বুধবার ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

কেসিসির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা আধুনিকায়ন হচ্ছে

  • রোধ হবে পরিবেশ দূষণ ও লাঘব হবে জনদুর্ভোগ

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ খুলনা সিটি কর্পোরেশনের (কেসিসি) বর্জ্য ব্যবস্থার আধুনিকায়নে বৃহৎ একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ চলছে। ‘খুলনা সিটি কর্পোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থার উন্নয়ন’ নামে এ প্রকল্পটি সরকারী অর্থায়নে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৯৩ কোটি ৪০ লাখ ৬০ হাজার টাকা। সংশ্লিষ্টরা বলছেন বৃহৎ এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে নগরীর পরিবেশ দূষণ রোধ হবে। লাঘব হবে জনদুর্ভোগ।

কেসিসির সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১৫ লাখ মানুষের এই নগরীতে প্রতিদিন গৃহস্থালি বর্জ্য হয় প্রায় এক হাজার টন। কেসিসি এ বর্জ্য সংগ্রহ করে রাজবাঁধ এলাকায় ডাম্পিং পয়েন্টে নিয়ে ফেলার পরও প্রায় ৪০০ টন বর্জ্য থেকে যায়। যা নগরীর রাস্তা ও ড্রেনে আবর্জনার স্তূপে পরিণত হয়। সূত্রটি জানায়, আধুনিক যন্ত্রপাতির অভাবে বর্জ্য অপসারণ করতে হয় শ্রমিক দিয়ে। কিন্তু শ্রমিকের জনবলের অভাব প্রকট। এজন্য যন্ত্রপাতি সংযোজনের মাধ্যমে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা আধুনিকায়ন ও সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য ‘খুলনা সিটি কর্পোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থার উন্নয়ন’ নামে প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়। যা ২০২০ সালের নবেম্বর মাসে একনেকের সভায় অনুমোদন লাভ করে। চলতি অর্থবছরে প্রকল্পটি বাস্তবায়নের কাজ শুরু হয়েছে। প্রকল্প বাস্তবায়নের মেয়াদকাল ২০২১-২২ অর্থবছর হতে ২০২৩-২৪ অর্থবছর পর্যন্ত।

জানা গেছে, কেসিসির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় রয়েছে নগরীর ৭৭টি স্পটে ড্রেনের ভাসমান পয়েন্টে জিআই নেট ও এ্যাঙ্গেল স্থাপন, খোলা ড্রেনের পাশে ৭ কিলোমিটার এসএস রেলিং নির্মাণ, জমি অধিগ্রহণ, শেড নির্মাণ, ১৫টি সেকেন্ডারি ট্রান্সফার স্টেশন (এসটিএস) নির্মাণ, বিভিন্ন সাইজের প্রায় ১শ’ রিফিউজ ট্রাক/গার্বেজ কম্পাক্টর ট্রাক ক্রয়। ময়ূর নদী খননে হেভি ডিউটি এ্যামপিবিউজ ফ্লোটিং স্কেলেটর ১টি, রিয়ার টিপিং ট্রাক (৭টন ক্যাপাসিটি ১৫টি কন্টেনারসহ) ৭টি, ওপেন ডিমাউন্টেবল কন্টেনার ৬০টি, থ্রি হুইলার অটো রিমোডার ৭টি, ড্রেনের জন্য সাকার মেশিন ২টি, মানব বর্জ্য অপসারণে বিভিন্ন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন ১১টি ভ্যাকুট্যাগ, অটো ট্রলি ১০টি, ৭৫০ কেজি ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন ছোট ছোট ডাম্প ট্রাক ৩০টি, ময়ূর নদীর শ্যাওলা পরিষ্কারের জন্য আন্ডার ওয়াটার একোয়াটিক উইভ হারভেন্টর ১টি ক্রয়সহ আরও অনেক কাজ রয়েছে প্রকল্পের আওতায়। কেসিসির নির্বাহী প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) ও প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা আবদুল আজিজ বলেন, সিটি মেয়র মহোদয়ের আন্তরিক প্রচেষ্টায় প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদন লাভ করে। প্রকল্পের বাস্তবায়ন কাজ চলতি অর্থবছর থেকে শুরু হয়েছে। এ বছরের জন্য ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে। তিনি বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে নগরবাসী উপকৃত হবে। নগরীতে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে বিদ্যমান সমস্যা নিরসন হবে। কেসিসি সূত্রে জানা যায়, বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শুরুর আগে থেকেই খুলনা মহানগরীর ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন এবং গুরুত্বপূর্ণ ও ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা মেরামত এবং উন্নয়নে বৃহৎ দুটি প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ চলমান রয়েছে। এ ছাড়া আরও কিছু প্রকল্পের কাজ চালু আছে। এ সকল প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে নগরীর দৃশ্যপট বদলে যাবে।

শীর্ষ সংবাদ:
কক্সবাজারকে পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তোলা অপরিহার্য ॥ প্রধানমন্ত্রী         বিদ্যুতের দাম ৫৮ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ         ‘নিত্যপণ্যের দাম বাড়ার জন্য দায়ী আন্তর্জাতিক বাজার’         দেশে আরও ২২ জনের করোনা শনাক্ত         দেশে খাদ্যের কোনো ঘাটতি নেই ॥ খাদ্যমন্ত্রী         ১৯৮২ সালের পর যুক্তরাজ্যে সর্বোচ্চ মুদ্রাস্ফীতি         রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ ॥ চিকিৎসাধীন তিন জনের মৃত্যু         রায়পুরে মাদ্রাসা ছাত্রী হত্যায় ৪ জনের যাবজ্জীবন         বাতাসে জলীয়বাষ্প বেশি থাকায় ভ্যাপসা গরম         বিদেশী মনোপলি ব্যবসা বন্ধ করে দেশীয় মালিকানাধীন তামাক শিল্প রক্ষা করুন         ১ জুন ফের শুরু বাংলাদেশ-ভারত ট্রেন চলাচল         হাইকোর্টে সম্রাটের জামিন বাতিল         পরীমনির মামলায় নাসিরসহ ৩ জনের বিচার শুরু         আজ আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবস