বৃহস্পতিবার ৫ কার্তিক ১৪২৮, ২১ অক্টোবর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আমতলীতে ধানের দাম কম থাকায় হতাশ কৃষকরা

আমতলীতে ধানের দাম কম থাকায় হতাশ কৃষকরা

নিজস্ব সংবাদদাতা, আমতলী, বরগুনা ॥ বরগুনার আমতলীতে আমন ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। ভালো ফলন হওয়ায় আশাবাদী হলোও বাজারে ধানের দাম কম থাকায় হতাশ কৃষকরা। কৃষকরা জানান, ধানের দাম কম থাকায় লাভবান হওয়ায় সম্ভবনা নেই। একর প্রতি গুনতে হবে ৩-৪ হাজার টাকা লোকসান। সরকারীভাবে প্রান্তিক কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয়ের দাবি জানিয়েছেন তারা। সরকার কৃষকদের কাছ থেকে যে পরিমান ধান ক্রয় করবে তাতে বাজারে এর কোন প্রভাব ফেলবে না বলে জানান ধান ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন।

আমতলী উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানাগেছে, এ বছর আমতলীতে আমন চাষের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছিল ২৩ হাজার ৪৬০ হেক্টর। এর মধ্যে উচ্চ ফলনশীল জাতের ১১ হাজার ৯৬০ হেক্টর আর স্থানীয় জাতের ১১ হাজার ৫০০ হেক্টর। এক হেক্টর জমিতে উৎপাদনের লক্ষমাত্রা গড়ে পৌনে চার মেট্রিক টন। এ লক্ষমাত্রা অর্জিত হবে বলে জানান কৃষি অফিসার সিএম রেজাউল করিম। পৌষ মাসের শুরু থেকে কৃষকরা পুরোদমে ধান কাটা শুরু করেছে। বর্তমানে তারা ধান কাটায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। এদিকে আমতলীতে সরকারীভাবে ২৬ টাকা কেজি দরে ২ হাজার ৯১ মেট্রিক টন ধান ক্রয় করবে বলে জানান ভারপ্রাপ্ত খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা রবিন্দ্রনাথ বিশ্বাস। সরকারী হিসেবে প্রতিমণ ধান ১০৪০ টাকা হলেও বর্তমানে স্থানীয় বাজারে ওইধান প্রতিমণ বিআর-১১ ধান ৪৯০, বিআর- ২৩ ধান ৫২০ ও গুটি স্বর্ণ ধান ৫০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। বাজারে ধানের দাম কম থাকায় হতাশ কৃষকরা। কৃষকরা জানান, এক একর জমিতে জমির দাম, শ্রমিক মজুরী, নিরানী, সার-ঔষধ ও লাঙ্গল খরচসহ উৎপাদন খরচ প্রায় ২০-২৫ হাজার টাকা। ওই জমিতে ধান উৎপাদন হবে প্রায় ৩৫-৪০ মণ। বাজারে প্রতিমণ ধান ৪৯০-৫২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সে হিসেবে ওই জমিতে আয় হবে ১৮-২০ হাজার টাকা। কৃষকরা আরও জানান, টাকা ও শ্রম বিনিয়োগ করে যা আয় হবে তা দিয়ে পোষায় না। এতে লোকসান গুনতে হবে। সরকারের নির্ধারিত মূল্যে ধান বিক্রি করতে পারলে লাভবান হওয়া যেত। বাজারে সরকারী ভাবে ধান ক্রয় না করায় কৃষকরা ন্যায্য মুল্য পাচ্ছে না। ফরিয়ারা ইচ্ছা মাফিক মূল্যে ধান ক্রয় করছে। আর নিরুপায় হয়ে তাদের দামেই ধান বিক্রি করতে হচ্ছে বলে জানান কৃষকরা। কৃষকরা দ্রুত সরকারী ভাবে ধান ক্রয়ের দাবী জানিয়েছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ব্যবসায়ী বলেন, সরকার কৃষকদের কাছ থেকে যে পরিমান ধান ক্রয় করবে তাতে বাজারে এর কোন প্রভাব ফেলবে না। উত্তরাঞ্চলের ফরিয়াদের ইচ্ছা মাফিক মূল্যেই কৃষকের ধান বিক্রি করতে হবে। এদিকে সরকার ও মিল মালিকরা ধান ক্রয় করছে না। এতে বাজারে ধানের দাম কম বলে জানান কৃষকরা।

মঙ্গলবার আমতলী বাঁধঘাট, তালুকদার বাজার, চুনাখালী, গাজীপুর বাজার ঘুরে দেখাগেছে, বাজারে ধানের দাম কম। প্রতিমণ বিআর-২৩ ধান ৪৯০ থেকে ৫২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ সকল বাজারে সরকারী ভাবে কেউ ধান ক্রয় করছে না।

আমতলী উপজেলা কৃষি অফিসার সিএম রেজাউল করিম বলেন, এ বছর আমন ধানের লক্ষমাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। ধানের ফলনও ভালো। কিন্তু বাজারে ধানের দামটা বেশী থাকলে কৃষকরা লাভবান হতো। তিনি আরো বলেন, সরকারীভাবে ধান ক্রয় শুরু করলে বাজারে ধানের দাম বৃদ্ধি পাবে।

শীর্ষ সংবাদ:
করোনা : ২৪ ঘণ্টায় আরও ৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৬৮         ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস         গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার ‘ক’ ইউনিটের ফল প্রকাশ         করোনা ভাইরাসে টিকা নিবন্ধনে বয়সসীমা সর্বনিম্ন ১৮ বছর নির্ধারণ         কারওয়ানবাজারে বাসচাপায় স্কুটিচালক নিহত         এসকে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে রায় বৃহস্পতিবার         জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে পান্থকুঞ্জ : মেয়র তাপস         গুজব : বদরুন্নেসা কলেজের শিক্ষিকা আটক         ডেঙ্গু : গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১১২ জন হাসপাতালে         ‘ইসলাম কখনো অন্য ধর্মের ওপর আঘাত সমর্থন করে না’         অর্থনীতির স্বাভাবিক অবস্থা ফেরাতে অনেকদূর এগিয়েছে বাংলাদেশ : অর্থমন্ত্রী         ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ নিভে গেল আজমীরের চোখের আলো         সপ্তাহে ৫ দিন চলবে ঢাকা-দিল্লি ফ্লাইট         ২৪ অক্টোবর পায়রা সেতু উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী         করোনা ভাইরাস ॥ দেশে ৩ কোটি ৭০ লাখ শিশু ঝুঁকিতে         রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৬১         ভারতের উত্তরাখাণ্ডে দুর্যোগ ॥ নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬         বিশ্বে প্রথম মানবদেহে শূকরের কিডনি প্রতিস্থাপন         বদলে যাচ্ছে ফেসবুকের নাম !         সিরিয়ায় বোমা হামলায় ১৩ সেনা সদস্য নিহত