ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯

সুস্থ হয়েছেন আর্সেনাল কোচ, স্বেচ্ছাসেবকের ভূমিকায় মরিনহো

মৃত্যুর মুখে রিয়ালের আরেক সভাপতি

প্রকাশিত: ০৯:৫৫, ২৫ মার্চ ২০২০

মৃত্যুর মুখে রিয়ালের আরেক সভাপতি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ করোনাভাইরাসের ভয়াল থাবায় ইতোমধ্যে মারা গেছেন স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক সভাপতি লরেঞ্জো সাঞ্জ। তার মৃত্যুর ধাক্কা কাটার আগেই রিয়াল মাদ্রিদে আরেক আঘাত। এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ক্লাবটির আরেক সাবেক সভাপতি ফার্নান্ডো মার্টিন আলভারেজ। ২০০৬ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত অন্তর্র্বর্তী সময়ের জন্য লস ব্লাঙ্কোসদের সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন তিনি। ৭২ বছর বয়সী আলভারেজের শারীরিক অবস্থা বেশ জটিল। মাদ্রিদের পুয়ের্তো দ্য হিয়েরো হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে রাখা হয়েছে তাকে। আলভারেজ বর্তমান সভাপতি ফ্লোরেন্টিনো পেরেজের সভা পরিষদের অন্যতম সদস্য। প্রথম মেয়াদে ২০০৬ সালের ২৭ ে ফেব্রুয়ারি ফ্লোরেন্টিনো পেরেজের পদ ছাড়ার পরে দুই মাসের জন্য দায়িত্ব পান আলভারেজ। তার মেয়াদে রিয়াল লা লিগায় না হারলেও আর্সেনালের কাছে হেরে বাদ পড়ে চ্যাম্পিয়ন্স লীগ থেক। এরপর দলের সভাপতি হন র‌্যামন ক্যালদেরন। সুস্থ হয়ে গেছেন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আর্সেনাল কোচ মিকেল আর্টেটা। তাকে অবশ্য এখনই অনুশীলনে না আসার কথা বলে দিয়েছে গানার্সরা। গত ১২ মার্চ করোনায় পজিটিভ হন আর্টেটা। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে সেটাই ছিল প্রথম করোনা সংক্রমণের ঘটনা। সুস্থ আর্টেটা এখন লন্ডনে আছেন। তিনি বলেন, আমি ভালো আছি। মনে হচ্ছে পুরোপুরি সুস্থ। সুস্থ হতে ও হারানো শক্তি ফিরে পেতে তিন-চারদিন সময় লেগেছে। এখন আর কোনো উপসর্গ নেই। সত্যি হচ্ছে আমি সুস্থ। করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সহায়তার জন্য ক্রীড়াঙ্গনের অনেকেই অনেকভাবে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তাদের দলে সামিল হয়েছেন টটেনহ্যাম হটস্পারের পর্তুগীজ কোচ জোশে মরিনহো। করোনাভাইরাস সঙ্কটে নর্থ লন্ডনে ঘরে আটকে থাকা প্রবীণ বাসিন্দাদের সহায়তার জন্য স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করছেন স্পেশাল ওয়ান। টটেনহ্যামের ট্রেনিং গ্রাউন্ডের কাছেই ‘এজ ইউকে’ ও ‘লাভ ইয়োর ডোরস্টেপ’ নামে দুটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এলাকার প্রবীণ বাসিন্দাদের সহায়তার জন্য কাজ করছে। তাদের হয়ে খাবার পার্সেল ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় রসদ প্রস্তুতের কাজে সহায়তা করছেন পর্তুগীজ লৌহমানব। স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে এগিয়ে আসার কারণ হিসেবে মরিনহো বলেন, আমি এখানে এসেছি ‘এজ ইউকে’ এনফিল্ড ও ‘লাভ ইয়োর ডোরস্টেপ’ এ্যানফিল্ডকে সাহায্য করতে। অবশ্যই আপনিও খাদ্য, অর্থ দিয়ে অথবা স্বেচ্ছাসেবী হয়ে সহায়তা করতে পারেন।