ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯

মহাভাবনায় কৃষক

শেষ শ্রাবণে খেয়ালি মেঘদূতের ভিন্ন খেলা

সমুদ্র হক

প্রকাশিত: ২২:৫৫, ১২ আগস্ট ২০২২

শেষ শ্রাবণে খেয়ালি  মেঘদূতের ভিন্ন  খেলা

শেষ শ্রাবণে ফসলের মাঠ ফেটে চৌচির

রুক্ষ প্রকৃতি খেয়ালি মেঘদূত অসহনীয় তাপপ্রবাহে বিদায় নিচ্ছে এবারের শ্রাবণশ্রাবণের মেঘ বৃষ্টির যে ধারাপাত তা এবার ছিল নাআর দুএকদিন পরই ভাদ্রের আগমনে শরতের অভিষেকবাঙালীর ঋতুবৈচিত্র্যে ভাদ্র নিয়ে কত কথা আছেতালপাকা গরম এবং ভাদুরে তেরে‌্যঅর্থা তীব্র গরমে তাল পেকে যায়আর তেরে‌্য হলো বৃষ্টি নেমে তেরো দিন থাকেএবারের শ্রাবণে যখন বৃষ্টি নেই ভাদ্রে থাকবে বলে মনে হয় নাএমন মন্তব্য বগুড়ার পদ্মপাড়ার প্রবীণ কৃষক ইস্রাফিল হোসেনের (৬১)জমিতে তার এবং ভাইপোর রোপণ করা চারা ফেটে চৌচিরভাবনা ভর করেছে কি করে আবাদ করবেন

তারা ইঞ্জিনে সেচ দেয়ার জন্য মাঠে শ্যালো ইঞ্জিন বসিয়েছেনডিজেলের দাম বেশি হওয়ায় শ্যালো ইঞ্জিন চালাতে বাড়তি অর্থ জোগান দিতে হবেআরেক কৃষক আব্দুল লতিফ জানালেন : মেয়েকে এ বছর বিয়ে দিয়েছেননতুন বউ ভাদ্র মাসে স্বামীর বাড়ি থেকে বাপের (তার) বাড়ি আসবেএটাই ওই এলাকার বাঙালী সংস্কৃতির রেওয়াজমাঠে ফসল নেইকী করবেএমন ভাবনাও তারএবারের শ্রাবণ মাস অচেনা ঋতু হয়ে বিদায় নিচ্ছেক্লাসিক্যাল রিমঝিম সুরকে বেসুরো করে দিয়েছে প্রকৃতি।       

কেমন ছিল গত বছরের শ্রাবণ : ছিল আকাশে মেঘদূতের খেলায় মেঘ বৃষ্টির ধারাপাতটিনের চালায় বৃষ্টির নূপুর নিক্কনকে মনে হয়েছিল শ্রাবণের ছন্দের নামতা পাঠএকককে এক, দুই দ্বিগুণে চারবৃষ্টি সেই ছন্দ মিলিয়ে দিয়েছে উচ্চ তাপপ্রবাহেবিজ্ঞানীগণ বলছেন বিশ^জুড়ে এই অবস্থাধরনী উষ্ণ হয়ে উঠছেপ্রকৃতি রূপ পাল্টেছেবৃষ্টি নেইতবুও ঢলের পানিতে ডুবছে লোকালয়বাংলাদেশও বাদ নেইএই সময়টায় আকাশে সাদা কালো মেঘেদের ছোটাছুটি দেখে মনে হবে এই বুঝি বৃষ্টি ঝরবেতা আর হয় নাশিশু-কিশোররা সুর করে ছড়া বলে আয় বৃষ্টি ঝেঁপে ধান দেবো মেপেছড়া শুনে বড়রা বলে, ধানই হচ্ছে না কোন ধান মেপে দিবিপ্রকৃতিতে রবীন্দ্রনাথের সুর ভাসে মেঘ বলেছে যাবো যাবো রাত বলেছে যাই/সাগর বলে কূল পেয়েছি আমি তো আর নাই

শেষ শ্রাবণে মেঘমঞ্জরি উদাসী মেঘকে সুদূর নীলিমায় ভাসিয়ে দিয়েছেবৃষ্টিকে পালিয়ে দিয়ে শরতকে স্বাগত জানাবার বরণ ডালা সাজিয়েছেবৃষ্টিহীন শ্রাবণ সেই ডালায় যুক্ত করে ভাদ্রে যেন বৃষ্টি না হয়

বিশ্বজুড়ে জলবায়ু পরিবর্তনের যে ঢেউ বঙ্গোপসাগরে নাচন তুলেছে তারই রেশ গিয়ে পড়েছে ঋতুর পালাবদলেআজি ঝর ঝর মুখর বাদর দিনেসুর মালা শ্রাবণের গলে পরাতে পারেনিসামনের শরত এবং বিদায় শ্রাবণের দুই ঋতুর মিতালি শেষ পর্যন্ত ফসলের মাঠকে কোন দিকে নিয়ে যাবে সেই ভাবনা এখন সাধারণেরআবাদ ঠিকমতো না হলে বরবাদ হয়ে যাবে ধানধাক্কা সামলাতে হবে সবাইকে।    

যুগে যুগে শিল্পী কবি সাহিত্যিক মানব মনের হৃদয়নাভূতিকে মেঘের জলধারায় বৃষ্টিতে সঞ্চারিত করেছেনযা এবার নেইগভীরে তলিয়ে গেছেধ্রুপদ লয়ের চিরন্তন মৃদু সুরের ব্যঞ্জনা রাজধানী ঢাকায় কংক্রিটের বনে ধরা দেয় নাযেখানে বিকালের সোনা রোদ ঢেকে গিয়েছেমানুষের শোরগোলে কোন সুর কানে বাজে নাগ্রামের পথে পা বাড়ালে চোখে পড়বে: বর্ষার জল শুকিয়ে জমি ফেটে চৌচিরজমিতে থিতু হয়ে আছে রোপিত আমন চারা

বাংলার ষড় ঋতুর বৈচিত্র্যে অনেকটা সময়জুড়ে থাকে মেঘ বৃষ্টিতপ্ত দিনের রৌদ্রছায়ায় বৃষ্টি অধিকার প্রতিষ্ঠায় ঘন কালো মেঘ জড়ো করেবর্ষা ও শরতে সকল ধরনের মেঘ আকাশের দখল নিয়ে নেয়এবারের শ্রাবণে সেই প্রকৃতি ছিল নামেঘেদের মেলা ছিল বিরূপ প্রকৃতির মধ্যেকোনটি ধূমল, কোনটি গৈরিক, কোনটি ফুরফুরে পেঁজা পেঁজাতাদের কত নামকাদম্বনী, জলদ, জলধর, সেক্তা, ধূমল, অভ্রএদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে মেঘপুষ্প (বৃষ্টি), মেঘাগম (বর্ষা), মেঘ বহ্নি (বিজলী), মেঘাত্যয় (শরত), মেঘ ভাঙ্গা (রোদ), মেঘ যামিনী, মেঘনীল, মেঘসখা মেঘেদের আরও কত নাম

ওদের কোন ক্ষমতা শ্রাবণে কাজে দেয়নিশরতে দেবে এমনটিও আশা করা যাচ্ছে নামেঘের আরেক পারেই রংধনুসেই রংধনু এবারে দৃষ্টিতে আসেনিজলেভেজা কেতকি (কেয়া) দূর থেকে সুবাস এনে দেয়নিগ্রামের ঝাউবনে, বাঁশ বাগানে, নদী তীরে চরগ্রামে বর্ষায় বেশি ফোটে নাম না জানা কত বনফুলযা দৃষ্টিতে এসে মন রাঙ্গিয়ে দেয়শ্রাবণের ধারায় এই ফুলগুলো ফোটেওনি নেচেও ওঠেনি

শ্রাবণের দিনে মানব মনও উদাসী হয়ে ওঠেমেঘের মতোই মানুষের কত বিচিত্রকখন কোথায় ছুটে যায়এবারের শ্রাবণ মানুষের মনের সেই অনুভূতি উধাও করে দিয়েছেফসলের মাঠে তাকালে প্রান আনচান করে ওঠেকৃষক তো চেষ্টা করছে সেচ যন্ত্র চালিয়ে ফসল ফলাতেকতটা পারবেপ্রকৃতির সেচ নির্ভর আমন আবাদসেচ যন্ত্র কি সেই আবাদের চাহিদা পূরণ করতে পারবেপূরণ না হলে কি হবেএই চিন্তা ভর করেছে সাধারণের মধ্যেপ্রকৃতি মানব হৃদয়ের সেতুবন্ধন রচিত করেযা প্রকৃতির রহস্যময় সৌন্দর্য! শরতের কাশবনের ফুল ফোটা শুরু হলে সেই সৌন্দর্য কি এবার থাকবে!