ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২৪ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১

জন্মের ৭২ ঘণ্টা পরই হামাগুড়ি, কথাও বলতে চাইছে শিশুটি

প্রকাশিত: ২২:১১, ২ জুন ২০২৩

জন্মের ৭২ ঘণ্টা পরই  হামাগুড়ি, কথাও  বলতে চাইছে শিশুটি

.

জন্মের পর কেটেছে মাত্র ৭২ ঘণ্টা। ঠিকানা হাসপাতালে কাচেরবেবিকট তার মধ্যেই মাথা তুলে, হাতে ভর দিয়ে হামাগুড়ি দেওয়ার চেষ্টা করছে এক সদ্যোজাত। সম্প্রতি তেমনই একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক মাধ্যমে। আমেরিকার পেনসিলভেনিয়ার বাসিন্দা বছর ৩৪-এর সামান্থা মিশেল প্রসব বেদনা নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন হাসপাতালে। সঠিক সময়ে স্বাভাবিকভাবেই সুস্থ এক কন্যা সন্তানের জন্মও দিয়েছিলেন।

কিন্তু ঘটনার সূত্রপাত আরও দিন তিনেক পর। ঘটনার সময়ে কাচের বেবিকটে শুয়ে থাকা শিশুটির পরিচর্যা করতে এসে ওই হাসপাতালের সেবিকা দেখেন, ততক্ষণে নিজের হাতে ভর দিয়ে গোটা শরীরটাই উল্টে ফেলেছে ওই সদ্যোজাত। সঙ্গে সঙ্গে সামান্থাকে ডেকে সেই দৃশ্য দেখাতে চমকে ওঠেন তিনি। হতচকিত হয়ে গোটা ঘটনাই মোবাইল ফোনে ভিডিও করতে শুরু করেন তিনি। সাধারণত মাস বয়স থেকে শিশুরা হামাগুড়ি দেওয়ার চেষ্টা করে, ক্ষেত্রে তার ব্যতিক্রম হয়েছে। সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সামান্থা বলেন, ‘প্রথমবার মেয়েকে হামাগুড়ি দিতে দেখে আমি বাকরুদ্ধ হয়ে যাই। চোখে দেখা তো দূর, জীবনে কোনোদিনও এমন ঘটনা শুনিনি। শুধু কি তাই? এক-দেড় বছরের বাচ্চা মুখ দিয়ে যেমন আওয়াজ করে, অবিকল তেমন শব্দ করে কী সব যেন বলার চেষ্টাও করছিল সে।

×