ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ০৪ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

জ্বালানি উপদেষ্টা

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধ না হলে কমবে না বিদ্যুতের দাম

প্রকাশিত: ১৭:৪০, ৩০ মার্চ ২০২৩

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধ না হলে কমবে না বিদ্যুতের দাম

জ্বালানি উপদেষ্টা ড. তৌফিক ইলাহী চৌধুরী

বিদ্যুতের দাম নির্ভর করে জ্বালানির ওপর। দেশে খুব অল্প পরিমাণ জ্বালানির উৎপাদন হলেও মূলত আন্তর্জাতিক বাজারের ওপরই নির্ভরশীল। আন্তর্জাতিক বাজারে এর দাম স্থিতিশীল না হলেও দেশের বাজারেও স্থিতিশীলতা আসবে না। আর বিশ্ববাজারে অস্থিরতার অন্যতম কারণ রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। এই যুদ্ধ বন্ধ না হলে দেশের বাজারে বিদ্যুতের দাম কমানো সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী। তবে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমলে দেশের বাজারেও কমানো হবে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।  

বৃহস্পতিবার ফোরাম ফর এনার্জি রিপোর্টার্স বাংলাদেশের (এফইআরবি) একটি প্রকাশনা অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় ড. তৌফিক ইলাহী চৌধুরী বলেন, আমি মনে করি যুদ্ধ বন্ধ না হলে দাম কমানো সম্ভব না। দাম একবারে বেশি পরিমাণে বাড়লে মানুষের সমস্যা হতে পারে। তাই অল্প অল্প করে বাড়ানো হয়েছে। কিছু দিন আগে ডলারের বাজার কিছ্টুা ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছিল। বাংলাদেশ এখন ডলার সংকট কাটিয়ে উঠছে। জ্বালানি আমদানিতে এখন আর তেমন সমস্যা হচ্ছে না।

বিশ্ববাজারে জ্বালানির দামের নি¤œমুখী প্রবণতা যদি অব্যাহত থাকে তাহলে দেশেও গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম কমিয়ে সমন্বয় করা হবে উল্লেখ করে জ্বালানি উপদেষ্টা বলেন, সরকার বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোতে গ্যাস সরবরাহ বাড়িয়েছে, যা বিদ্যুতের চাহিদা মেটাতে সহায়তা করেছে। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ পরিস্থিতি যদি বৈশ্বিক জ্বালানি বাজারের ভবিষ্যতকে প্রভাবিত না করে, তাহলে বিদ্যুৎ সরবরাহ পরিস্থিতি এখনকার মতোই ভালো থাকবে।

গভীর সমুদ্রে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান প্রসঙ্গে তৌফিক ই ইলাহী বলেন, কনকো ফিলিপস চলে গেলো দামের ইস্যু তুলে। আমরা পসকো দাইয়ুকে ডেকে এনেছি। এখন এক্সন মবিল আগ্রহ দেখাচ্ছে। আমার মনে হয় ওরা কৌশলগত কারণে আসতে চায়। এ বছরের মধ্যে কিছু একটা হতে পারে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আপাতত কয়লা উত্তোলনের কোনও পরিকল্পনা নেই। উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা তুলতে হবে। কয়লার ওপরে পানির স্তর রয়েছে। এই পানির স্তর বঙ্গোপসাগরে গিয়ে মিশেছে। এরসঙ্গে কয়লা উত্তোলনের জন্য প্রচুর জমি দরকার হয়। খনি এলাকার মাটি উর্বর উল্লেখ করে তিনি বলেন, সরকার বিষয়গুলো বিবেচনা করছে।

তবে সাম্প্রতিক সময়ে সরকার কয়লানীতি চূড়ান্ত করার আদেশ দিয়েছে। জ্বালানি বিভাগ ইতোমধ্যে বেশ কয়েক দফা বৈঠক করে খসড়া চূড়ান্ত করেছে বলে জ্বালানি বিভাগের একটি বৈঠকের কার্যপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা ভাগ্যবান অন্যান্য দেশের তুলনায় ভালো আছি। সাউথ আফ্রিকা, ব্রিটেনে ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা লোডশেডিং হয়েছে। আমরা তাদের তুলনায় ভালো আছি।

এফইআরবির চেয়ারম্যান শামীম জাহাঙ্গীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসাইন, ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির ((ডিপিডিসি) ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকাশ দেওয়ান, ঢাকা ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানির (ডেসকো) ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাওসার আমির আলী প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে জ্বালানি সাংবাদিকদের সংগঠন এফইআরবির প্রকাশনা ‘এমপাওয়ারিং বাংলাদেশ’-এর মোড়ক উন্মোচন করা হয়।
 

স্বপ্না

×