ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে শুদ্ধাচার কর্মশালার নামে ‘ডিনার পার্টি’

ইবি সংবাদদাতা 

প্রকাশিত: ২০:০০, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে শুদ্ধাচার কর্মশালার নামে ‘ডিনার পার্টি’

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়। ফাইল ছবি।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়ন বিষয়ক কর্মশালা-২০২৩ এর নামে ‘ডিনার পার্টি’র আয়োজন করেছে কর্তৃপক্ষ। 

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় কুষ্টিয়ার উপজেলা মোড়ে অবস্থিত দিশা টাওয়ারে এটি অনুষ্ঠিত হবে। পার্টিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, কোষাধ্যক্ষ, রেজিস্ট্রার, বিভিন্ন অনুষদীয় ডিন, প্রভোস্ট, বিভাগীয় সভাপতিসহ বিভিন্ন দফতর প্রধানগণ উপস্থিত থাকবেন। 

অনুষ্ঠান উপলক্ষে শিক্ষক-কর্মকর্তাদের জন্য বিশেষভাবে ঝিনাইদহ থেকে বিকাল ৫টায় এবং ক্যাম্পাস থেকে ৫টা ৪০ মিনিটে পরিবহন বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এ বছর বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) এর স্কোরে সাফল্য পাওয়ায় এই আয়োজন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তবে এ বিষয়ে কয়েকজন দপ্তর প্রধানের সাথে কথা হলে তারা কর্মশালার চিঠিতে উল্লেখিত তথ্যের বাইরে কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন। তবে অনেকের ধারণা ক্যাম্পাসে চলমান কর্মকর্তাদের আন্দোলনের কারণে কুষ্টিয়ায় এটির আয়োজন করা হয়েছে।

রেজিস্ট্রার দপ্তর জানিয়েছে, প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথি থাকবেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম, বিশেষ অতিথি থাকবেন কোষ্যাধ্যক্ষ ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া। স্বাগত বক্তব্য রাখবেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এইচ. এম. আলী হাসান। সভাপতিত্ব করবেন উপ-উপাচার্য এবং এপিএ টিমের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান। তিনিই অনুষ্ঠানে রিসোর্স পার্সন থাকবেন। প্রশিক্ষক হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরের কেউ থাকবেন না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন সিনিয়র অধ্যাপক বলেন, ‘আমাদের জানা মতে ক্যাম্পাসের বাইরে কখনো এমন আয়োজন হয়নি। শুদ্ধাচার কৌশলের নামে ডিনার পার্টির পেছনে অশুদ্ধ কৌশল থাকতে পারে বলে মনে হচ্ছে। খরচ সংকুলান এর নামে যখন সপ্তাহে একদিন অনলাইন ক্লাস নেয়া হচ্ছে, তখন শুদ্ধাচার কর্মশালার নামে অর্থ অপচয়ের উৎসবে নেমেছে তারা।’

কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি এটিএম এমদাদুল আলম বলেন, ‘যারা শুদ্ধাচার প্রোগ্রাম করছে তারাই তো অশুদ্ধ। ক্যাম্পাসে প্রোগ্রাম করলে মিটিংয়ে ঢুকে ভিসিকে বলতাম আপনারাই তো অশুদ্ধ। আর আপনারাই শুদ্ধাচারের বক্তব্য দেন।’

রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এইচ এম আলী হাসান বলেন, ‘এবার আমাদের এপিএ মূল্যায়নে বড় একটা অর্জন হয়েছে। বিভিন্ন দপ্তরের পেছনে কাজ করেছে। তাই কর্মশালার পাশাপাশি একটা ডিনারের আয়োজন করা হয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া এই আয়োজনকে ‘গেট টুগেদার’ উল্লেখ করে বলেন, ‘যারা বিভিন্ন সেক্টরের প্রধান এবং এপিএ এর সাথে সংশ্লিষ্ট যারা আছে তাদের সবাইকে নিয়ে একটা গেট টুগেদার হবে। সবাই সাকসেসফুল কাজ করেছে। যার ফলশ্রুতিতে আমাদের স্কোর অনেকটা বেড়েছে। তাই তাদের নিয়ে গেট টুগেদারের পাশাপাশি একটা মতবিনিময় হবে। আগামীতে কীভাবে স্কোর আরো ভালো করা যায়। যেহেতু এটা আপ্যায়নের বিষয় তাই রেস্টুরেন্টে করা হচ্ছে। এটা অন্য কোনো প্রোগাম না। ওয়ার্কশপের নাম না দিয়ে ওভাবে (গেট টুগেদার) নাম দিলে ভালো হতো।’

এপিএ টিমের আহ্বায়ক ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে মিটিংয়ে আছেন এবং পরে কল দিতে বলেন। পরবর্তীতে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে কল রিসিভ করেননি।

 

এম হাসান

×