাঁ, স্প্যানিশ মিডফিল্ডারের ভাষ্যমতে, ‘বিশ্বকাপ, নেশন্স লিগের পর আমাদের লক্ষ্য এখন অলিম্পিক।’
অথচ একটা সময় মাঠের বাইরের নানান সমস্যায় বিপর্যস্ত ছিল স্পেন দল। বিশেষ করে কোচ বদলের দাবিতে বিদ্রোহ করে বসেছিল দেশটির খেলোয়াড়রা। এমনকি জাতীয় দলের হয়ে খেলা বন্ধ করার হুমকি দিয়েছিলেন ১৫ ফুটবলার। সেই দলটিই বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মাত্র ৬ মাস পর উয়েফা নেশন্স লিগেরও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার অবিস্মরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করল।

×