সোমবার ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা

নবেম্বরে শুরু হচ্ছে জাতীয় আয়কর মেলা

  • অনুষ্ঠিত হবে আটটি বিভাগীয় শহরসহ ১৬৬ জায়গায়

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ১৩ নবেম্বর থেকে আটটি বিভাগীয় শহরসহ মোট ১৬৬টি জায়গায় শুরু হচ্ছে নবম জাতীয় আয়কর মেলা। গেল মেলায় সাধারণ করকার্ড দিয়ে চমক দেয়ার চেষ্টা করা হলেও ব্যবস্থাপনার সমস্যার কারণে এবার মেলায় করকার্ড দেবে না এনবিআর।

এদিকে দুই বছর পর ঢাকার আয়কর মেলা আবারও ফিরে আসছে বেইলী রোডের অফিসার্স ক্লাব প্রাঙ্গণে। বিশ্লেষকরা বলছেন, অনেক অর্থ ব্যয়ে আয়কর মেলা করা হলেও বিপুলসংখ্যক বড় করদাতা রয়ে যাচ্ছে কর জালের বাইরে।

ডিসেম্বরে হবে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। তাই বলা যায়, অনেকটা নির্বাচনী পরিবেশেই অনুষ্ঠিত হবে এবারের আয়কর মেলা। এদিকে পরিসর বাড়াতে ২০১৬ থেকে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নতুন রাজস্ব ভবনে এই মেলার আয়োজন করা হলেও বন্ধ থাকা নির্মাণ কাজ পুনরায় শুরু হওয়ায় ঢাকার কর মেলা আবারও ফিরছে অফিসার্স ক্লাবে। বরাবরের মতো এবারও মেলায় থাকছে ওয়ানস্টপ সেবা। তবে গত বছর মেলায় বিপুল অর্থ খরচ করে করদাতাদের করকার্ড দেয়া হলেও এনবিআরের কর্মকর্তারাই স্বীকার করেছেন এই কার্ডের কোন ব্যবহারিক উপযোগিতা নেই। তাই এবার আর দেয়া হচ্ছে না করকার্ড। মেলা কমিটির সমন্বয়ক সদস্য (এনবিআর) জিয়াউদ্দিন মাহমুদ জানান, ‘সবচেয়ে বড় সংযোজন হচ্ছে মেলার সারা দিনব্যাপী বিভিন্ন ধরনের কর শিক্ষণ পদ্ধতি চালু থাকবে।’

গত কয়েক বছরে আয়কর মেলা উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত বিস্তৃত হলেও বিশ্লেষকরা বলছেন, কর ফাঁকি রোধে কার্যকর পদক্ষেপ না থাকায় প্রত্যাশা অনুসারে করদাতা ও কর আহরণ বাড়ছে না। এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ বলেন, ‘যিনি কর দিচ্ছে তিনি অল্প দিচ্ছে। ফাঁকি দিচ্ছে। আর এক ধরনের করদাতা রয়েছে সে করদাতা হচ্ছেই না।’

কর আইনজীবীদের অভিযোগ, মেলায় তড়িঘড়ি করে রিটার্ন জমা দেয়ায় কারণে ফর্ম পূরণে অনেক ভুল থেকে যাচ্ছে। এতে পরে অডিটে হয়রানি শিকার হচ্ছেন করদাতারা। বাংলাদেশ ট্যাক্স লইয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মনিরুল হুদা বলেন, ‘বহু ফাইল ট্রাইব্যুনালে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এমনভাবে তড়িঘরি করে পূরণ করা হয়েছে পরে মানুষ হয়রানি হয়।’ তাই কর অফিসগুলোতে হয়রানিমুক্ত ও করদাতা বান্ধব পরিবেশ তৈরির পরামর্শ সংশ্লিষ্টদের। সর্বশেষ মেলায় রিটার্ন দাখিল করেছিলেন তিন লাখ ৩৫ হাজার করদাতা।

শীর্ষ সংবাদ: