রবিবার ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৯ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা

হেড কোচ স্টিভ রোডসকে বিদায় করে দিয়েছে বিসিবি

হেড কোচ স্টিভ রোডসকে বিদায় করে দিয়েছে বিসিবি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জাতীয় দলের ইংলিশ হেড কোচ স্টিভ রোডসের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিসিবি সঙ্গে এই কোচের চুক্তি ছিল আগামী বছর অনুষ্ঠিতব্য টি-২০ বিশ্বকাপ পর্যন্ত। কিন্তু বিদায় প্রক্রিয়া শেষ করা হয়েছে দুই পক্ষের সমঝোতার ভিত্তিতে। বিশ্বকাপ ক্রিকেট এখনও চলছে। কিন্তু বাংলাদেশের বিশ্বকাপ শেষ হয়ে গেছে। সেমিফাইনালে খেলার লক্ষ্য নিয়ে ইংল্যান্ড থেকে মাশরাফিরা ফিরেছেন ১০ দলের মধ্যে অষ্টম স্থান নিয়ে। ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে বলেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড একজন ইংলিশকে প্রধান কোচ নিয়োগ দিয়েছিল। কিন্তু তাতে খুব একটা লাভ হয়নি। প্রত্যাশিত লক্ষ্য অর্জনে ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় দল। আসরে তেমন সুবিধা অর্জন করতে পারেনি দল। এমনটাই মনে করছে দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা বিসিবি। আর এ কারণে রোডসকে কোচ হিসেবে রাখা সমীচীন নয় বলে মনে করছে বোর্ড।

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের শেষ ম্যাচের পরই গুঞ্জন শুরু হয়েছিল রোডস কোচ হিসেবে থাকবেন কি থাকবেন না। শেষতক সেই রহস্যের হিসেব চুকিয়ে দিয়েছে ক্রিকেট বোর্ড। সোমবার রাতে বিসিবির সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন আনুষ্ঠানিকভাবে স্টিভ রোডসকে জানিয়ে দিয়েছেন তাকে আর রাখা হবে না। বিসিবির মিডিয়া কমিটির শীর্ষ কর্মকর্তা জালাল ইউনুস জানান রোডসের বিদায়ের বিষয়টি দুই পক্ষের সমঝোতার ভিত্তিতে হয়েছে। এখানে ভুল বুঝাবুঝির অবকাশ নেই। আমরা ইংলিশ কোচকে বরাখাস্ত করিনি। বিশ্বকাপের সার্বিক পরিস্থিতি বিশ্লেষণ পরবর্তী তাকে না রাখার কথাই কেবল জানিয়ে দেয়া হয়েছে। বিসিবির এই সিদ্ধান্ত আমার মনে হয় সাদরে গ্রহণ করেছেন কোচ, বলেন জালাল ইউনুস।

স্টিভ রোডসকে কোচ হিসেবে নিয়োগ দেয়ার সময়ই চুক্তি ছিল ‘বিশ্বকাপের পর তার পারফরমেন্সের বিচার-বিশ্লেষণ করে বিসিবি যে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারবে। চুক্তির সেই ধারা অনুযায়ী বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন রোডসের সাঙ্গে দীর্ঘ সময় আলোচনা পরবর্তী সমঝোতার ভিত্তিতে তার সঙ্গে যে চুক্তি ছিল তা আর নবায়ন না করে বাতিলের কথা জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ জাতীয় দলের সঙ্গে স্টিভ রোডস ইংল্যান্ড থেকে ঢাকায় ফেরার পর একদিনের মধ্যেই তার সঙ্গে চুক্তি বাতিলের বিষয়টি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপির নির্দেশেই হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য কেবল স্টিভ রোডসই নন। পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ ও স্পিন কোচ সুনীল যোশিও সম্ভবত থাকছেন না। ওয়ালশ বর্তমানে ইংল্যান্ডে অবস্থান করছেন। ফাইনাল পর্যন্ত তিনি সেখানেই থাকবেন বলে মনে করা হচ্ছে। ইংল্যান্ডে বসে ক্যারিবীয় কিংবদন্তী ওয়ালশ অবশ্য একটি বিদেশী পত্রিকায় দেয়া সাক্ষাতকারে বলেছেন, তিনি আর বাংলাদেশের দায়িত্বে থাকতে চান না। অবশ্য তার থাকা না থাকা পরের ব্যাপার। স্বেচ্ছায় তার সরে যাওয়ার চেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে বিসিবি আদৌ তাকে রাখবে কিনা সময়ই ভাল বলতে পারবে। এখন সার্বিক পরিস্থিতি প্রমাণ করছে পুরো কোচিং স্টাফই নতুন করে সাজাতে হবে বিসিবিকে। আর সেই পথেই হাঁটছে বিসিবি।

শীর্ষ সংবাদ: