বৃহস্পতিবার ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

স্বপ্ন ভেঙ্গে চৌচির ফুটবলার শরীফের!

রুমেল খান ॥ বাংলাদেশের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী ফুটবল দল হচ্ছে মোহামেডান। যদিও তাদের আর আগের মতো ধার-ভার-শক্তি আর নেই। শেষবার লীগ জিতেছে সেই ২০০২ সালে।

তবে বিভিন্ন ঘরোয়া আসর এবং বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্টগুলোতে মাঝে মধ্যেই ঝলসে ওঠে সাদা-কালোরা। ফেডারেশন কাপে মোহামেডান সর্বশেষ জিতেছে ২০০৯ সালে। এই দলের হয়ে ক্যারিয়ারের অর্ধেক সময়ই (নয় বছর) খেলেছেন কুমিল্লার ছেলে এনামুল হক শরীফ। বয়সটা হয়ে গেছে ৩৬, কিন্তু ফর্ম-ফিটনেস এখনও অনেক তরুণ ফুটবলারের চেয়ে ভাল। সেই শরীফের স্বপ্ন ছিল আসন্ন ফেডারেশন কাপ খেলে দলকে শিরোপা জেতাতে সাহায্য করা। কিন্তু তার সেই স্বপ্ন ভেঙ্গে চৌচির হয়ে গেছে। খেলতে পারবেন না ফেডারেশন কাপে (শুরু হবে ২৭ অক্টোবর থেকে)। প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে গিয়ে হাঁটুতে চোট পেয়েছেন জাতীয় দলের সাবেক এই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার।

লড়াকু ফুটবল খেলে সমর্থকদের কাছে টাইগার উপাধি লাভ করেন ২০০৭ সালে। সেই থেকে এখনও সবাই তাকে চেনে ‘টাইগার শরীফ’ নামেই! মঙ্গলবার জনকণ্ঠের সঙ্গে একান্ত আলাপনে শরীফ জানান, ‘বুয়েট মাঠে গত রবিবার মোহামেডান একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে। বিপক্ষ দল ছিল আরামবাগ। সেই ম্যাচে বা হাঁটুতে চোট পাই বাজেভাবে। এক্সরে এখনও করা হয়নি। তবে প্রাথমিকভাবে চিকিৎসক জানিয়েছেন আসন্ন ফেডারেশন কাপে খেলা হবে না আমার। কারণ চোট সারতে কমপক্ষে ৩ সপ্তাহ লাগবে।’

শরীফের চোট পাবার ধরনটা বেশ অদ্ভুতই। বিপক্ষ দলের কোন খেলোয়াড় তাকে আঘাত করেনি। তাহলে? ‘বুয়েট মাঠের ঘাস বেশ লম্বা। একপর্যায়ে দৌড়াতে গিয়ে লম্বা ঘাসে আমার বুট আটকে যায়। তখন ভারসাম্য হারিয়ে মাটিতে হুমড়ি খেয়ে পড়ি। আর হাঁটুতে প্রচ- ব্যথা পাই।’

মোহামেডানের হয়ে এর আগে দু’বার ফেডারেশন কাপের শিরোপা জিতেছেন। সংখ্যাটি এবার তিন হতো কিনা, সেটা না জানলেও এবার এই আসরে খেলার খুব ইচ্ছা ছিল ক্যারিয়ারে মোট ৫টি ফেডারেশন কাপের শিরোপা জেতা (শেখ জামালের হয়ে ২টি ও শেখ রাসেলের হয়ে ১টি) শরীফের। সেই ইচ্ছের সলিল সমাধি ঘটায় খুবই বিষণœ ও হতাশ তিনি, ‘ফেডারেশন কাপ খেলতে পারব না বলে খুবই খারাপ লাগছে। সবাই সান্ত¡না দিচ্ছে। কিন্তু মন মানছে না। আশাকরি দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠে প্রিমিয়ার লীগে খেলতে পারব।’

দীর্ঘ ১৮ বছরের ক্যারিয়ার শরীফের। খেলেছেন ভিক্টোরিয়া, মোহামেডান, জামাল ও রাসেলে। অধিনায়ক ছিলেন ২০১১ সালে মোহামেডান এবং ২০১২ সালে জামালের হয়ে। লীগ রানার্সআপ হয়েছেন ৪ বার (মোহামেডানে ৩ বার, জামাল ১ বার) আর লীগ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ১ বার (জামাল)।

২০০৬-২০১১ সাল পর্যন্ত জাতীয় দলে নিয়মিত খেলেছেন। এরপর ইনজুরির কারণে ২০১২-১৪ পর্যন্ত ফুটবল খেলেননি। ২০১৫-১৬ সালে পুনরায় কামব্যাক করেন। তার আক্ষেপÑ জাতীয় দলের অধিনায়ক হতে না পারা, ‘২০১২ সালে চোট না পেলে জাতীয় দলের অধিনায়ক হতে পারার জোর সম্ভাবনা ছিল আমার।’

‘টাইগার’ শরীফের নতুন আক্ষেপ চোটের কারণে আসন্ন ফেডারেশন কাপ মিস করা। তবে তিনি চোট সারিয়ে প্রিমিয়ার লীগে মাঠ মাতাবেন, সেটাই সাদা-কালো অনুরাগীদের নিগূঢ় প্রত্যাশা।

শীর্ষ সংবাদ:
২০ আসামির মৃত্যুদণ্ড ॥ চাঞ্চল্যকর আবরার হত্যা মামলা         অনেক উদারতা দেখিয়েছি, আর কত?         কপ্টার দুর্ঘটনায় বিপিন রাওয়াতসহ ১৪ জন নিহত         রায় দ্রুত কার্যকর চান বুয়েট ভিসি         মুরাদের অশালীন বক্তব্যের ২৭২ ভিডিও চিহ্নিত         ওষুধেও পিছিয়ে নেই, ৯৮ ভাগ দেশেই তৈরি হচ্ছে         ৫০ বছরে বাংলাদেশের অর্জন সারাবিশ্বে প্রশংসিত ॥ অর্থমন্ত্রী         খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে বিদেশে পাঠানো প্রয়োজন ॥ ফখরুল         নেপাল ভুটানে জলবিদ্যুত উৎপাদন করে উপকৃত হতে পারে ঢাকা-দিল্লী         ছয় মাস ধরে খোঁজ নেই সাবেক এমপি করিম উদ্দিন ভরসার         ট্রেনে কাটা পড়ে ৩ ভাই-বোনসহ চারজনের মৃত্যু         জাপানে রফতানি বেড়েছে ১৩ শতাংশ         তিনদিন ধরে খুঁজছি পাচ্ছি না আমার কলিজারে         শীত মৌসুমের চিরন্তন লোককাল শুরু         ফোর্বসের প্রভাবশালী নারীর তালিকায় ৪৩তম শেখ হাসিনা         খুব শীঘ্রই খালেদার বিদেশে চিকিৎসার বিষয়ে সিদ্ধান্ত : আইনমন্ত্রী         ভারতের প্রতিরক্ষাপ্রধানকে নিয়ে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩         করোনা : একদিনে ৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৭৭         স্কুলে ভর্তির আবেদনের সময় বাড়ালো মাউশি         বিশ্বের কোনও গণতন্ত্রই নিখুঁত নয় : শিক্ষামন্ত্রী