ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১

‘আমি নাম্বার ওয়ান, আমিই ফেভারিট’

প্রকাশিত: ০০:১২, ২৫ মে ২০২৪

‘আমি নাম্বার ওয়ান, আমিই ফেভারিট’

ক্লে-কোর্টে দুর্দান্ত পোলিশ তরুণী ইগা সুইয়াটেক

স্পোর্টস রিপোর্টার বিশ্ব টেনিসে কয়েক বছর ধরেই দাপট দেখাচ্ছেন ইগা সুইয়াটেক। বিশেষ করে ক্লে কোর্টে তার পারফর্মেন্স ঈর্ষণীয়। গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টেও একই চিত্র। চার মেজর শিরোপার তিনটিই তার ক্লে কোর্টে-ফ্রেঞ্চ ওপেনে। রবিবার থেকে আবারও শুরু হচ্ছে মৌসুমের দ্বিতীয় মেজর এই টুর্নামেন্ট। রোঁলা গ্যাঁরোর বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইগা সুইয়াটেক। এবারও শিরোপা ধরে রাখতে চান টুর্নামেন্টের শীর্ষ বাছাই। রোঁলা গ্যাঁরোর শিরোপা ধরে রাখার ব্যাপারে দারুণ আশাবাদী পোলিশ তরুণী। সেজন্য নিজেই নিজেকে ফেভারিট হিসেবে মন্তব্য করেছেন সুইয়াটেক।

প্রসঙ্গে বর্তমান বিশ্ব টেনিস ্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর তারকা বলেন, ‘আমি নাম্বার ওয়ান, তাই আমিই সর্বত্র ফেভারিট অন্তত ্যাঙ্কিংয়ের দিকে যদি তাকান।এরপর বাস্তবতার চিত্রটাও তুলে ধরলেন ইগা সুইয়াটেক। তিনি বললেন, ‘প্রকৃতপক্ষে ্যাঙ্কিং খেলে না, তাই সব কিছু আমি নিজেই করব। ধীরে ধীরে তা আপনারাই দেখতে পারবেন।শিরোপা ধরে রাখার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী কিনা? এমন প্রশ্নের জবাবে ২২ বছর বয়সী এই তারকা বলেন, ‘অবশ্যই আমি আত্মবিশ্বাসী। এই মুহূর্তে আমার মনে হচ্ছে কোর্টে আমি দুর্দান্ত খেলছি।

২০২০ সালে ফ্রেঞ্চ ওপেনে প্রথম শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছিলেন ইগা সুইয়াটেক। তখন তার বয়স মাত্র ১৯। ২০২২ সালে আবারও রোঁলা গ্যাঁরোর ট্রফি পুনরুদ্ধার করেন তিনি। শুধু তাই নয়? পরের বছর ব্যাক টু ব্যাক চ্যাম্পিয়ন হওয়ার নজিরও গড়েন সুইয়াটেক। তার সামনে এবার নতুন ইতিহাসের হাতছানি। জাস্টিন হেনিনের পর প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ফ্রেঞ্চ ওপেনে হ্যাটট্রিক গড়ার সুযোগ নাম্বার ওয়ান তারকার। ২০০৫ থেকে ২০০৭ সালে টানা তিনবার ফ্রেঞ্চ ওপেনের ট্রফি উঁচিয়ে ধরেছিলেন তিনি। এবার সেই রেকর্ডে ভাগ বসানোর সুযোগ ইগা সুইয়াটেকের। শুধু তাই নয়? টেনিসের উন্মুক্ত যুগে চতুর্থ খেলোয়াড় হিসেবে চারবার ফ্রেঞ্চ ওপেন জয়ের রেকর্ডও ডাকছে তাকে। তার আগে এই কীর্তি গড়েছিলেন ক্রিস এভার্ট, স্টেফি গ্রাফ এবং জাস্টিন হেনিন। সেই পথে এই মুহূর্তে টেনিস কোর্টে দুর্দান্ত সময় কাটছে ইগা সুইয়াটেকের।

ফ্রেঞ্চ ওপেনের আগে খেলা দুটি টুর্নামেন্টের দুটিতেই যে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছেন তিনি। চলতি মাসেই মাদ্রিদ এবং রোম ওপেনের শিরোপা নিজের শোকেসে তুলেছেন সুইয়াটেক। গত ১১ বছরের মধ্যে যা প্রথম ঘটনা। তার আগে ২০১৩ সালে মাদ্রিদ এবং রোম ওপেনে ব্যাক টু ব্যাক শিরোপা জয়ের রেকর্ড গড়েছিলেন আমেরিকান টেনিসের জীবন্ত কিংবদন্তি সেরেনা উইলিয়ামস। সেরেনার পর সেই কীর্তিতে ভাগ বসালেন সুইয়াটেক। ফ্রেঞ্চ ওপেনের আগে তাই তার আত্মবিশ্বাসটাও বেড়ে গেছে বহুগুণে। তা ছাড়া প্যারিস তার ভালোবাসার জায়গা। প্রসঙ্গে ২১টি শিরোপার মালিক বলেন, ‘প্যারিসে আসতে এবং এখানে থাকতে আমার খুব ভালো লাগে। আমার কাছে এই জায়গাটা অসাধারণ। এখানে সত্যিই আমার সময়টাকে দারুণভাবে উপভোগ করি। এখানে সাতটি ম্যাচ খেলা এবং তার সব জেতা খুব কঠিন কাজ। যে কারণে আমি নিশ্চিত করে কিছু বলি না। তা ছাড়া গ্র্যান্ডস্লামের আবহ সবসময়ই ভিন্নরকম। এখানে কোর্টে এবং কোর্টের বাইরে বিভিন্ন রকমের চাপ অনুভূত হয়।

×