শুক্রবার ৩ আশ্বিন ১৪২৭, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

সামাজিক নিরাপত্তা

  • আবদুস সালাম

স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্রে উঁচু-নিচু, ধনী-গরিব সকলে সমান। বিশেষত দরিদ্রদের জন্য থাকার বাসস্থান, বস্ত্র, ন্যূনতম দৈনন্দিন খাবার, চিকিৎসা ও শিক্ষার দায়িত্ব রাষ্ট্রের। রাষ্ট্র তাদের জন্য আলাদা কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করে তাদের জীবন মানের উন্নতি করার পথ সৃষ্টি করে দেবে যা সাংবিধানিকভাবে বৈধ। অথচ দরিদ্ররা দেশের কায়িক শ্রমের দায়ভার নিয়েও পাচ্ছে না আবাসন সুবিধা, পর্যাপ্ত পুষ্টিমান খাবার, কঠিন শীতে বস্ত্রাদি, উপযুক্ত শিক্ষা ও চিকিৎসা। যার ফলে প্রত্যাশিত জীবন মানের উন্নতি ধীরগতির, দারিদ্র্যের হার কমছে আরও ধীর গতিতে। একদিকে ধনীদের সম্পদ আত্তীকরণ, অপরদিকে আমলাদের সঙ্গে দুর্নীতিপরায়ণ রাজনৈতিক নেতারা দেশের অর্থ সম্পদ লুটপাট ও অবৈধ ভোগ করলেও দারিদ্র্যরা রাষ্ট্রীয় সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে নানা দিক দিয়ে।

বৈশ্বিক আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে তীব্র গরম যেমন বেড়েছে তেমনি বেড়েছে শীতের প্রকোপ, শীতকালের স্থায়িত্ব কমে গেলেও বেড়েছে প্রচ-তা। নদ-নদীর আশপাশে বসবাস করা জনগোষ্ঠীর বেশিরভাগই অতি দারিদ্র্য, যারা দিন আনে দিন খায় গোছের, তিনবেলা পেটভরে যারা খেতে পারে না তারা শীতকালে ভাল জামা-কাপড় কেনার সামর্থ্য রাখে কেমন করে? তীব্র শীতে কম ও ছেঁড়া জামা-কাপড়ে আগুনের কু-লি জ্বালিয়ে পার করে দেন। অপেক্ষাকৃত বৃদ্ধ, শিশু ও নারীরা শীতের মাঝে দুর্ভোগের শিকার হন বেশি। পেটের দায়ে শীত সয়েও কাজ করে অনেক সময় নানা রোগে আক্রান্ত হয় এসব সাধারণ মানুষেরা, যাদের চিকিৎসার চিন্তাও নেহায়েত কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের কবিতার মতো, ক্ষুধার রাজ্যে পৃথিবী গদ্যময়, পূর্ণিমা চাঁদ যেন ঝলসানো রুটি।’

দরিদ্রদের শীতকালীন কঠিন জীবনযাপনের কথা চিন্তা করে বিভিন্ন দাতা সংস্থা, স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নিজ শ্রম আর হাত পেতে অর্জিত অর্থ দ্বারা তাদের শীত নিবারণের চেষ্টা করেন। যা মানবতার এক উল্লেখযোগ্য দৃষ্টান্ত। কিন্তু ছাত্র-ছাত্রীদের সাহায্য সহযোগিতা দ্বারা কি পুরো দেশের দারিদ্র্য মানুষের শীত কষ্ট শতভাগ নিবারণ করা আদৌ কি সম্ভব, সম্ভবপর নয়। মাঝে মাঝে স্বার্থ লোভী রাজনীতিবিদরা বছরে একবার কিছু কম্বল বিতরণের নামে পার্টির আয়োজন ও নামের তালিকা করেন যা শুধুমাত্র খ্যাতি আর প্রচারের জন্য মাত্র।

তবে সরকার কেন এসব জনসাধারণের দায়ভার রাষ্ট্রীয়ভাবে গ্রহণ করে দরিদ্রদের শীতকালীন কষ্ট শতভাগ নিবারণের প্রচেষ্টা করছে না? তারা দারিদ্র্য বলে কি রাষ্ট্রের জনগণ নয়? রাষ্ট্রের অর্থ দ্বারা তাদের শীত নিবারণের সুব্যবস্থা গ্রহণ করে তাদের জীবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন। সামাজিক নিরাপত্তা বাড়ান। হয়ত তারাও একদিন রাষ্ট্রের জন্য কল্যাণ বয়ে আনবে, তারা সুন্দরভাবে বাঁচলে সৌন্দর্য বাড়বে দেশের, যার ফলে হয়ত বা আমরা গাইতে পারব, ধন ধান্যে পুষ্পে ভরা, আমাদের এই বসুন্ধরা, তাহার মাঝে আছে দেশ এক সকল দেশের সেরা, যা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণে ভূমিকা রাখবে।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর থেকে

শীর্ষ সংবাদ:
আল্লামা আহমদ শফী আর নেই         পেঁয়াজ ভর্তি ট্রলার ভিড়েছে টেকনাফে         অর্থনৈতিক উন্নয়ন বেগবানে ৩৪ হাজার কোটি টাকার ফান্ড ঘোষণা এডিবির         করোনা ভাইরাসে আরও ২২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৫৪১         করোনা ভাইরাস ॥ বিশ্বব্যাপী মৃত্যু ছাড়াল সাড়ে ৯ লাখ, আক্রান্ত ৩ কোটির বেশি         অ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার অবনতি, আইসিউতে স্থানান্তর         করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় কারিগরি কমিটির ৭ পরামর্শ         বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলাদেশের নয় তিনি সারা বিশ্বের সম্পদ ॥ খাদ্যমন্ত্রী         ভিডিও কলে কথা বলে কিশোরীর ইচ্ছা পূরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী         ২০২১ হবে আরও বেশি চ্যালেঞ্জিং হবে ॥ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী         আইনের বাইরে এ শহরে কিছু করতে পারবেন না ॥ মেয়র আতিক         এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে ২৪ সেপ্টেম্বর         ফিফা র্যাংকিংয়ে আগের অবস্থানেই আছে বাংলাদেশ, একধাপ পেছালো ভারত         মোদীর মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দিলেন অকালি দলের নেত্রী হরসিমরত কউর         ভারতের এক শতাব্দী পুরনো সংসদ ভবন ভেঙ্গে নির্মাণ হবে নতুন ভবন         বাজারে করোনার ভ্যাকসিন আসার আগে অর্ধেক ‘বুকিং’ শেষ         গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য দুর্নীতি আড়ালের ব্যর্থ চেষ্টা ॥ ন্যাপ         স্বেচ্ছায় সরে দাঁড়ালেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী         এবার নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন নেতানিয়াহু         শিক্ষায় বিভক্তির ফল সামাজিক বিভক্তি ॥ রাশেদ খান মেনন