বৃহস্পতিবার ৮ আশ্বিন ১৪২৮, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা

টয়লেট ব্যবহারে সক্ষম

টয়লেট ব্যবহারে সক্ষম

মানবশিশুর চেয়ে গরু যে কোন কিছু আগে রপ্ত করতে পারে। মানব শিশুকে কোন অভ্যাস রপ্ত করাতে যতটা সময় প্রয়োজন তার চেয়ে আগে গরু এটি শিখতে পারে। সম্প্রতি কারেন্ট বায়োলজি সাময়িকীতে প্রকাশিত এক গবেষণায় এ কথা বলা হয়েছে। গবেষণা অনুযায়ী, প্রয়োজন হলে দরজা খুলে টয়লেটে যায় গরু। ক্ষেতখামারে যেখানে সেখানে মূত্র ও মলত্যাগ করে না। কাজ হয়ে গেলে বাথরুম অপরিষ্কার হয় সেটা ভালই বোঝে। তাই মূত্র ও মলত্যাগের পর টয়লেট পরিষ্কার করার জন্য ‘ফ্লাশ’ টেনে দেয় তারা। তারপর দরজা খুলে বাথরুম থেকে বেরিয়ে আসে।

জার্মানির ‘রিসার্চ ইনস্টিটিউট ফর ফার্ম এ্যানিমাল বায়োলজি (এফবিএন)’ ও নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয় যৌথভাবে গবেষণাটি করেছে। এতে বলা হয়, চাষবাসের এলাকা বাড়ায় ক্ষেতখামারে গবাদি পশুদের ত্যাগ করা বর্জ্য পদার্থ থেকে উত্তরোত্তর বাড়ছে বায়ুদূষণের মাত্রা।

পরোক্ষভাবে তৈরি হচ্ছে গ্রীনহাউস গ্যাস। ফলে বাড়ছে উষ্ণতা। এই উষ্ণতা জলবায়ু পরিবর্তনের কারণ হয়ে উঠছে। গবেষকরা প্রথমত দেখিয়েছেন, মূত্র ও মলত্যাগ করার জন্য আগেভাগেই প্রস্তুতি নেয় গবাদি পশুরা। ব্যাপারটা এমন নয় যে অপেক্ষা করতে না পেরে তারা হঠাৎই মল, মূত্র ত্যাগ করে ফেলে। গবেষকরা আরও দেখিয়েছেন, বাথরুমে গিয়ে মল, মূত্র ত্যাগ করার অভ্যাস রপ্ত করাতে চাইলে তারা সেটা খুব তাড়াতাড়ি শিখে নিতে পারে। সদ্যোজাত মানবশিশু, এমনকি, দু’এক বছরের শিশুদের চেয়েও বেশি তাড়াতাড়ি এই অভ্যাস রপ্ত করানো যায় গবাদি পশুদের।

শীর্ষ সংবাদ: