ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

এপারে ডালিয়া পানিশূন্য

গজলডোবার উজানে তিস্তা পানিতে টইটম্বুর

প্রকাশিত: ০৯:১৯, ৩০ জানুয়ারি ২০১৯

গজলডোবার উজানে তিস্তা পানিতে টইটম্বুর

তাহমিন হক ববী, গজলডোবা থেকে ফিরে ॥ বাংলাদেশের নীলফামারীর ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তা নদীর পানি প্রবাহ অব্যাহতভাবে কমতে শুরু করেছে। বাংলাদেশ অংশে শুকিয়ে গেলেও ভারতের জলপাইগুড়ির গজলডোবা পয়েন্টের নদীতে অথৈই পানি। গত ১৫ জানুয়ারি হতে বাংলাদেশের অংশের তিস্তা নদীতে ৫ হাজার কিউসিক পানি প্রবাহে দেশের সর্ববৃহৎ তিস্তা ব্যারাজ প্রকল্প উত্তরের নীলফামারী, রংপুর ও দিনাজপুর জেলার সাড়ে ২৯ হাজার হেক্টর জমিতে রবি ও খরিপ-১ মৌসুমের সেচ নির্ভর বোরো আবাদে কৃষকদের পানি দেয়া শুরু করেছিল। মঙ্গলবার তিস্তার পানি কমে এসেছে দাঁড়িয়েছে দেড় হাজার কিউসেকে। অব্যাহতভাবে পানি কমছেই। বাংলাদেশের তিস্তা ব্যারাজ সংশ্লিষ্টরা মনে করেছিলেন উজান হতে নেমে আসা ৫ হাজার কিউসেকের ওপর ভর করে হয়তো ৫০ হাজার হেক্টর জমিতে সেচ দিতে পারবে। এখন দিন দিন নদী শুকিয়ে যাওয়ার কারণে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী সেচ দেয়া সম্ভব হবে কিনা তাও ভাবিয়ে তুলছে। গত চারদিন পূর্বে ভারতের উত্তরবঙ্গের গজলডোবা এলাকার তিস্তা নদীতে সরেজমিনে ঘুরে আসা হয়। সেখানে স্পষ্ট দেখা গেছে গজলডোবা ব্যারেজের দৈর্ঘ্য ৯২১ দশমিক ৫৩ মিটার। এতে জলকপাট রয়েছে ৪৫টি। প্রতিটির দৈর্ঘ ১৮ দশমিক ২৫ মিটার। এর দুই ধারে লিঙ্ক তৈরি করে গজডোবার তিস্তার উজানের পানি ভারতের বিভিন্ন ক্যানেলের মাধ্যমে স্রোত ঘুরিয়ে সেচ কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এমনকি নদীর পানি ওভারহেড ট্যাঙ্কে শোধন করে জলপাইগুড়ি ও শিলিগুড়িতে সাপ্লাই দেয়া হচ্ছে।
monarchmart
monarchmart