ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১

বিপাকে সাধারণ ক্রেতা

চট্টগ্রামে কমছে মাছ ও সবজির দাম, মাংস ঊর্ধ্বমুখী

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস

প্রকাশিত: ২১:৩০, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

চট্টগ্রামে কমছে মাছ ও সবজির দাম, মাংস ঊর্ধ্বমুখী

.

সবজি ও মাছের দাম কমতে শুরু করেছে চট্টগ্রামে। প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে স্থিতিশীল কাঁচাবাজার। মাছের দামও ক্রমান্বয়ে কমছে। তবে মাংসের দাম ঊর্ধ্বমুখী থাকায় বিপাকে সাধারণ ক্রেতারা। চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন বাজার ও অলিগলির দোকানে প্রতি কেজি ফার্মের মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২২০ থেকে ২৩০ টাকায়। একেকটি মুরগির ওজন দেড় কেজি বা তার চেয়ে বেশি হওয়ায় অনেকের চাহিদা থাকলেও সামর্থ্য নেই। ক্রেতারা ক্ষোভ জানিয়ে বলেছেন, প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তায় পকেট কাটছে সিন্ডিকেট। ভ্রাম্যমাণ আদালত ছাড়া মুরগির দাম কমবে না। 
শুক্রবার চট্টগ্রামের রেয়াজুদ্দিন বাজার, বক্সিরহাট, ফিরিঙ্গিবাজার ঘুরে দেখা গেছে, আপাতত সিন্ডিকেটের রাহুগ্রাস থেকে মুক্ত মাছ-সবজি। কিন্তু বিপরীত অবস্থা মাংসের দামে। চট্টগ্রামে প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ থেকে ৯শ’ টাকায়। অপরদিকে ছাগলের মাংসের কেজি ১ হাজার ১৫০ টাকা। কবুতরের জোড়া ২৬০ থেকে ২৮০ টাকা। দেশি মুরগির কেজি ৫৫০ থেকে ৬শ’ টাকা, সোনালি মুরগি ৩৪০ টাকা। 
অপরদিকে সামুদ্রিক, নদী ও পুকুরের মাছের প্রাচুর্য বৃদ্ধি পাওয়ায় কমেছে রুই, কাতলা, বাইলাসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছের। ছোট আকারের পোয়া মাছ বিক্রি হচ্ছে কেজি ১৮০ টাকা থেকে ২শ’ টাকায়। আকারে মাঝারি পোয়া মাছ বিক্রি হচ্ছে কেজি ৩শ’ টাকায়, রূপবান পোয়া বিক্রি হচ্ছে কেজি ৩২০ টাকায়, ছোট কোরাল মাছের কেজি সাড়ে ৪শ ও মাঝারি ৫শ টাকা। চিংড়ি আকার ও মানভেদে সাড়ে ৫শ’ থেকে সাড়ে ৮শ’, রূপচান্দা ৫শ’ থকে ৮শ’, রুই মাছ (৫শ গ্রাম ওজন) কেজি ২২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে এক কেজি ওজনের রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে ২৮০ টাকায়। এ ছাড়া কাতলা মাছের কেজি ৩২০ টাকা। ছুরি মাছ ৩শ’, প্রতি কেজি সামুদ্রিক বাইলা (আমদানি করা) ২৮০ টাকা , মাগুর ৫শ’, কই মাছ আড়াইশ’ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
এদিকে শীত মৌসুম শেষ হয়ে এলেও পর্যাপ্ত পরিমাণে রঙিন সবজির জোগান রয়েছে বাজারগুলোতে। প্রতি কেজি ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়। বাঁধাকপি কেজি ২০ টাকা, মিষ্টিকুমড়া কেজি ৩৫-৪০ টাকা, আলুর কেজি ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, বরবটি ৬০ থেকে ৭০ টাকা, পেঁয়াজ পাতার কেজি ২০, গাজরের কেজি ২০, টমেটো ৩০ এবং শসা ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। 
সবজি বিক্রেতারা জানিয়েছেন, উত্তরবঙ্গ থেকে প্রতিদিন সবজিবাহী ট্রাক ঢুকছে রেয়াজুদ্দিন বাজারে। চাহিদার তুলনায় জোগান ভালো থাকায় সবজির দাম নাগালে মধ্যে। ফিশারিঘাটের মাছের আড়তদাররা জানিয়েছেন, সাগরের আবহাওয়া অনুকূল। এ জন্য সামুদ্রিক মাছের সরবরাহ বেড়েছে। এ অবস্থা থাকলে দাম আরও কমতে পারে। তবে মাংসের দাম নিয়ে ক্ষুব্ধ নগরীর বাসিন্দারা। তারা ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে মুরগির বাজার নিয়ন্ত্রণের দাবি জানিয়েছেন।
 

×