রবিবার ৪ আশ্বিন ১৪২৭, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

বিতর্ক নিয়ে ভিয়েতনামে মাহাথির আনতারা

‘হ্যানয় এশিয়ান ব্রিটিশ পার্লামেন্টারি ২০১৮’ শিরোনামে এশীয় দেশগুলোর মধ্যে স্কুল পর্যায়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হচ্ছে ৭-১১ সেপ্টেম্বর, ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়তে। প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ থেকে অংশগ্রহণ করছেন মাহাথির মাহাম্মুদ ও আনতারা ফারনাজ খান। দু’জনেই একাডেমিয়া ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র। ব্রিটিশ পার্লামেন্টারি সিস্টেমে আয়োজিত এ প্রতিযোগিতায় প্রতিটি দলে সদস্য থাকছে দু’জন করে। প্রতিটি পর্বে অংশ নেবে ৪টি টিম। পদ্ধতিগত দিক থেকে ওপেনিং গবর্নমেন্ট, ক্লেজিং গবর্নমেন্ট, ওপেনিং অপোজিশন ও ক্লোজিং অপোজিশনে অনুষ্ঠিত হবে এ বিতর্ক।

ইংরেজী মাধ্যমে যারা বিতর্ক করেন তাদের মধ্যে মাহাথির-আনতারা পরিচিত মুখ। দু’জনেরই জন্ম, বেড়ে ওঠা ঢাকাতে। দু’জনেই পছন্দ করেন কথা বলতে, আর তা যদি যুক্তির মাধ্যমে সত্য উপস্থাপন হয় তাহলে পছন্দের মাত্রা যায় আরও বেড়ে। শৈশব থেকেই বিতর্কে সমান আগ্রহ দু’জনের। অর্জনের ঝুলিটাও বেশ ভারি।

একজন ভাল বিতার্কিক হয়ে উঠতে মাহাথির মনে করেন, প্রথমেই প্রয়োজন প্রচুর পড়াশোনা অর্থাৎ জানা এবং নিজের বক্তব্য যৌক্তিকভাবে গুছিয়ে উপস্থাপন। থাকতে হবে আত্মবিশ্বাস, জ্ঞান এবং যুক্তির আলোয় আলোকিত মন। তর্কের খাতিরে তর্ক নয় আস্থা রাখতে হবে যুক্তিতে। তারা দু’জনেই বিশ্বাস করেন, যুক্তি চর্চার মাধ্যমে বেড়ে ওঠা বিতার্কিকরা আলোকিত সমাজ গঠনে, রাষ্ট্র পরিচালনায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। বিষয়টি সারা বিশ্বেই আজ স্বীকৃত। মাহাথিরের মতে, প্রযুক্তি পৃথিবীকে হাতের মুঠোয় এনে দিলেও, আমাদের চিন্তার ক্ষেত্র সীমাবদ্ধ হয়ে আসছে। তথাকথিত সোশ্যাল মিডিয়াতে আমরা স্ক্রল করে যাই কিন্তু চিন্তা করা, বিষয়ের গভীরে প্রবেশ করা বা নিজের আইডিয়াকে চ্যালেঞ্জ করার সুযোগ থাকে কম। একজন বিতার্কিক প্রথমে নিজের ভাবনাকে চ্যালেঞ্জ করেন তারপর যুক্তির আলোয় সত্য প্রতিষ্ঠা। আমাদের দেশে বিতর্কের অবস্থা নিয়ে আনতারা বলেন, দেশে বর্তমানে বিতর্কের অবস্থা তেমন ভাল নয়। স্কুলগুলো এ ব্যাপরে তেমন সময় দিতে চায় না। অভিভাবকরা ভাবেন দুই ঘণ্টা বিতর্ক না করে কোচিং করলে বা পড়ালেখায় আরও বেশি মনোযোগী হলে তার সন্তান আরও ভাল রেজাল্ট করত। দু’দিকের চাপে বিতর্ক করার ইচ্ছাটাই হারিয়ে যায়। এর মাঝেও যারা বিতর্ক নিয়ে এগিয়ে যেতে চায় তাদের নিজেদের ইচ্ছা থেকে, কষ্ট করে তা করতে হয়। আমাদের আগে বুঝতে হবে একাডেমিক শিক্ষাই সব নয়, প্রতিযোগিতার এই সময়ে টিকে থাকতে হলে অন্যান্য বিষয়েও সমান মনোযোগী হতে হবে। বাইরের দেশে বিতর্ক করার যে সব সুযোগ আছে তা আমাদের দেশে প্রচলন করতে হবে। বিতর্ক মানুষের মাঝে সহনশীলতা এবং পরমতসহিষ্ণুতা বাড়িয়ে তাকে আরও আত্মবিশ্বাসী করে তার সঠিক লক্ষ্যে পৌঁছাতে অনেক বেশি সহায়ক। তাই আরও বেশি করে বিতর্ক চর্চার ওপর জোর দেয়া উচিত বলে মনে করেন মাহাথির এবং আনতারা। শিক্ষার্থীদের বিতর্কমুখী করার জন্য মাহাথির বলেন স্কুল পর্যায়ে আরও বেশি সুযোগ-সুবিধা দিতে হবে। বিতর্ক শেখানোর জন্য থাকবে শিক্ষক অথবা কোচ। থাকবে ডিবেট আয়োজক কমিটি। আমাদের দেশের ছেলেমেয়েরা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করছে। তবে সেখানে অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে অর্থ একটি বড় সমস্যা। আমাদের অনেক মেধাবী বিতার্কিক আছেন যারা পৃথিবীর যে কোন পর্যায়ে বিতর্কে যোগ্যতার স্বাক্ষর রাখতে সক্ষম। কিন্তু আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে তারা সেখানে অংশগ্রহণ করতে পারছেন না। এ দিক থেকে আমরা ভাগ্যবান নন্দন পার্ক এবং হোটেল ওয়েস্টিনের মতো দুটি প্রতিষ্ঠান এবার আমাদের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের ব্যয় নির্বাহ করতে এগিয়ে এসেছে। আমাদের দেশে অনেক দেশী-বিদেশী বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান আছে তারা যদি বিতার্কিকদের সমর্থনে এগিয়ে আসেন তাহলে বিশ্বসভায় অনেকেই দেশের মুখ উজ্জ্বল করতে পারবেন বলে আমি বিশ্বাস করি। এ বিষয়ে আনতারা বলেন বিতর্কের ওপর আরও বেশি কর্মশালা ও সেমিনার হওয়া উচিত। দু’জনেই স্বপ্ন দেখেন ২০১৯ সালে শ্রীলঙ্কায় ওয়ার্ল্ড স্কুল ডিবেটিং চ্যাম্পয়নশিপ প্রতিযোগিতায় চূড়ান্ত পর্বে অংশগ্রহণ ও বিজয়ী হয়ে দেশের মুখ উজ্জ্বল করতে।

ডিপ্রজন্ম ডেস্ক

শীর্ষ সংবাদ:
নির্দিষ্ট এলাকার বাইরে কল কারখানা নয়         তিন বন্দর দিয়ে ভারতে আটকে থাকা পেঁয়াজ আসা শুরু         দুর্নীতির বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান অব্যাহত রয়েছে ॥ কাদের         কওমি বড় হুজুর আল্লামা শফীকে চিরবিদায়         ওষুধ খাতের ব্যবসা রমরমা         করোনার নমুনা পরীক্ষা ১৮ লাখ ছাড়িয়েছে         করোনা সংক্রমণ বাড়ছে ॥ ফের লকডাউনে যাচ্ছে ইউরোপ         বিশেষ মহলের ইন্ধন-ভাসানচরে যাবে না রোহিঙ্গারা         তুলা উৎপাদনে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার         দগ্ধ আরও দুজনের মৃত্যু, তিতাসের গ্রেফতার ৮ জন দুদিনের রিমান্ডে         শিক্ষার ক্ষতি পোষাতে বিশেষ প্রকল্প আগামী মাস থেকেই ॥ করোনায় সব লণ্ডভণ্ড         আর কোন জিকে শামীম নয় ॥ গণপূর্তের দৃশ্যপট পাল্টেছে         ব্যক্তিগত ও পারিবারিক দ্বন্দ্বই অধিকাংশ খুনের কারণ         এ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার উন্নতি         বর্তমান সরকারের আমলে রেলপথে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে : রেলপথমন্ত্রী         ইউএনও ওয়াহিদা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে বদলী, স্বামী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে         সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল পরিচালকের রুম ঘেরাও         চিরনিদ্রায় শায়িত হেফাজত আমির আল্লামা আহমদ শফী         সবচেয়ে কঠিন সময় পার করছি ॥ মির্জা ফখরুল         করোনা ভাইরাস ॥ ভারতে একদিনে ১২৪৭ জনের মৃত্যু