ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯

এ্যামনেস্টির প্রতিবেদনে ভেনিজুয়েলার নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ

বিক্ষোভকারীদের শাস্তি দিচ্ছে

প্রকাশিত: ১২:২৫, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

বিক্ষোভকারীদের শাস্তি দিচ্ছে

ভেনিজুয়েলায় নিরাপত্তা বাহিনী প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোবিরোধী বিক্ষোভকারীদের শাস্তি দেয়ার লক্ষ্যে এক অভিযানে কয়েকজনের মৃত্যুদ- কার্যকর করেছে এবং শত শত লোককে অযৌক্তিকভাবে আটক করেছে। মানবাধিকার গ্রুপ এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বুধবার এ কথা বলেছে। - খবর আলজাজিরা অনলাইনের। ‘ভেনিজুয়েলায় দমন পদ্ধতি ক্ষুধা, শাস্তি ও ভীতি’ শীর্ষক এক রিপোর্টে এ্যামনেস্টি বলেছে, ২১ জানুয়ারি থেকে ২৫ জানুয়ারি এ ৫দিনের বিক্ষোভে কয়েক ডজন নিহত হয়েছে এবং গ্রেফতার করা হয়েছে ৯শর বেশি লোককে। যারা মারা গেছে তাদের মধ্যে প্রায় সবাই গুলিতে আহত হয়ে মারা গেছে। এ্যামনেস্টি মানুষকে এ শাস্তি থেকে সম্পূর্ণভাবে অব্যাহতি দেয়ার লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। বিরোধী দলীয় নেতা হুয়ান গুয়েইদো সরকারে পরিবর্তনের জন্য ভেনিজুয়েলীয়দের প্রতি আহ্বান জানালে এ সাম্প্রতিক বিক্ষোভের সূচনা হয়। মাদুরো এর আগে গত বছর নির্বাচনের পর দ্বিতীয় মেয়াদে শাসন শুরু করেন। ওই নির্বাচনে ব্যাপকভাবে ভোট ডাকাতি হয়েছে বলে মনে করা হয়। গুয়েইদো ২৩ জানুয়ারি অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণে শাসনতন্ত্রের সাহায্য নেন। মাদুরো তার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের নির্দেশে অভ্যুত্থান নেতৃত্বের জন্য গুয়েইদোকে অভিযুক্ত করেন। এ্যামনেস্টিতে আমেরিকার পরিচালক এরিকা গুয়েভারা- রোজাস বলেন, যারা পরিবর্তন চাইছে তাদের বিরুদ্ধে সামাজিক নিয়ন্ত্রণে ঘৃণ্য কৌশল আরোপের জন্য ভীতি ও শাস্তি ব্যবহারের চেষ্টা করছে নিকোলাস মাদুরোর সরকার। তার সরকার অত্যন্ত দরিদ্র ও নিঃস্ব লোকদের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে। সরকারের দাবি, জনগণকে রক্ষা করা হচ্ছে। কিন্তু পরিবর্তে চলছে তাদের বিরুদ্ধে হত্যা, আটক ও হুমকি। এ বিষয়ে মন্তব্য করার অনুরোধ জানানো হলে ভেনিজুয়েলার তথ্য মন্ত্রণালয় জবাব দিতে অস্বীকার করেছে। এ্যামনেস্টি বলেছে, রাষ্ট্রীয় কর্তৃপক্ষ সামাজিক নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি হিসেবে বিচার –বহির্ভূত হত্যাকা- ঘটাচ্ছে। এ্যামনেস্টি বলে, জানুয়ারির শেষ দিকে বিক্ষোভে গুলিতে ৪১ জনের প্রাণহানি হয়েছে।