ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১

পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট, গাড়ি ভাংচুর

বিএনপির কর্মসূচীতে ধাওয়া পাল্টাধাওয়া লাঠিচার্জ

প্রকাশিত: ০৫:৫০, ২৪ এপ্রিল ২০১৮

বিএনপির কর্মসূচীতে ধাওয়া পাল্টাধাওয়া লাঠিচার্জ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ পুলিশের বাধা প- হয়ে গেল বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচী। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির পক্ষ থেকে এই বিক্ষোভ কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়। সোমবার পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচী পালনের সময় পুলিশের বাধার সম্মুখীন হয়। এ সময় উভয় পক্ষে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া এবং লাঠিচার্জের ঘটনা ঘটে। পুলিশি বাধার মুখে পড়ে বিক্ষোভ কর্মসূচী থেকে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছোড়া হয়। পুলিশের একটি গাড়ি ভাংচুর করা হয়। শেষ পর্যন্ত পুলিশের প্রতিরোধের মুখে ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে মিছিলকারীরা। ঘটনাস্থল থেকে কয়েকজনকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির উদ্যোগে বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে আজাদ প্রোডাক্টের সামনে থেকে বিক্ষোভ শুরু হয়। জাতীয় মসজিদের কাছে আজাদ প্রোডাক্টের গলি থেকে মিছিলটি দৈনিক বাংলা মোড়ের পথে ফটো জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশনের কাছে পৌঁছালে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে। তখন উভয়পক্ষে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া শুরু হয়। মিছিল শুরু পাঁচ মিনিটের মধ্যে ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ। ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মতিঝিল বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার শিবলী নোমান বলেন, পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই তারা মিছিল বের করে। আচমকা গাড়ি ভাঙচুর করে ও পুলিশের ওপর হামলা চালায়। ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে। এর আঘাতে তিনিসহ কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা আহত হন। পরে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এই ঘটনায় কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপি পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয়ভাবে ৮ দিনের কর্মসূচী ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে সোমবার ছিল কর্মসূচীর দ্বিতীয় দিন। এদিনে ঢাকা মহানগর বিএনপির পক্ষ থেকে বিক্ষোভ মিছিলের পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচী ছিল। মিছিলে বিএনপির নেতা শহীদুল ইসলাম বাবু, মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, বজলুল করিম আবেদ চৌধুরী আবেদ, মহানগর দক্ষিণের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রশীদ হাবিব, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েল, ছাত্র দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মামুনুর রশীদ মামুন ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসানসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের মহানগরের নেতৃবৃন্দ অংশ নেন। বিক্ষোভটি প্রথমে মতিঝিলের অগ্রণী ব্যাংকের সামনে থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল। পরে সেখানে পুলিশের অবস্থানের কারণে স্থান পরিবর্তন করে বায়তুল মোকাররমে করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। মিছিল নিয়ে দৈনিক বাংলার দিকে কিছু দূর যেতেই পুলিশি বাধায় বিক্ষোভ প- হয়ে যায়। এ সময় বিএনপির নেতাকর্মীরা পুলিশের দিকে ইট ছুড়তে থাকেন। ওই স্থান দিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশের একটি গাড়ি ভাঙচুরের শিকার হয়। এ সময় বিক্ষোভে অংশ নেয়া নেতাকর্মীদের লক্ষ্য করে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। পুলিশের লাঠিচার্জের বিপরীতে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় কয়েকজন পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন। পুলিশের বাধায় মিছিল ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে। এ ঘটনায় জড়িত থাকায় মিছিল থেকে কয়েক নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে ছাত্র দল ঢাকা মহানগর পূর্ব শাখার সভাপতি এনামুল হক এনামসহ চকবাজার, যাত্রাবাড়ী লালবাগের ২০/২২ জন ছাত্র দল নেতাকর্মীকে পুলিশ আটক করে গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। এ সময় বেসরকারী টেলিভিশন বাংলা টিভির প্রতিবেদক ও আলোকচিত্রীকেও পুলিশ আটক করে পল্টন থানায় নিয়ে যায়। পরে সাংবাদিকরা সেখানে গেলে তাদের দুই জনকে ছেড়ে দেয়া হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার কারণে পুরানা পল্টন এলাকায় কিছুক্ষণ যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সাধারণ মানুষ আতঙ্কে ছোটাছুটি করতে থাকে। বিক্ষোভে অংশ নেয়া বিএনপির নেতারা জানায় তাদের মিছিল ছিল শান্তিপূর্ণ। কিন্তু পুলিশ বিনা উস্কানিতে লাঠিচার্জ শুরু করে। তাদের লাঠিচার্জের কারণে দলের ২০-২৫ জন কর্মী আহত হয়েছে। বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।
×