ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১

চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি, নতুন শিক্ষকদের জন্য দুঃসংবাদ 

প্রকাশিত: ১৯:০৭, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩; আপডেট: ১৯:০৮, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩

চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি, নতুন শিক্ষকদের জন্য দুঃসংবাদ 

এনটিআরসিএ।

পুলিশ ভেরিফিকেশনে বিরূপ মন্তব্য উত্থাপিত হলেই চাকরি হারাবেন এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ সুপারিশ পাওয়া নতুন শিক্ষকরা।  

শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে, বিরূপ মন্তব্য আসলেই নতুন শিক্ষকদের সুপারিশ বাতিল ও প্রার্থীকে চাকরি থেকে অব্যহতি দিতে হবে। 

মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ এনটিআরসিএকে এমনটাই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন :আইএসইউ ওয়ার্ল্ডকাপ জিনিয়াস কুইজ প্রতিযোগিতার লোগো উন্মোচন

উপসচিব মোহাম্মদ সুহেল মাহমুদ স্বাক্ষরিত  আদেশে প্রার্থীদের সুপারিশের বিষয়ে এনটিআরসিএকে কিছু শর্ত দেয় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ। 

শর্ত হিসেবে বলা হয়, নিয়োগ সুপারিশপ্রাপ্ত কোনো শিক্ষকের বিষয় সংশ্লিষ্ট এজেন্সি কর্তৃক ভেরিফিকেশনে কোনো বিরূপ মন্তব্য বা আপত্তি উত্থাপিত হলে অবিলম্বে তার সুপারিশপত্র বাতিল বলে গণ্য হবে এবং তাকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দিতে হবে। প্রার্থীর পুলিশ ভেরিফিকেশনে বিরূপ মন্তব্য পাওয়া গেলে এনটিআরসিএ তা মন্ত্রণালয়কে জানাবে। বিরূপ মন্তব্য পাওয়া শিক্ষককে অব্যাহতি দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ও প্রার্থীকে জানাবে।  

ওই আদেশে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে আদেশ প্রতিপালনে ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষক সংক দূর করতে চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের পুলিশ বা নিরাপত্তা ভেরিফিকেশন চলমান রেখেই অস্থায়ীভিত্তিতে নিয়োগ সুপারিশ করার অনুমতি দেয়া হয়। 

উল্লেখ্য, চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে নির্বাচিত ২৭ হাজার ৭৪ জন প্রার্থীকে বিভিন্ন এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এন্ট্রি লেভেলের শিক্ষক পদে নিয়োগের চূড়ান্ত সুপারিশ করেছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)।


 

এমএম

×