ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ২৬ জুন ২০২৪, ১৩ আষাঢ় ১৪৩১

মিলেমিশে সুখের বারতা

সাইফুল ইসলাম চৌধুরী

প্রকাশিত: ২১:২৭, ৪ জুন ২০২৩; আপডেট: ২১:৩৬, ৪ জুন ২০২৩

মিলেমিশে সুখের বারতা

.

স্বামী-স্ত্রী একে অপরের শ্রেষ্ঠ বন্ধু। সুখ-দুঃখের সর্ব নিকটের সাথী। একে অপরের পরিপূরক। পৃথিবীর পবিত্রতম সম্পর্কের মধ্যে অন্যতম হলো স্বামী-স্ত্রীর নিরেট প্রেমের বন্ধন। পৃথিবীর ইতিহাসে সর্বযুগে সর্বাধুনিক জীবনবিধান আল কুরআন স্বামীদের নির্দেশ করে বলছেন, ‘তোমাদের স্ত্রীরা তোমাদের জন্য পোশাক স্বরূপ আর তোমরা তাদের পোশাক স্বরূপ (বাকারা : ১৮৭)।’ উপযুক্ত পোশাক যেমন একজন মানুষকে লজ্জাবৃত করে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করেন। স্বামী-স্ত্রীও একে অপরের ঠিক তেমনি পোশাক, যারা একজন অপরজনের যোগ্য উপস্থাপক।

স্বামী-স্ত্রীর পবিত্র ভালোবাসায় পরিবারে বরকত আনে। পরিবার হয় অনাবিল শান্তির স্বর্গরাজ্য। আসে আশাতীত সফলতা। পরিবারে সুখ শান্তির অন্যতম মাধ্যমে দুজনের ভালো বোঝাপড়া। দুটো মানুষ একসঙ্গে পথ চলতে গেলে একজন অন্যজনের দোষ-ত্রুটি দেখবে এটাই স্বাভাবিক। যোগ্যতা, সীমাবদ্ধতা অনেক কিছুই দৃষ্টিগোচর হবে। সেগুলো গোপন রেখে একটু কম্প্রোমাইজ, কিছুটা সেক্রিফাইজের ভিত্তিতে এগিয়ে যাওয়ার নামই যুগলবন্দী। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, নো সেক্রিফাইজ, নো কম্প্রোমাইজের যাঁতাকলে পিষ্ট হচ্ছে সোনার সংসার। দিন দিন বেড়ে চলছে বিবাহ বিচ্ছেদ। স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন, স্ত্রীর ছুরিকাঘাতে স্বামী খুন, স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের টানাপোড়েনে আত্মহত্যা, পরকীয়া বা একজনের বউ অন্যজনের সঙ্গে পালিয়ে যাওয়ার মতো ঘৃণ্য অপরাধের ফিরিস্তি এখন নিত্যকার সংবাদ। বৈবাহিক জীবনে এ অপরাধ ও পারিবারিক অশান্তির মূলে অন্যতম কারণ হলো ‘তুমি আমার যোগ্য নও’ প্রবণতা। সামান্য কথা-কাটাকাটি যখন যোগ্যতা অযোগ্যতার বন্দর পর্যন্ত পৌঁছে, তখন স্বর্গীয় সম্পর্কের মাঝে সন্দেহ বাসা বাঁধে।

আপনজন থেকে হয়ে উঠে বিরাজমান। স্বামী-স্ত্রী সম্পর্ক হওয়া চাই ইস্পাত-দৃঢ়। ভালোবাসার রাজপ্রাসাদ কেন ইগো প্রবলেমের কাছে তাসের ঘরের মতো ভেঙে যাবে! মানবজাতির শ্রেষ্ঠ শিক্ষাগুরু শিখিয়েছে, ‘তোমাদের মধ্যে উত্তম সেই ব্যক্তি যে তার স্ত্রীর কাছে উত্তম (তিরমিযী)।’ অন্যত্র রাসূল (সা.) ইরশাদ করেন, ‘স্বামীকে খুশী রেখে যে স্ত্রীলোক মৃত্যুবরণ করে সে জান্নাতি (ইবনে মাযাহ)।’ হযরতের মহামূল্যবান হাদিস দুটি আমাদের সাংসারিক জীবনের সহজপাঠ্য সিলেবাস। কতই না সুন্দর ফরমান। এর মূল বিষয় হলো স্বামীর চেষ্টা থাকবে স্ত্রীর সন্তুষ্টি আর স্ত্রীর চেষ্টা স্বামীর সন্তুষ্টি। এ বৈধ প্রতিযোগিতা যদি স্বামী-স্ত্রীর মাঝে চলে তাহলে তাদের সম্পর্ক মজবুত হয়। তুমি আমার যোগ্য নও- সম্পর্ক বিনাশী এ ধরনের বাক্য বিনিময় না করে স্বামী-স্ত্রী একে অপরকে আল্লাহ প্রদত্ত শ্রেষ্ঠ উপহার মনে করে যদি চলা যায়, তবে পরিবার হবে স্বর্গরাজ্য।

×