রবিবার ১০ মাঘ ১৪২৭, ২৪ জানুয়ারী ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

হরিপুরে চার স্তরে গ্যাসের অবস্থান চিহ্নিত

হরিপুরে চার স্তরে গ্যাসের অবস্থান চিহ্নিত

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ সিলেটের হরিপুর গ্যাস ক্ষেত্রের চারটি স্তরে গ্যাসের অবস্থান চিহ্নিত করেছে বাপেক্স। এর মধ্যে গত ৪ জানুয়ারি থেকে (সবচেয়ে নিচের স্তর ১ হাজার ৯৯৮ মিটার গভীর) গ্যাস উঠতে শুরু করেছে। এই দিন বিকেল ৪টার দিকে কূপটির ফ্লেয়ার লাইনে উঠে আসা গ্যাসে আগুনের শিখা জ্বালিয়ে গ্যাস প্রাপ্তি নিশ্চিত করা হয়। বাপেক্স ও পেট্রোবাংলার সূত্র জানায়, ত্রিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপের তথ্য বিশ্লেষণ করে কূপটির ২ হাজার ৭২ থেকে ২ হাজার ৯৪ মিটার গভীরতায় তেল আছে বলে ধারণা করা হয়েছিল। কিন্তু খননকালে ওই স্তরে পৌঁছাতে পারেনি বাপেক্সের খননযন্ত্র (রিগ)। ২ হাজার ২৫ মিটারে রিগটি আটকে যায়। ফলে সম্ভাব্য তেলের স্তরটি বাদ দিয়ে এর ওপরে চিহ্নিত চার স্তর থেকে গ্যাস উত্তোলনের প্রক্রিয়া হিসেবে ডিএসটি (ড্রিল স্টেম টেস্ট) করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। হরিপুর গ্যাস ক্ষেত্রটি পরিচালনা করে পেট্রোবাংলার অধীনস্ত কোম্পানি সিলেট গ্যাস ফিল্ডস লিমিটেড (এসজিএফএল)। এসজিএফএলের সদ্য সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও তিতাসের বর্তমান ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী ইকবাল মোঃ নূরুল্লাহ্তত্ত্বাবধানে কূপটির খনন কাজ শুরু হয়। সুত্র জানায়, কূপটির যে স্তর থেকে উঠে আসা গ্যাসে শিখা জ্বালানো হয়েছে, তার ওপরের আরও তিনটি স্তরের অন্তত একটি অনেক সমৃদ্ধ। সব স্তরে ডিএসটি করার পর সেখানকার সম্ভাব্য মজুদ নির্ধারণ এবং বাণিজ্যিকভাবে গ্যাস উত্তোলন শুরু করা হবে। দেশের প্রাচীনতম এই গ্যাস ক্ষেত্রটির ৯ নম্বর কূপে গত ২ অক্টোবর খনন কাজ শুরু করে পেট্রোবাংলার অধীন আরেকটি কোম্পানি বাপেক্স। তাদের করা ত্রিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপের ভিত্তিতেই কূপটি খননের স্থান ও গভীরতা নির্ধারণ করা হয়। এসজিএফএল সূত্র জানায়, ভূকম্পন জরিপের ফলের ভিত্তিতে এই কূপে তেল পাওয়ার আশা করা হয়েছিল। কূপটি খনন করার কথা ছিল ২ হাজার ১০০ মিটার গভীর। কিন্তু ২ হাজার ২৫ মিটার পর্যন্ত খনন করার পর ড্রিলিং পাইপ আটকে যায়, যা প্রচলিত কোন পদ্ধতিতেই ছাড়ানো যায়নি। ভূতাত্ত্বিক জটিলতা এবং খনন কাজ পরিচালনায় ত্রুটির কারণে এটা হয়ে থাকতে পারে। সূত্র জানায়, এই অবস্থায় করণীয় নির্ধারণের জন্য গত ১৭ ডিসেম্বর সংশ্লিষ্ট পরামর্শক ও বিশেষজ্ঞসহ সব পক্ষ এক সভায় মিলিত হয়। সে সভায় সামগ্রিক বিষয় আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেন যে, ড্রিলিং পাইপ যেখানে আটকে গেছে, সেখানেই এটি কেটে সিমেন্টিং করে দেয়া হবে। অর্থাৎ কূপটির খনন কাজ সেখানেই শেষ করা হবে। এরপর ২ হাজার ২৫ মিটারের মধ্যে চিহ্নিত চারটি স্তরে ডিএসটি সম্পন্ন করে গ্যাস উত্তোলন করা হবে। হরিপুর ১৯৫৫ সালে আবিষ্কৃত এ দেশের প্রথম গ্যাস ক্ষেত্র। ১৯৬০ সালে ক্ষেত্রটির ১ নম্বর কূপ থেকে দৈনিক ৪০ লাখ ঘনফুট করে গ্যাস ছাতক সিমেন্ট কারখানায় সরবরাহ শুরু হয়। বাংলাদেশে শিল্পে গ্যাস ব্যবহারও সেই প্রথম। সে ছিল এক নতুন যুগের সূচনা।

এরপর ১৯৬১ সালে এই ক্ষেত্রের আরেকটি কূপ থেকে ৩০ মাইল দীর্ঘ ও ৮ ফুট ব্যাসের পাইপ লাইনের মাধ্যমে গ্যাস সরবরাহ শুরু হয় ফেঞ্চুগঞ্জ সার কারখানায়। বাংলাদেশের স্বাধীনতার আগ পর্যন্ত হরিপুর গ্যাস ক্ষেত্রে ছয়টি কূপ খনন করা হয়। তবে একাত্তর সালের ডিসেম্বরে মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের সময় এর দুটি কূপ চালু ছিল। হরিপুর গ্যাস ক্ষেত্রটি আরও যে কারণে ঐতিহাসিক তা হলো এই ক্ষেত্রেই প্রথম ব্লো-আউট (কূপ খননকালীন বিস্ফোরণ) হয়। আবার এটিই দেশের প্রথম এবং একমাত্র তেলক্ষেত্র। স্বাধীনতার পর ১৯৮৬ সালে হরিপুর গ্যাস ক্ষেত্রে ৭ নম্বর কূপ খনন করা হয়। এই বছরের ২৩ ডিসেম্বর ৭ নম্বর কূপে তেল পাওয়া যায়। প্রায় ৭ বছরে মোট ৫ লাখ ৬০ হাজার ৮৬৯ ব্যারেল তেল উত্তোলনের পর ১৯৯৪ সালের ১৪ জুলাই কূপটিতে তেলের চাপ (ওয়েলহেড প্রেসার) প্রায় শূন্যের কোঠায় নেমে গেলে তেলের প্রবাহ বন্ধ হয়ে যায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, ভূগর্ভে তেলের সঙ্গে মোম জাতীয় একটি পদার্থ (ওয়াক্স) থাকে। তেল উত্তোলনের সময় ওই ওয়াক্স কূপের পাইপের গায়ে জমতে থাকে, যাতে তেলের প্রবাহ বিঘ্নিত হয়। তাই কূপে তেলের প্রবাহ অব্যাহত রাখার জন্য নিয়মিত ওই ওয়াক্স পরিষ্কার করতে হয়। হরিপুর ৭ নম্বর কূপে তা করা হয়নি। সেই কারণে ওয়েলহেড প্রেসার কমে গিয়ে তেলের প্রবাহ বন্ধ হয়ে যায়। ১৯৮৯ সালে ক্ষেত্রটিতে ৮ নম্বর কূপ খনন করা হয়। সেই কূপেও তেল পাওয়ার সম্ভাবনা ছিল। কিন্তু পাওয়া যায় গ্যাস। এরপর বাপেক্স ক্ষেত্রটিতে ত্রিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপ চালায়। তার ভিত্তিতে ৯ নম্বর কূপ খনন করা হয়।

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
৯৮৮০৯৬১৭
আক্রান্ত
৫৩১৩২৬
সুস্থ
৭১০১৬৫৪৪
সুস্থ
৪৭৫৮৯৯
শীর্ষ সংবাদ:
স্বপ্নের নীড়ে নবযাত্রা ॥ সারাদেশে গৃহহীন ও ভূমিহীনদের আনন্দের দিন         সম্মুখসারির করোনা যোদ্ধাদের কথা         শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে         ২৭ জানুয়ারি টিকা দেয়া শুরু         প্রণোদনার মেয়াদ ও আকার বাড়ছে         নান্দনিক নগর গড়ব-রেজাউল, সেবক হতে চাই- শাহাদাত         ৮৫ হাজার কোটি টাকার প্লাস্টিক পণ্য রফতানির টার্গেট         করোনায় দেশে মৃত্যুর সংখ্যা ৮ হাজার ছাড়িয়েছে         মেঘনা নদীকে নিয়ে পূর্ণাঙ্গ মাস্টারপ্ল্যান তৈরির উদ্যোগ         বিএনপি-জামায়াতের প্রোপাগান্ডা স্কোয়াডের অপতৎপরতা         শীতের তীব্রতা আরও দুদিন থাকবে         নেতাজী ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে এগিয়ে যেতে হবে         ৩৪ ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী         রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত         চাল আমদানির এলসি খোলার সময়সীমা বাড়ল         শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার আগে মানতে হবে যে ৪ ধাপ         গৃহহীন পরিবারকে গৃহ দিতে পারছি, এটিই আমার সবচেয়ে আনন্দের ॥ প্রধানমন্ত্রী         আগামী বুধবার থেকে বাংলাদেশে করোনার টিকাদান শুরু         সাগরে ট্রলারডুবি : ৪ লাশ উদ্ধার, নিখোঁজ ১০         করোনা ভাইরাসে মৃত্যু ৮ হাজার ছাড়াল, নতুন শনাক্ত পাঁচশ’র নিচে