ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১

সিডনিতে সিনিয়র সিটিজেন ফোরাম অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ২১:১০, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩

সিডনিতে সিনিয়র সিটিজেন ফোরাম অনুষ্ঠিত

সিনিয়র সিটিজেন ফোরামের সদস্যরা।

সিডনি বাংলা উইমেন্স নেটওয়ার্ক আয়োজিত সিনিয়র সিটিজেন ফোরাম অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সিডনির গ্লেনহেভেন কমিউনিট সেন্টারে এই আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশি কমিউনিটির, প্রবীণ জনগোষ্ঠীর মানসিক, শারীরিক এবং তাদের সার্বিক সন্তুষ্টির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে অনুষ্ঠানটি সাজানো হয়। অনুষ্ঠানে বয়স্কদের স্বাস্থ্যের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন বিবিধ বিশেষজ্ঞরা। স্ট্রোকের প্রাথমিক লক্ষণগুলো কি, ডিমেনশিয়া, বয়স্কদের পড়ে যাবার ভয়, ক্রনিক ব্যথা এবং শ্রবণশক্তি হ্রাস ইত্যাদি ছিল আলোচনার অন্তর্ভুক্ত। এ ছাড়া, ভবিষ্যৎ প্ল্যানিং এর জন্য কিছু আইনি কাগজপত্র তৈরি করার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন একজন আইনজীবী। বাংলাদেশ মেডিকেল সোসাইটি অফ নিউ সাউথ ওয়েলস (বিএমএস) অনুষ্ঠানের প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে পাশে ছিল।‌ বিএমএস এর প্রেসিডেন্ট ড. আলী রেজা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। তিনি সিনিয়র সিটিজেন ফোরামের এই মহতী উদ্যোগের প্রশংসা করে ভবিষ্যতেও সংগঠনটির পাশে থাকার আশ্বাস দেন। 

অনুষ্ঠানের অন্য গুরুত্বপূর্ণ স্পনসর ছিল হেয়ার ক্লিয়ার অস্ট্রেলিয়া এবং ব্ল্যাকটাউন ডেন্টাল সার্জারি। শ্রবণশক্তি হ্রাস এবং সে বিষয়ে কি কি করণীয় সে বিষয়ে বক্তব্য রাখেন হেয়ার ক্লিয়ার সংস্থাটির মুখপাত্র কাকন রহমান। এ ছাড়াও, সিডিএনআই এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং বর্তমান প্রেসিডেন্ট ড. সাবরিন ফারুকী এবং কিপ ইন কানেকশন এর মুখপাত্র জান্নাতুল ফেরদৌস, তাদের সংস্থার কর্মকাণ্ড নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি, তারা সিনিয়র সিটিজেনদের জন্য কি কি কাজ করে থাকেন তার বিবরণ তুলে ধরেন।
 অনুষ্ঠানের সার্বিক দায়িত্ব ছিলেন- সংগঠনটির ভাইস প্রেসিডেন্ট সোনিয়া রশিদ এবং ইসি কমিটি মেম্বার তানজিন আহমেদ। সোনিয়া রশিদ বলেন, ‘সিনিয়র সিটিজেন ফোরাম আমার হৃদয়ের খুব কাছের একটি প্রজেক্ট। আমার স্বপ্ন হলো, এই ফোরামের সাহায্যে আমরা, আমাদের প্রবীণদের সাথে সংযোগ স্থাপন করব, চলমান সংলাপের একটি পরিবেশ তৈরি করব। যার মাধ্যমে আমরা জানতে পারবো, কিভাবে আমরা তাদের জীবনকে একটু সহজ করে তুলতে পারি।’
 সিনিয়র সিটিজেন ফোরামের প্রেসিডেন্ট ড. নাহিদ সায়মা বলেন, ‘সিনিয়র সিটিজেন ফোরামের প্রতিটি সদস্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে এই অনুষ্ঠানটির আয়োজন করেছে। অনুষ্ঠানটির মাধ্যমে আমাদের পূর্ববর্তী প্রজন্ম এবং পরবর্তী প্রজন্মের মধ্যে যদি একটি যোগসূত্র তৈরি করতে পারি তা হলেই আমাদের প্রচেষ্টা সফল হবে।’ 

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন এমপি ওয়ারেন কার্বি। তিনি সংগঠনের এই মহতি উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান।  

এম হাসান

×