ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

বাংলাদেশ

বাগেরহাটে ভূমি সেবায় ভোগান্তি বন্ধে মোবাইল নম্বর

প্রকাশিত: ২০:১৬, ২২ মে ২০২২

বাগেরহাটে ভূমি সেবায় ভোগান্তি বন্ধে মোবাইল নম্বর

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট ॥ ‘শতভাগ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার সাথে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর ডিজিটাল ভূমি সেবা নিশ্চিত করতে হবে। কোন মানুষ যেন কোন প্রকার ভোগান্তি বা’ হয়রানীর শিকার না হন এজন্য সততা, আন্তরিকতা ও দক্ষতার বজায় রেখে সেবা গ্রহীতাদের দ্রুততম সময়ে সেবা দিতে হবে। যে কোন প্রকার দালাল বা’ ঘুষখোরদের দৌরাত্ব বন্ধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে এলাকায় এলাকায় মাইকিং, প্রচারপত্র বিলি ও জনসভা করা হবে। ঘুষ, দালালী, হয়রানী বা’ ভোগান্তি বন্ধে সকলকে ভূমি সেবায় মোবাইল নম্বর দেওয়া হচ্ছে।” রবিবার (২২ মে) দুপুরে জেলা রাজস্ব সভায় বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আজিজুর রহমান এ কথা বলেন। এর আগে সকাল ১০ টায় তিনি বাগেরহাটে জেলা কালেক্টরেট চত্বরে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো: শাহিনুজ্জামান এর সভাপতিত্বে ‘ডিজিটাল ভূমি সেবা’ সপ্তাহের উদ্বোধন করেন। এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্ব্বিক) খোন্দকার মোহাম্মদ রিজাউল করিম, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্টেট মো: হাফিজ-আল আসাদ, মোড়েলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড: শাহ-ই আলম বাচ্চু, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মোছাব্বেরুল ইসলাম, মোল্লাহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: ওয়াহিদ হোসেন, রামপাল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: কবীর হোসেন, মোংলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার কমলেশ মজুমদার, শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: নূর-ই আলম সিদ্দিকী, কচুয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জীনাত মহল, ফকিরহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: মনোয়ার হোসেন, চিতলমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইয়েদা ফয়জুন্নেছা, মোড়েলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: জাহাঙ্গীর আলম ও সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বিবি করিমুন ন্নেছা-সহ সকল এসিল্যান্ড ও ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। এসময় ভূমি অধিগ্রহনে ক্ষতিপূরণের চেক ও সার্টিফাই খতিয়ানের কপি হস্থান্তর করা হয়। এছাড়া, মোড়েলগঞ্জের সহকারী কমিশনার(ভূমি) মো: আলী হাসান, শরণখোলার কানুনগো সোলায়মান খান, ফকিরহাটের সার্ভেয়ার তোফাজ্জেল হোসেন, মোল্লাহাটের গাংনী ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মুকুল হোসেন ও সদর উপজেলার গোটাপাড়া উপ-সহকারী কর্মকর্তা মোছা: দিলরুবা আক্তারকে ভাল কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আজিজুর রহমান আরও বলেন, শতভাগ নামজারী ও ভূমি কর আদায় অনলাইনে এবং কোন অভিযোগ থাকলে সু-নিদৃষ্ট সময়ে নিষ্পত্তি করা হবে। সাধারণ মানুষ নিজের ভূমি সুরক্ষাসহ এখন সবাই ঘরে বসে ভূমি সেবা পাবেন। এজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌছে দিতে নানা কার্যক্রম বাস্তবায়ন চলছে। এটা আমাদের ভূমি ব্যবস্থাপনার ইতিহাসে যুগান্তকারী নজীরবিহীন পদক্ষেপ। তাঁর ভাষায়, ‘ইতিহাস সৃষ্টি করতে হবে। মানুষের সেবায় আন্তরিক হতে হবে। আমাদের সব সময় মনে রাখতে হবে আমরা জনগণের সেবক।” এক ঠিকানায় সকল ভূমি সেবা নিয়ে আসার জন্য স্থাপন করা হয়েছে ষধহফ.মড়া.নফ। অনলাইন ভূমি উন্নয়ন কর আদায়ের লক্ষ্যে অনলাইন রেজিস্ট্রেশন, ভূমি উন্নয়ন কর আদায় ও অনলাইনে ভূমি উন্নয়ন কর প্রদান সংক্রান্ত কার্যক্রম, ই-নামজারির আবেদন গ্রহণ, নিষ্পত্তিকৃত এলএ কেইসের ক্ষতিপূরণের চেক প্রদান, খতিয়ানের সার্টিফাইড কপি প্রাপ্তির আবেদন গ্রহণ ও তাৎক্ষণিকভাবে তা সরবরাহ এবং অনলাইনে মৌজা ম্যাপ এখন থেকে ডাক বিভাগের মাধ্যমেই সরবরাহ করা হবে বলে জেলা প্রশাসক উল্লেখ করেন।