বৃহস্পতিবার ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি চায় পাকিস্তান

বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি চায় পাকিস্তান

অনলাইন ডেস্ক ॥ বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি চায় পাকিস্তান। দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এসংক্রান্ত একটি বার্তা পাঠিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে।

গতকাল সোমবার ঢাকায় পাকিস্তানের হাইকমিশনার ইমরান আহমেদ সিদ্দিকি গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ওই বার্তা হস্তান্তর করেন। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবার সঙ্গে সুসম্পর্ক ও বন্ধুত্ব বজায় রাখার বিষয়ে বাংলাদেশের নীতির কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রণীত বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি হলো ‘সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারো সঙ্গে বৈরিতা নয়’।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার নিয়ে প্রায় সাত বছর আগে পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্কে টানাপড়েন দেখা দিয়েছিল। পাকিস্তান তখন ওই বিচারের বিরোধিতা করে। এরই পটভূমিতে কূটনৈতিকসুলভ নয়—এমন আচরণের জন্য দুই দেশ পাল্টাপাল্টি কূটনীতিক বহিষ্কার করেছিল। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে প্রায় দুই বছর ঢাকায় পাকিস্তান হাইকমিশনারের পদ শূন্য ছিল। বাংলাদেশ সরকার ‘অ্যাগ্রিমো’ অনুমোদনের পর গত বছর জানুয়ারিতে ঢাকায় আসেন হাইকমিশনার ইমরান আহমেদ সিদ্দিকি। তিনি দায়িত্ব নেওয়ার পর গতকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিতীয়বারের মতো সাক্ষাত্ করেন।

এর আগে গত ৩ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতেও তিনি বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক এগিয়ে নিতে পাকিস্তানের আগ্রহের কথা জানিয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রী সেদিন বলেছিলেন, বাংলাদেশ ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের নৃশংসতার কথা ভুলতে পারে না, ক্ষমা করতেও পারে না।

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও মুজিববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে বাংলাদেশ গত মার্চ মাসে পাকিস্তান ছাড়া এই অঞ্চলের অন্যান্য দেশ ভারত, ভুটান, মালদ্বীপ, নেপাল ও শ্রীলঙ্কার নেতাদের ঢাকায় আমন্ত্রণ জানায়। তবে সেই অনুষ্ঠানে ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে গতকাল পাকিস্তানের হাইকমিশনারের সাক্ষাতের পর প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের জানান, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোকে ক্ষুধা ও নিরক্ষরতার অভিশাপ থেকে মুক্ত করতে এবং এ অঞ্চলের জনগণের কল্যাণে কাজ করা উচিত বলে পাকিস্তানের হাইকমিশনারকে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

হাইকমিশনার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বার্তার একটি মূল কপি শেখ হাসিনার কাছে হস্তান্তর করেন। তিনি একটি ফটো অ্যালবাম, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৭৪ সালে অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশনের (ওআইসি) শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নিতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পাকিস্তান সফরের ছবির পেইন্টিং এবং ভিডিও ফুটেজও উপহার দেন।

বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক স্মারক হস্তান্তর করার জন্য হাইকমিশনারকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে পাকিস্তানের বাংলায় একটি ক্যালিগ্রাফি বই প্রকাশ করার প্রশংসা করেন। অ্যাম্বাসাডর এট লার্জ মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন এবং প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস এ সময় উপস্থিত ছিলেন। পাকিস্তান হাইকমিশন জানায়, হাইকমিশনার ইমরান আহমেদ সিদ্দিকি বাংলাদেশে তাঁর কূটনৈতিক ম্যান্ডেট বাস্তবায়নে সমর্থন প্রদানের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

শীর্ষ সংবাদ:
বন্দুকযুদ্ধে কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যার প্রধান আসামি শাহ আলম নিহত         গণমুখী প্রশাসন ॥ স্বাধীনতার ৫০ বছরে বড় অর্জন         ছাত্রদের কাজ লেখাপড়া, রাস্তায় নেমে যান ভাংচুর নয়         উন্নয়নে পাকিস্তানকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ         ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নেতৃত্বের ভূমিকায় থাকবে         ১১ খাতে বিপুল বিনিয়োগ আসার সম্ভাবনা         ঐতিহাসিক পার্বত্য শান্তি চুক্তিতে বদলে গেছে পাহাড়         রামপুরায় ছাত্র বিক্ষোভ, মতিঝিলে গাড়ি ভাংচুর         দেশের প্রথম বর্জ্য বিদ্যুত কেন্দ্র অবশেষে বাস্তবায়ন হচ্ছে         বাল্যবিয়ে রোধে কাজীদের সচেতন করতে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে         হত্যা মিশনে ব্যবহৃত গুলি-অস্ত্র উদ্ধার         শ্রদ্ধা ভালবাসায় জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলামের চিরবিদায়         সুপ্রীমকোর্টে শারীরিক উপস্থিতিতে বিচার কাজ শুরু         খালেদা জিয়াকে স্তব্ধ করে দিতে চায় সরকার ॥ ফখরুল         মুক্তিপণের টাকা আদায় হচ্ছিল মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে         সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে লাল সবুজের মহোৎসবে মুখরিত হাতিরঝিল         ৯০ কার্যদিবসে সম্প্রীতি বিনষ্টের মামলা নিষ্পত্তি করতে হবে         এইচএসসি ও আলিম পরীক্ষা উপলক্ষে যে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ডিএমপি         আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমলে ব্যবস্থা নেবো : অর্থমন্ত্রী         হৃদরোগ ঝুঁকি হ্রাসে সরকারের যুগান্তকারী পদক্ষেপ