মঙ্গলবার ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ০৭ জুলাই ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

রাজধানীর বাজারে ক্রেতাদের ভিড়, বিক্রিও বেড়েছে

রাজধানীর বাজারে ক্রেতাদের ভিড়, বিক্রিও বেড়েছে
  • কাল খুলছে সব শপিংমল, মার্কেট

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ঈদের পর খুলতে শুরু করেছে রাজধানীর ভোগ্য ও নিত্যপণ্যের বাজার। কাঁচাবাজারে বেচা-বিক্রি বেড়েছে। আগামীকাল রবিবার থেকে দেশের সকল মার্কেট, বিপণিবিতান, শপিংমল, ফ্যাশন হাউস ও সব ধরনের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হচ্ছে। মার্কেট ও বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিয়েছে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি।

এদিকে, শুক্রবার ছুটির দিনে কাঁচাবাজারগুলোতে ক্রেতা উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। ঈদের পর নগরবাসী আবার নিত্যপণ্যের কেনাকাটা শুরু করেছেন। এর আগে ছুটির তিনদিন অনেকটাই ফাঁকা ছিল রাজধানীর কাঁচাবাজার। চাহিদা কমায় ঈদের পর দাম কমে গেছে ব্রয়লার মুরগির। কেজিতে প্রায় ৩০ টাকা কমে প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৪০-১৬০ টাকায়। এছাড়া দাম কমেছে পেঁয়াজ, ছোলা, আদা ও রসুনের। এ সপ্তাহে দাম বেড়েছে আলু, ফার্মের ডিম ও সবজির। এছাড়া অপরিবর্তিত রয়েছে চাল, ডাল, আটা, ভোজ্যতেল ও মাছের দাম। গরু ও খাসির মাংস আগের দামে বিক্রি হচ্ছে।

রাজধানীর কাওরান বাজার, ফার্মগেট কাঁচাবাজার, ফকিরাপুল বাজার, কাপ্তান বাজার ও সরকারী বাজার নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা টিসিবি থেকে নিত্যপণ্যের দর-দামের এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

এদিকে, ঈদের ছুটিতে পণ্য সরবরাহ কমে যাওয়ায় প্রায় সব ধরনের সবজির দাম বেড়ে গেছে। ঈদের আগে যে শসা ২০-৩০ টাকায় বিক্রি হয়েছে তা কিনতে ভোক্তাকে এখন ৬০ টাকা গুণতে হচ্ছে। শসার মতো গাজর, খিরাই, কাঁচামরিচ, আলু, কাঁচকলাসহ সব ধরনের সবজি বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। কাপ্তান বাজার সবজি কিনছিলেন বনগ্রামের বাসিন্দা আসলাম আলী। তিনি জনকণ্ঠকে বলেন, সব সবজির দাম বাড়তি। নানা অজুহাতে ব্যবসায়ীরা সবজির দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে। ওই বাজারের সবজি বিক্রেতা খলিল সেক জানান, ঈদের কারণে ঠিকমতো পণ্য আসছে না। এছাড়া ছুটির কারণে ট্রাক ভাড়া বেড়ে গেছে। আর এ কারণে সবজির দাম এখন বেশি। দাম বেড়ে প্রতিকেজি আলু ২৮-৩০, প্রতিহালি ডিম ৩০-৩২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে খুচরা বাজারে।

সব দোকানপাট মার্কেট খুলে যাচ্ছে কাল। স্বাস্থ্যবিধি মেনে আগামীকাল রবিবার থেকে দেশের সকল দোকান পাট ও মার্কেটগুলো খুলে যাচ্ছে। ঈদের আগে দোকানপাট, মার্কেট ও শপিংমলগুলো সরকার খোলার অনুমতি দিলেও করোনা ভীতির কারণে অনেক ব্যবসায়ী সেই সুযোগ গ্রহণ করেনি। তবে এবার দোকানপাট খুলে দেয়া হচ্ছে। কারণ রবিবার থেকেই সরকারী সব অফিস আদালত খুলে যাচ্ছে। এ কারণে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব দোকানপাট ও বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার জন্য ব্যবসায়ীদের অনুরোধ জানিয়েছে। এতে অর্থনৈতিক কর্মকা- স্বাভাবিক হবে। স্থবির হয়ে পড়া অর্থনীতি আবার সচল হবে।

এদিকে, সারাদেশে আগামীকাল রবিবার থেকে দোকানপাট খোলা হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি। সরকারী বিধিনিষেধ মেনে তারা সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত দোকানপাট খোলা রাখবে। এক বিজ্ঞপ্তিতে দোকান মালিক সমিতি এ তথ্য জানিয়ে বলেছে, তারা চায় স্বাস্থ্যবিধি না মানলে সরকার জরিমানা করুক। দোকান মালিক সমিতির প্রস্তাব হলো, ক্রেতা-বিক্রেতার কেউ মাস্কবিহীন থাকলে ও সামাজিক দূরত্ব না মানলে তার ৫০০ টাকা এবং হাঁচি, কাশি ও জ্বর নিয়ে দোকানে গেলে এক হাজার টাকা জরিমানার বিধান করা হোক।

শীর্ষ সংবাদ:
উন্নত ব-দ্বীপের স্বপ্ন ॥ নদীমাতৃক বাংলাদেশ         রিজার্ভ থেকে ঋণ নেয়ার প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর         চলে গেলেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর         বিএনপির মুখে দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা হাস্যকর ॥ কাদের         হাসপাতালের ধারণ ক্ষমতা ফুরিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্রে         ঈদে সারাদেশে গণপরিবহন বন্ধের চিন্তাভাবনা         শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে ইন্টারনেট দিতে আলোচনা চলছে         বন্দুকযুদ্ধে কুড়িলে ২ ছিনতাইকারী নিহত         সাইবার মামলা তদন্তে সিআইডির থানা হচ্ছে         ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের এমডি ও পরিচালক গ্রেফতার         এন্ড্রু কিশোর তার গানের মাধ্যমে মানুষের হৃদয়ে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন : প্রধানমন্ত্রী         এন্ড্রু কিশোর আর নেই         উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য রিজার্ভ থেকে ঋণ নেয়া যেতে পারে : প্রধানমন্ত্রী         বিরল বন্দরকে দেশের এক নম্বর রেলবন্দরে রূপান্তরের কাজ করা হচ্ছে ॥ রেলমন্ত্রী         আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচলে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা         ভ্যাটের সনদ প্রতিষ্ঠানে ঝুলিয়ে রাখতে হবে         শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে ইন্টারনেট দিতে শিক্ষামন্ত্রীর আহ্বান         দারুল আরকাম মাদ্রাসা চালুর দাবিতে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি         প্রাকৃতিক দুর্যোগে মানবিক সহায়তা হিসেবে ১০ হাজার ৯০০ টন চাল বরাদ্দ         থাইল্যান্ডের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে সাহারা খাতুন        
//--BID Records