ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

খেলা

ডিকভেলা আর চান্দিমালের দৃঢ়তায় নায়ক হয়ে উঠতে পারেননি তাইজুল

প্রকাশিত: ১৭:৫৩, ১৯ মে ২০২২

ডিকভেলা আর চান্দিমালের দৃঢ়তায় নায়ক হয়ে উঠতে পারেননি তাইজুল

অনলাইন ডেস্ক ॥ চট্রগ্রাম টেস্টের পঞ্চম দিনে নিরোশান ডিকেভেলা আর দীনেশ চান্দিমালের দৃঢ়তায় নায়ক হয়ে উঠতে পরলেননা তাইজুল ইসলাম। গতকালের ১টি্ এবং আজকের ৪টি উইকেটের নিয়ে বাংলাদেশ দলের জয়ের যে প্রত্যাশা তৈরি হয়ছিলো তা থামিয়ে দিয়েছে এই দুই শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যান। সপ্তম উইকেট জুটিতে ৩৩.১ ওভার ক্রিজে থেকে ৯৯ রান করেছেন তারা । দিনশেষে শ্রীলঙ্কা ৬ উইকেট হারিয়ে করেছে ২৬০ রান। খেলা শেষের সময় শ্রীলঙ্কা এগিয়ে ছিলো ১৯২ রানে। এই অবস্থায় আম্পায়ার খেলার সমাপ্তী টানে। ফলে চট্টগ্রাম টেস্ট শেষ হলো নিষ্প্রাণ ড্রয়। জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথমটিতে পঞ্চম দিনের শেষ সেশনে ৬ উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কা ২৬০ রান তুলে নেওয়ার পর ড্র মেনে নেন দুই দলের অধিনায়ক। একমাত্র ইনিংস ব্যাটিং করে বাংলাদেশ তুলেছিল ৪৬৫ রান। এর আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩৯৭ রানে থামে শ্রীলঙ্কা। ৩৯ রানে দুই উইকেট নিয়ে শেষ দিন শুরু করেছিল শ্রীলঙ্কা। কুশল মেন্ডিসকে নিয়ে সকালটা ভালোভাবেই পার করেন অধিনায়ক দিমুথ করুণারত্নে। কিন্তু এবারও তাদের জন্য হুমকি হন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। ফিফটি থেকে দুই রান দূরে থাকতে মেন্ডিসকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে প্রথম সাফল্য এনে দেন তিনি। তার করা গুড লেন্থের বল মেন্ডিসের অফ স্ট্যাম্পে আঘাত হানে। ৮ চার ও ১ ছক্কায় ৪৩ বলে ৪৮ রান করে ফিরে যান তিনি। আগের ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসকে ফেরাতেও বেশি সময় নেয়নি বাংলাদেশ। এবারও দলের ত্রাণকর্তা তাইজুল। ডট বলের চাপে পড়ে যাওয়া ম্যাথিউস তাকে খেলতে গিয়েছিলেন ক্রিজ থেকে বেড়িয়ে এসে। কিন্তু তার ব্যাটে লেগে তাইজুলের হাতেই ক্যাচ চলে আসে। ১৫ বল খেলে কোনো রান না করেই সাজঘরে ফিরতে হয় ম্যাথিউসকে। চার উইকেট হারিয়ে প্রথম সেশন শেষ করে শ্রীলঙ্কা। আশা জাগে ম্যাচে রোমাঞ্চকর কিছু হওয়ার। সেটা আরও একবার বাড়িয়ে দেন তাইজুল। এবার তিনি আউট করেন উইকেটে জমে যাওয়া করুণারত্নেকে। মিড উইকেটে দাঁড়ানো মুমিনুল হকের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফেরেন লঙ্কান অধিনায়ক। ২ চারে ১৩৮ বলে ৫২ রান করেন তিনি। ১৪৩ রানে ৫ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশকে ফের জয়ে স্বপ্ন দেখান সাকিব আল হাসান। ৬০ বলে ৩৩ রান করা ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে সাজঘরে ফেরত পাঠান তিনি। কিন্তু এতটুকুই। এরপর আর লঙ্কানদের বিপদ বাড়তে দেননি দিনেশ চান্ডিমাল ও নিরোশান ডিকভেলা। বাকিটা সময় স্বাচ্ছন্দ্যে পাড় করেন এই দুজন। মাঝে দুই একটি ক্যাচ ফেলে দেওয়া ছাড়া কোন অঘটন ঘটেনি। ১৩৫ বলে ৩৯ রান করে চান্ডিমাল ও ৯৬ বলে ৬১ রান করে অপরাজিত থাকেন ডিকভেলা। রোমাঞ্চের আশা জাগিয়েও নিষ্প্রাণ ড্রয়ে শেষ হয় চট্টগ্রাম টেস্ট। প্রথম ইনিংসে ১৯৯ রান করার সুবাদে ম্যান অফ দা ম্যাচ হয়েছেন ম্যাথিউস। সংক্ষিপ্ত স্কোর: শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংস: ৩৯৭ বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ৪৬৫ শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় ইনিংস: ৯০.১ ওভারে ২৬০/৬ (আগের দিন ৩৯/২) (করুনারত্নে ৫২, মেন্ডিস ৪৮, ম্যাথিউস ০, ধনাঞ্জয়া ৩৩, চান্দিমাল ৩৯*, ডিকভেলা ৬১*; নাঈম ২৩-৫-৭৯-০, খালেদ ৭-২-৩৭-০, সাকিব ২৫-৫-৫৮-১, তাইজুল ৩৪-৯-৮২-৪, শান্ত ১-০-২-০)