ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৬ আগস্ট ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

সবার সহযোগিতায় রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান করুন ॥ নজরুল

প্রকাশিত: ০৫:৪২, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭

সবার সহযোগিতায় রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান করুন ॥ নজরুল

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রোহিঙ্গা শরণার্থী নিয়ে সৃষ্ট সঙ্কটের মধ্যে মিয়ানমার থেকে চাল আমদানিতে দেশের দুর্বলতা প্রকাশ পেয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। বুধবার দুপুরে রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ১০ম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে স্বেচ্ছাসেবক দল আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। রোহিঙ্গা ইস্যুতে রাজনীতি না করার আহ্বান জানিয়ে নজরুল ইসলাম বলেন, সবার উচিত রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ানো। কিন্তু সরকার বিএনপিকে তাদের পাশে দাঁড়াতে বাধা দিচ্ছে। আমরা ত্রাণ দিতে গেলাম তাতে বাধা দেয়া হয়েছে। কিন্তু একদিন পরে এরশাদ সাহেব ত্রাণ দিতে গিয়ে সেখানে বক্তব্য দিলেন। সরকার তাতে বাধা দিল না। সরকারকে উদ্দেশ করে নজরুল ইসলাম বলেন, আসুন মানবতার স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ হই। সবার সহযোগিতা নিয়ে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান করুন। বিএনপি আপনাদের পাশে থাকবে। তিনি বলেন, মিয়ানমারে মুসলিম হত্যা, নারী ও শিশু নির্যাতন চলছে। যা দেখে বিশ্ববাসী হতবাক হয়ে গেছে। নজরুল খান বলেন, ক্ষমতাসীনরা বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে কুৎসা রটাচ্ছে। এটা শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিংসা। চালের অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধির সমালোচনা করে তিনি বলেন, চালের মূল্য মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। এর মধ্যে থাইল্যান্ড থেকে দুই জাহাজ পচা চাল আনা হয়েছে যা খাবার অনুপযোগী। স্বেচ্ছাসেবক দলের সভপতি শফিউল বারী বাবুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেনÑ বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, বরকত উল্লাহ বুলু, শওকত মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক ওবায়দুল ইসলাম, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সফু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূইয়া জুয়েল প্রমুখ। খালেদা জিয়া আন্দোলন করার চাবি নিয়ে লন্ডন যাননি Ñগয়েশ্বর বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া আন্দোলন করার চাবি নিয়ে লন্ডন যাননি মন্তব্য করে দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, আমরা বলি ম্যাডাম আসলে সহায়ক সরকারের রূপরেখা দেব, আন্দোলন করব, এই সরকারের পতন ঘটাব। কিন্তু খালেদা জিয়া কোন নেতাকর্মীকে সঙ্গে নিয়ে যাননি। সব নেতাকর্মী তিনি দেশে রেখে গেছেন। তাই তার অনুপস্থিতিতে যদি সরকারের পতন ঘটাতে পারি তাহলে তিনি আমাদের ওপর খুশি হবেন। বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘বাংলাদেশ ডেমোক্রেটিক কাউন্সিল’ নামক একটি সংগঠন আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। গয়েশ্বর বলেন, রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধান করা সরকারের একার পক্ষে সম্ভব নয়, এই ইস্যুতে জাতীয় ঐক্য প্রয়োজন। রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীন, রাশিয়া, ভারতের পদক্ষেপ বাংলাদেশ জন্য নেতিবাচক। সে জন্যই রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিগতভাবে এক সুরে কথা বলতে হবে। আয়োজক সংগঠনের সভাপতি এম এ হালিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেনÑ বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট আহমদ আজম খান, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, বিএনপির ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সহ-সভাপতি ইউনুস মৃধা প্রমুখ। সুচির বক্তব্য মানবতাবিরোধী Ñরিজভী রোহিঙ্গা ইস্যুতে আউং সান সুচির বক্তব্য মানবতাবিরোধী বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ওলামা দল আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ অভিযোগ করেন। রিজভী বলেন, মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা শরণার্থীদের যাচাই-বাছাই করে ফেরত নেয়া হবে বলে সুচি যে বক্তব্য দিয়েছেন তাতে আমরা হতাশ। সুচির এ বক্তব্য সমর্থনযোগ্য নয়। সুচি অবলীলায় মিথ্যা কথা বলে যাচ্ছেন। তার বক্তব্যে নির্যাতিত এ রোহিঙ্গাদের কথা উচ্চারিত হয়নি। সুচি আর গণতন্ত্রের নেত্রী নন বলেই এমন বক্তব্য দিয়েছেন। রিজভী বলেন, মিয়ানমার সরকারের বর্বর নির্যাতনের কারণে জীবন রক্ষায় চার লক্ষাধিক রোহিঙ্গা মুসলমান বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। এখন তাদের আশ্রয়, চিকিৎসা, খাদ্য ও পানি নেই। রোহিঙ্গা শরণার্থীরা একটি অমানবিক অবস্থার মধ্যে রয়েছে। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বিশ্ব সম্প্রদায়কে বোঝাতে ব্যর্থ হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলার পর শেখ হাসিনা বলেছেন, তিনি তার কাছ থেকে রোহিঙ্গা ইস্যুতে কিছুই প্রত্যাশা করেন না। এটা প্রধানমন্ত্রীর শুধু ব্যর্থতাই নয়, অযোগ্যতাও। রুহুল কবির রিজভী বলেন, আজ এ রোহিঙ্গা ইস্যুতে বন্ধু দেশগুলোও বাংলাদেশের পাশে নেই। এর কারণ প্রধানমন্ত্রী সেই নীতি অবলম্বন করতে পারেননি। দুর্গাপূজার প্রাক্কালে দেশের বিভিন্ন স্থানে মন্দির ভাঙ্গা হচ্ছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, এর সঙ্গে ক্ষমতাসীন দলের লোক জড়িত। আর মামলা দেয়া হচ্ছে বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেনÑ বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী সফু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, ওলামা দলের সভাপতি এম এ মালেক, মহাসচিব নেছারুল হক প্রমুখ।
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২