ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯

ইডেনকে হাসপাতাল বানানোর প্রস্তাব সৌরভের

প্রকাশিত: ১২:০৭, ২৬ মার্চ ২০২০

ইডেনকে হাসপাতাল বানানোর প্রস্তাব সৌরভের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে ২১ দিনের জন্য গোটা ভারত লকডাউন হয়ে গেছে। পশ্চিমবঙ্গেও তার প্রভাব পড়েছে। বন্ধ সকল প্রকার খেলাধুলা। এই অবস্থায় সরকার চাইলে কলকাতার ঐতিহাসিক ইডেন গার্ডেন্স স্টেডিয়ামকে কোয়ারেন্টাইনের জন্য অথবা যেকোনভাবে কাজে লাগাতে পারে বলে জানিয়েছেন ইন্ডিয়ান ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলী। সৌরভ বলেন, ‘যদি সরকার চায়, তাহলে আমরা নিশ্চিতভাবে ইডেনকে ব্যবহার করতে দেব। এই মুহূর্তে যা যা কিছু প্রয়োজন, আমরা তা করব। এটা নিয়ে একেবারেই কোনো সমস্যা নেই।’ এর আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় কলকাতার ফাঁকা রাস্তাঘাটের ছবি পোস্ট করেছিলেন সৌরভ। যেখানে ক্যাপশনে লিখেছিলেন, ‘আমার শহরকে এমনভাবে দেখার কথা কখনও ভাবিনি। নিরাপদ থাকুন। আমি নিশ্চিত, এই পরিস্থিতি বদলে দ্রুত সব ঠিকঠাক হয়ে যাবে।’ এদিকে ভারতের ক্রিকেটাঙ্গনে চলছে আইপিএল নিয়ে অনিশ্চয়তা। আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি দলগুলোর মালিকদের সঙ্গে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের টেলি-বৈঠক হওয়ার কথা থাকলেও তা স্থগিত হয়ে যায়। বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ বলেছেন, ‘আইপিএল নিয়ে কোনো ইতিবাচক উত্তর এই মুহূর্তে নেই। এখন কিছুই বলা যাচ্ছে না। আইপিএল পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত যে দিন নেয়া হয়েছিল, তার পরে পরিস্থিতির কোন উন্নতি হয়নি। তাই আমার কাছে এই মুহূর্তে আইপিএল নিয়ে কোনো উত্তর নেই।’ উল্লেখ্য করোনা ঠেকাতে কলকাতা শহর বন্ধ করে দিয়েছে তৃনমূল নেতৃতা পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। যে শহরের রাস্তা লাখো মানুষ আর যানবাহনে মুখর থাকে, সেই ব্যস্ত কলকাতাই এখন ভুতুড়ে। সৌরভ গাঙ্গুলী তার প্রিয় কলকাতার জনশূন্য রাস্তার ছবি দেখে কিছুটা আবেগাপ্লুত। এমন দৃশ্য তিনি যে কখনোই দেখেননি। কলকাতার এমন চেহারা তাকে দেখতে হবে এমনটাও যে কোনো দিন ভাবেননি সাবেক অধিনায়ক। করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে কলকাতাকে অবরুদ্ধ করে রাখার এ সিদ্ধান্ত কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। মানুষ বা কোনো যানবাহন যেন রাস্তায় নামতে না পারে, সে জন্য আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যরা কাজ করছেন। সোমবার বিকেল ৫টা থেকে শুরু হয়েছে এ কার্যক্রম। এরই মধ্যে ভারতে সব ধরনের খেলাধুলা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আইপিএল পিছিয়ে গেছে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত। বর্তমানে যে পরিস্থিতি তাতে এটি আরও পেছাতে পারে বলেই শঙ্কা সবার। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) কার্যালয়ও বন্ধ করে দিয়ে কর্মীদের বাড়ি থেকে কাজ করতে বলা হয়েছে। সৌরভ কিছুদিন আগেই ইনস্টাগ্রামে একটা পোস্ট দিয়েছিলেন, ‘আমি মনে করতে পারছি না কবে আমি বিকেল পাঁচটার সময় এমন অবসর কাটিয়েছি।’