ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

স্বাস্থ্য ভাবনা

-

প্রকাশিত: ০১:১০, ৪ অক্টোবর ২০২২

স্বাস্থ্য ভাবনা

রঙিন খাদ্যের বিভিন্ন গুণ

রঙিন খাদ্যের বিভিন্ন গুণ
সাদা খাদ্য
রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা
সবুজ খাদ্য
দেহ বর্জ্য নিষ্কাশন
হলুদ খাদ্য
সৌন্দর্য বর্ধন
কমলা খাদ্য
ক্যান্সার প্রতিরোধক
লাল খাদ্য
হার্টের স্বাস্থ্য
পার্পেল বা বেগুনী খাদ্য
দীর্ঘজীবিতা।

পেঁপের উপকারিতা
১। পেঁপে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। হজমশক্তি বৃদ্ধি করে।
২। পেঁপে খেলে সকালের বমি বমি ভাব চলে যায়।
৩। পেঁপের আছে প্রদাহবিরোধী ও ক্যান্সারনাশী ক্ষমতা।
৪। পেঁপে আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বর্ধিত করে।
৫। কাঁচা পেঁপে মহিলাদের ক্ষেত্রে তাদের মাসিকের অনিয়ম দূর করে।
৬। পাকস্থলী পরিষ্কার করে, পরিপাকতন্ত্র পরিষ্কার করে।

ব্রেন ধ্বংসকারী যত অভ্যাস
এটা তো ঠিক আপনার মস্তিস্ক আপনার দেহ যন্ত্রের অন্যতম একটি অঙ্গ। অথচ আমাদের বিভিন্ন কুঅভ্যাসের কারণে আমাদের মস্তিস্ক দারুণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। অভ্যাসগুলো বর্ণিত হলোÑ
১। যদি আপনি সকালের নাস্তা বাদ দিয়ে দেন। কিন্তু সকালের নাস্তার কার্বোহাইড্রেট সারা দিনের আপনার ব্রেনের গ্লুকোজ সরবরাহ করে থাকে।
২। চিনি : আপনার রক্তে অধিকতর চিনি শরীরে প্রোটিন ও পুষ্টি গ্রহণ কমিয়ে দেয়। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হয় ব্রেন।
৩। ধূমপান : ধূমপান ব্রেনের চিন্তাশক্তিকে ধ্বংস করে এমনকি যারা ধূমপায়ী পাশে থাকে তাদেরও।
৪। অতিভোজন : অতিভোজন ব্রেনের শিরা-উপশিরাগুলোকে মোটা করে, ফলে ব্রেনের ধার কমে যায়।
৫। ঘুমহীনতা : ঘুম মস্তিষ্ককে বিশ্রাম দেয়। ঘুমহীনতা তাই ব্রেন ক্ষতির অন্যতম কারণ।
৬। বায়ুদূষণ : বায়ুদূষণে ব্রেনে অক্সিজেন কমে যায়, ফলে মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতাও কমে যায়।
৬। মাথা ঢেকে শোয়া : লেপ বা বালিশে মাথা ঢেকে যারা শুয়ে থাকে তাদের শরীরের নির্গত কার্বন ডাইঅক্সাইড বের হবার পথ পায় না  ফলে জমায়িত কার্বন ডাইঅক্সাইড আপনার ব্রেনের ক্ষতি করে।
৭। অসুস্থতার সময় মস্তিস্কে কাজ : অসুস্থতার সময় ব্রেনের শিরা-উপশিরাগুলো কোঁচকানো থাকে, ফলে অুসস্থতার সময় কোন মানসিক বা শারীরিক কাজ এমনকি পড়াশোনা ব্রেনের ক্ষতি করে।
৮। অল্প পানি খাওয়া।

চোখ দুটিকে ভাল রাখুন
* কম্পিউটার থেকে কিছুক্ষণ পর পর বিরতি দিন।
* মনে রাখুন ২০-২০-২০ নিয়ন অর্থাৎ প্রতি ২০ মিনিট পর পর আাপনার চোখ স্কিন থেকে দূরে রাখুন। কোন কিছুতে ২০ সেকেন্ড ধরে অবলোকতন করুন। ২০ ফিট দূর থেকে।
* আপনার অফিসের বা বাসার চারিদিকের আলোর তুলনায় আপনার মনিটর বেশি উদ্ভাসিত বা বেশি অন্ধকার হবে না।
* এন্টি গ্লেয়ার স্কিন ফিল্টার ব্যবহার করুন।
* মাঝে মাঝে চোখের পলক আপনার চোখকে ধুইয়ে দিয়ে।

monarchmart
monarchmart