বৃহস্পতিবার ১৪ মাঘ ১৪২৮, ২৭ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি ও নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঠাকুরগাঁও ॥ ঠাকুরগাঁও শহরে একতা নার্সিংহোম নামে একটি বেসরকারী ক্লিনিকে চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় নাসিমা খাতুন নামে (৩০)এক প্রসূতি মা ও তার নবজাতক শিশুরমৃত্যুরঅভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার রাতে নিহত প্রসূতি মায়ের স্বজনরা এমন অভিযোগ করেন। নিহত প্রসূতি সদর উপজেলার দেবীপুর ইউনিয়নের খইলসাকুরি গ্রামের রমজান আলীর স্ত্রী ।

এ বিষয়ে নিহতের মা আনোয়ারা বেগম অভিযোগ করে বলেন, সন্তানসম্ভবা আমার মেয়ে নাছিমা খাতুনকে মঙ্গলবার বিকেলে শহরের একতা নার্সিং হোম ক্লিনিকে ভর্তি করানো হয়। রাতেকোন প্রকার পরীক্ষা- নিরীক্ষা ছাড়াই তড়িঘড়ি করে প্রসূতি মায়ের সিজারিয়ান করা হয়। চিকিৎসক জাহাঙ্গীর আলম সিজারিয়ান অপারেশন করেন। সিজারের পরে ডাক্তার জানান, শিশু সন্তানটি মারা গেছে। এ কথা শুনে অমরা সবাই আমার মেয়েকে দেখতে চাইলে নার্সরা আমাদেও দেখা করতে যেতে দেয়নি। রোগীর অবস্থার অবনতি হলে ডাক্তার সেখান থেকে পালিয়ে যান। পরে অনেক খোঁজাখুঁজি করা হলে ডাক্তার জাহাঙ্গীর আলম উন্নত চিকিৎসার জন্য আমার মেয়েকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর পরামর্শ দেন। এরপর ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ একটি এ্যাম্বুলেন্সে আমার মেয়েকে রেখে পালিয়ে যায়। এর কিছুক্ষণ পর এ্যাম্বুলেন্সের ভেতরেই আমার মেয়ের মৃত্যু হয়। একমাত্র মেয়েকে হারিয়ে দিশাহারা মা কান্নাজড়িত কণ্ঠে আরও বলেন, ‘ধামার মেয়ের সুচিকিৎসা হয়নি। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার এবং এই ডাক্তারে বিচার চাই।’

এ বিষয়ে নিহতের ফুপাতো ভাই মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘হাসপাতালে আনার সময় আমার বোন একদম সুস্থ ও স্বাভাবিক ছিলেন। এখানকার ডাক্তার তার চিকিৎসা ভাল দিতে পারেননি।যে কারণে আমার বোন মারা গেছেন।’ অন্যদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে ডাঃ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘বাচ্চা পেটেই মৃত ছিল। আমি যখন অপারেশন করে চলে যাই, তখন পর্যন্ত রোগী ভালই ছিল। এরপর প্রায় ৫০ মিনিট পর জানতে পারি রোগীর বিপি পাওয়া যাচ্ছে না। পরে খবর পেয়ে ক্লিনিকে আবার এসে রোগীর অবস্থার অবনতি দেখে রোগীকে দ্রুত রংপুরমেডিক্যাল কলেজে পাঠানোর ব্যবস্থা করি। কারণ রোগীর আইসিইউ প্রয়োজন ছিল। কিন্তু রোগীর স্বজনরা তাকে নিয়ে যেতে রাজি হননি। তারা এই ক্লিনিকেই চিকিৎসা দিতে বলেন। দ্রুত রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে হয়তোরোগীটিকে বাঁচানো যেত।’ এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানার অফিসার ইনচার্জ তানভিরুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। অভিযোগ রয়েছে, ইতিপূর্বে এই ডাক্তারের কাছে আরও কয়েকজন রোগী মারা গেলেও তিনি অজ্ঞাত কারণে অভিযোগ মুক্ত হয়েছেন।

শীর্ষ সংবাদ:
দেশের সর্বনাশ করতেই বিএনপির লবিষ্ট নিয়োগ : সংসদে প্রধানমন্ত্রী         ৪৪তম বিসিএসের আবেদন ২ মার্চ পর্যন্ত         জমি অধিগ্রহণে আমার লাভবান হওয়ার খবর উদ্দেশ্যপ্রণোদিত : শিক্ষামন্ত্রী         জানুয়ারিতে ‘অস্বাস্থ্যকর বায়ু’ ছিল ঢাকায়         করোনায় আরও ১৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫৮০৭         গাইবান্ধায় ইভিএম এর মাধ্যমে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবে ॥ কবিতা খানম         এস কে সিনহার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ৩ এপ্রিল         শেরপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক তালাপতুফ হোসেন মঞ্জু আর নেই         সমালোচনা বন্ধ করতে হলে মার্শাল ল দিতে হবে ॥ সিইসি         সার্চ কমিটিতে থাকবেন নারী         ৫ বছরে ২২৮ এনজিওর নিবন্ধন বাতিল         রাজশাহীতে করোনায় নারীর মৃত্যু ॥ শনাক্তের হার ৬০.৩৯ ভাগ         এক রেখায় দৃশ্যমান হলো স্বপ্নের মেট্রোরেল         ইসি গঠন আইন পাস         দক্ষ জনবলের অভাবে এনআইডিতে ভুল-ভ্রান্তি ॥ আইনমন্ত্রী         ইউক্রেনে সেনা সদস্যের গুলিতে পাঁচজন নিহত         অসংখ্য স্প্লিন্টার দেহে নিয়ে বেঁচে আছেন আব্দুল্লাহ সরদার         হবিগঞ্জে বৈদ্যের বাজার ট্র্যাজেডির ১৭ বছর         ‘সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে মানুষের হৃদয়ে পৌঁছানো যায়’