ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

কাতার বিশ্বকাপে অনিশ্চিত নেইমার!

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:৩৪, ৩ ডিসেম্বর ২০২২

কাতার বিশ্বকাপে অনিশ্চিত নেইমার!

নেইমার

সার্বিয়ার বিপক্ষে কাতার বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই ব্রাজিলের সুপার স্টার নেইমার ইনজুরিতে পড়েন। ম্যাচে তাকে ৯ বার ফাউল করা হয়, শেষ পর্যন্ত ৮০ মিনিটের সময় মাঠ ছাড়েন ডান পায়ের গোঁড়ালিতে আঘাত পেয়ে। গোঁড়ালি ফুলে গেলেও পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত তেমন মারাত্মক ভাবা হয়নি ইনজুরিটাকে। ব্রাজিলের টিম ডাক্তাররা তাই জানান সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে পারবেন না নেইমার। শেষ গ্রুপ ম্যাচে ক্যামেরুনের বিপক্ষে ফিরতে পারেন। তবে শুক্রবার নেইমারের ইনজুরি নিয়ে নতুন করে খোঁঝ-খবর করতেই জানা গেছে তার অবস্থা তেমন ভালোর দিকে যায়নি এবং ক্যামেরুনের বিপক্ষেও খেলছেন না তিনি। এমনকি চলতি বিশ্বকাপের পুরো সময়েই তার মাঠে নামা নিয়ে শুরু হয়েছে শঙ্কা। কারণ তার ডান পায়ের গোঁড়ালির একটি হাড় ফুলে আছে এবং পার্শ্বীয় লিগামেন্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ ধরনের ইনজুরি কাটিয়ে মাঠে ফিরতে অন্তত ৩ সপ্তাহ সময় প্রয়োজন হয়। যদি সেটাই হয় সেক্ষেত্রে চলতি বিশ্বকাপে নেইমারের খেলার সম্ভাবনা নেই। যদিও কোচ তিতের বিশ্বাস এই আসরেই আবার খেলবেন নেইমার।
সার্বিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ শেষে ইনজুরি আক্রান্ত ডান পায়ের গোঁড়ালি নিয়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে স্টেডিয়াম ছেড়েছিলেন নেইমার। তথন স্পষ্ট করে তার অবস্থা নিয়ে কেউ কিছু বলেননি। তবে পরদিন এমআরআই স্ক্যানে লিগামেন্ট ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার নমুনা দেখা যায়। তখন ব্রাজিল ফুটবল দলের চিকিৎসক রড্রিগো ল্যাসমার জানিয়ে দেন, পরের ম্যাচে খেলা হবে না নেইমারের। কিন্তু শেষ গ্রুপ ম্যাচে ক্যামেরুনের বিপক্ষে খেলবেন তিনি। নেইমারকে দ্রুত সারিয়ে তুলতে যথেষ্ট প্রচেষ্টা চালিয়েছে ব্রাজিলের মেডিকেল টিম। এমনকি নাসা প্রযুক্তিতে তৈরি করা বুট তার পায়ে ব্যবহার করা হয়েছে ইলেক্ট্রোথেরাপি দিতে। কিন্তু এখনো নেইমারের ডান গোঁড়ালি ফোলাই আছে। পার্শ্বীয় লিগামেন্ট যতটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তা এখনো ভালোর দিকে যায়নি। এ কারণে শুরুতে যতটা মনে হয়েছে ইনজুরিটা তারচেয়ে খারাপ। এর সঙ্গে আছে তার হালকা জ্বর এবং প্রদাহ সংক্রান্ত উপসর্গ। যে কারণে এখন পর্যন্ত তার ইনজুরি পুনর্বাসন প্রক্রিয়া সীমাবদ্ধ শুধু সুইমিং পুলে। কোন ধরনের ভারি এক্সারসাইজ করার অবস্থাও ফেরেনি তার।
এ কারণে আনুমানিক ৩ সপ্তাহ নেইমারের ফুটবলের বাইরে থাকার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। অথচ তাকে সুস্থ করে তোলার জন্য সম্মিলিতভাবে তার পায়ে ফিজিওথেরাপি, ইলেক্ট্রোথেরাপি এবং ক্রাইওথেরাপি চালানো হচ্ছে। কিন্তু সার্বিকভাবে উন্নতি সামান্যই। তাই দলের ডাক্তার ল্যাসমার জানিয়েছেন নেইমারের গোঁড়ালির হাড়ও কিছুটা ফুলে আছে যা চলমান উন্নত প্রযুক্তির চিকিৎসায় কত দ্রুত সেরে উঠবে নিশ্চিত করে বলা সম্ভব হচ্ছে না। তাই দ্বিতীয় রাউন্ড, এমনকি কোয়ার্টার ফাইনালেও নেইমারের খেলা কঠিন। তবে আশাবাদী কোচ তিতের বিশ্বাস চলতি বিশ্বকাপেই মাঠে ফিরবেন নেইমার। তিনি বলেছেন, ‘আমি বিশ্বাস করি নেইমার ও দানিলো এই বিশ্বকাপেই খেলবে। তবে মেডিক্যাল তথ্য জানানোর পজিশন আমার নেই। আমি বলতে পারি যে শুধু নেইমার নয়, দানিলোর ইনজুরি পরিস্থিতি বিবর্তিত হচ্ছে। কিন্তু আমরা বিশ্বাস করি উভয়ে বিশ্বকাপ খেলবে।’

 

সম্পর্কিত বিষয়:

monarchmart
monarchmart