সোমবার ১২ আশ্বিন ১৪২৭, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

যশোরে গৃহবধূ হত্যার পরিকল্পনাকারী ধরাছোঁয়ার বাইরে

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ বাঘারপাড়ার পান্তাপাড়া গ্রামে গৃহবধূ জিনিয়া ইয়াসমিন তুলি হত্যায় তার দেবর শাহাবুদ্দিন আটক হলেও পরিকল্পনাকারী স্বামী জুলফিকার, শাশুড়ি ফরিদা ও ননদ সুরাইয়াকে আটক করা হচ্ছে না। উল্টো জুলফিকার তুলির বাবা-মাকে বিভিন্ন হুমকি-ধমকি দিচ্ছে বলে রবিবার যশোর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তুলির বাবা শহিদুল ইসলাম অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, ২০১১ সালে ৮ জুলাই বাঘারপাড়া উপজেলার পান্তাপাড়া গ্রামের জুলফিকারের সঙ্গে তার মেয়ে তুলির বিয়ে হয়। জুলফিকার বর্তমানে ঢাকায় বিমানবাহিনীতে কর্পোরাল হিসেবে কর্মরত। জুলফিকারের পিতা একজন ভ্যানচালক ছিলেন। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের দাবিতে তার মেয়ের ওপর নির্যাতন শুরু হয়। মেয়েকে সুখে রাখতে তিনি সাড়ে তিন লাখ টাকাসহ আসবাবপত্র দেন। ২০১২ সালে বিয়ের তথ্য গোপন রেখে জুলফিকার বিমানবাহিনীতে চাকরি নেয়। চাকরির সময়ও তিনি বড় অঙ্কের টাকা দেন তাকে। চাকরি পাওয়ার পর জুলফিকার তার মেয়েকে নিয়ে ঢাকার বালুঘাটে ভাড়া থাকত। তাদের সংসারে দুই ছেলে সন্তান হয়। জুলফিকার গোপনে আরও একটি বিয়ে করে। এরপর তার মেয়ের ওপর অত্যাচার শুরু হয়। একপর্যায়ে কৌশলে জুলফিকার তার মেয়েকে গ্রামে পাঠিয়ে দেয়। জুলফিকারের নির্দেশে তার ভাই শাহাবুদ্দিন, মা ফরিদা ও ছোট বোন সুরাইয়া তার মেয়ের ওপর অত্যাচার শুরু করে। ১২ এপ্রিল মেয়েকে চরম মারধর করলে তিনি মেয়ে ও তার ছোট ছেলেকে নিজের বাড়িতে আনেন। ১৩ এপ্রিল তুলির শ্বশুর বাড়ি থেকে খবর দেয়া হয় তার বড় ছেলে খুবই অসুস্থ। শহিদুল খবর পেয়ে ওই দিনই মেয়েকে নিয়ে পান্তাপাড়া যান। ওই দিন রাতে বিদ্যুত ছিল না। জুলফিকার ফোনে তার মার সঙ্গে কথা বলছিল। এরপর তার মেয়েকে কৌশলে তার শাশুড়ি অন্য ঘরের ডেকে দরজা আটকে দেয়। ঘরের ভেতরে জুলফিকারের ছোট ভাই শাহাবুদ্দিন তার মেয়েকে কোপাতে থাকে। তুলির পিঠে ৯টি, পেটে ২টিসহ অন্যান্য স্থানে ১৪টি কোপ দেয়া হয়। মেয়ের চিৎকারের প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে তাদের সহযোগিতায় যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে ঢাকায় নেয়ার প্রস্তুতিকালে তার মৃত্যু হয়। মেয়ের মৃত্যুতে তিনি জুলফিকার, তার ভাই শাহাবুদ্দিন, মা ফরিদা ও বোন সুরাইয়ার নামে মামলা করেছেন। কিন্তু পুলিশ শুধু শাহাবুদ্দিনকে আটক করেছে। অন্য আসামিরা ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছে। উল্টো তার পরিবারকে জুলফিকার হুমকি-ধমকি দিচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন তুলির মা ছকিনা বেগম, বড় ভাই নূর মোহাম্মদ, ছোট ভাই নূর আলম, চাচাতো ভাই শরিফুল ইসলাম ও মামী সালমা বেগম।

শীর্ষ সংবাদ:
উন্নয়নের কান্ডারি শেখ হাসিনার জন্মদিন আজ         এ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর নেই         শেখ হাসিনার জীবন সংগ্রামের ॥ তথ্যমন্ত্রী         স্বামীর জন্য রক্ত জোগাড়ের কথা বলে ধর্ষণ, দুজন রিমান্ডে         ডোপ টেস্টে আরও ১৪ পুলিশ শনাক্ত         চীনা ভ্যাকসিনের ঢাকা ট্রায়াল নিয়ে সংশয়         দেয়াল চাপায় সাত জনের মৃত্যু         করোনায় মৃত্যু কমলেও বেড়েছে নতুন রোগী         অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক         অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর নেই         উন্নয়নে প্রতিবেশীদের সঙ্গে আরও দৃঢ় সহযোগিতায় জোর প্রধানমন্ত্রীর         সিলেটের ঘটনায় সরকার কঠোর অবস্থানে আছে ॥ কাদের         ভার্চুয়াল কোর্টেকে আরো সাফল্য মন্ডিত করতে বিচারক ও আইনজীবীদের প্রশিক্ষণ প্রয়োজন ॥ আইনমন্ত্রী         নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ ॥ নিহত ও আহত ৩৮ পরিবারের মাঝে ৫ লাখ টাকা করে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান বিতরণ         স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতি ॥ বন্ধ করতে দুদকের ২৫ সুপারিশ বাস্তবায়নে রিট         ‘অক্সফোর্ডের বাংলাদেশে পাঁচ লাখ মানুষের মৃত্যুর আশঙ্কা ভুল প্রমাণিত হয়েছে’         এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গণধর্ষণের শিকার গৃহবধূর আদালতে জবানবন্দি         এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ ॥ সাইফুরের পর অর্জুন গ্রেফতার         করোনা ভাইরাস ॥ ভারতে সংক্রমণ ৬০ লাখ ছুঁই ছুঁই         ধর্ষনের ঘটনায় ভিপি নূরসহ সকল আসামী ঢাবিতে অবাঞ্চিত