ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

মুক্ত বাজার অর্থনীতির উদ্ভাবক

জলি রহমান

প্রকাশিত: ০০:১৮, ৪ জুন ২০২৩

মুক্ত বাজার অর্থনীতির উদ্ভাবক

এডাম স্মিথ

আধুনিক অর্থশাস্ত্রের জনক হিসেবেই পরিচিত এডাম স্মিথ। আগামীকাল এই মহান ব্যক্তির জন্মদিন। একটি দেশ কোন অবস্থায় রয়েছে, তা বোঝা যায় তার অর্থনৈতিক চিত্র থেকে। অর্থনীতির গতি-প্রকৃতি পর্যবেক্ষণ করা হয় দেশের আয়-ব্যয়ের মাধ্যমে। আর অর্থসংশ্লিষ্ট যে বিষয়গুলো রয়েছে শ্রমের বিভাজন, উৎপাদনশীলতা, চাহিদা ও যোগানের সমন্বয় তৈরি ইত্যাদি বিষয়ে মূলনীতি প্রদান করেন এডাম স্মিথ। তাকেই পরবর্তীতে অর্থনীতির জনক হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। এডাম স্মিথ পণ্য ব্যবহারের সম্ভাবনা ও উৎপাদন ছাড়াও পণ্যকে বিনিময়ের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহারের উপায় বাতলে দেয়।  তিনি মুক্ত বাজার অর্থনৈতিক তত্ত্ব প্রদান করেন যেখানে কোন রাষ্টীয় হস্তক্ষেপ থাকবে না। 
এডামস্মিথের বেড়ে ওঠা : স্কটিশ অর্থনীতিবিদ এডাম স্মিথ ১৭২৩ সালের ৫ জুন স্কটল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করেন। জন্মতারিখ নিয়ে সন্দেহ থাকলেও এই দিনটিকেই জন্মদিন হিসেবে পালন করেছেন। তিন মাস বয়সে বাবাকে হারিয়েছেন। তার মা মার্গারেট ডগলাস ছিলেন ধনী পরিবারের মেয়ে। এজন্য তার পড়ালেখায় সমস্যা তৈরি হয়নি। এডাম স্মিথ ধীরে ধীরে একাডেমিক ক্ষেত্রে খ্যাতি অর্জন করেন। মাত্র ১৪ বছর বয়সে (১৭৩৭ সাল ) গ্লাসগো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন এবং ১৭ বছর বয়সে অক্সফোর্ডে পড়তে যান। ১৭৫১ সালে গ্লাসগো বিশ্ববিদ্যালয়ে লজিকের অধ্যাপক হিসেবে নিযুক্ত হন। এখানে স্মিথ ১ বছর স্থায়ী ছিলেন।

এরপরে তিনি নৈতিক দর্শনশাস্ত্রে পাঠদান শুরু করেন। স্মিথ একাধারে অধ্যাপক, শিক্ষাবিদ, বুদ্ধিজীবী এবং ব্যবসায়ী হিসেবে সুখ্যাতি অর্জন করে। ১৭৫৯ সালে তার প্রথম বই ‘দ্য থিউরি অফ মোরাল সেন্টিমেন্টস’ প্রকাশিত হয়, যা নৈতিক অনুভূতির তত্ত্ব দেয়। এডাম স্মিথ ১৭৬৪ সালে প্রথমে ফ্রান্স এরপরে জেনেভা ও প্যারিসে ভ্রমণ করেন। তিনি লেখার লেখার জন্য ভ্রমণের এ সুযোগ নিয়েছিলেন। এরপর দীর্ঘ সময় নিয়ে ‘ওয়েলথ অফ নেসনস’ বইটি লিখেছেন। ১৭৭৮ সালে স্মিথ অবসরে যান। শেষ বেলায় গ্লাসগো বিশ্ববিদ্যালয়ে রেক্টর হিসেবে নিযুক্ত হন। এরপর তিনি ৭৭ বছর বয়সে (১৭ জুলাই ১৭৯০) চির নিদ্রায় শায়িত হন। 
যেভাবে হলেন আধুনিক অর্থশাস্ত্রের জনক : শিক্ষাজীবনে এডাম স্মিথ গণিত, ইতিহাস ও সাহিত্য বিষয়ে পড়েছেন। ১৭৪৮ সালে এডিনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বজনীন সিরিজ বক্তৃতার মাধ্যমে পরিচিতি লাভ করেন। সেসময়কার অর্থনৈতিক ব্যবস্থার ওপর প্রায় নয় বছর পরিশ্রমের মাধ্যমে ১৭৭৬ সালে রচনা করেন ‘ওয়েলথ অব নেসনস’। প্রকৃতি ও এর কারণসমূহ নিয়ে অনুসন্ধানমূলক রচনা এটি। বইটির মাধ্যমে তিনি অনেক খ্যাতি অর্জন করেন। তৎকালীন অর্থনীতিতে একটি দেশের জাতীয় সম্পদ পরিমাপ করা হতো দেশটির মোট স্বর্ণ ও রুপার ভিত্তিতে।

স্মিথ সেসময় প্রস্তাব করেছেন একটি দেশের অর্থনীতি নির্ভর করে দেশের মোট উৎপাদন এবং বাণিজ্যের ওপর যাকে  মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপি বলা হয়। তিনি বলেছিলেন স্বর্ণ ও রুপার মাধ্যমে সঠিক পরিসংখ্যান পাওয়া সম্ভব নয়। স্বতন্ত্র স্বার্থের ওপর ভিত্তি করে একটি দেশের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা পরিচালিত হয়। এটি যুক্তি দিয়ে প্রমাণ করেছিলেন। ধারণা দিয়েছিলেন মুক্ত বাজার অর্থনীতি দেশের জন্য ভাল ও উপকারী। ‘ওয়লথ অফ নেসনস’ বইটি তাকে আধুনিক অর্থশাস্ত্রের জনক হিসেবে পরিচিতি দিয়েছে। এডাম স্মিথের সুদূরপ্রসারী চিন্তাভাবনার মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক ব্যবস্থা মজবুত হয়েছিল।

×